ইতালিতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

জমির হোসেন
জমির হোসেন জমির হোসেন , ইতালি প্রতিনিধি ইতালি
প্রকাশিত: ০৯:০১ এএম, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ইতালির রোমে বাংলাদেশ দূতাবাসের আয়োজনে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে একুশের প্রথম প্রহরে দূতাবাস ভবনের প্রাঙ্গণে স্থাপিত অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন রাষ্ট্রদূত আবদুস সোবহান সিকদার। এর পরপরই প্রবাসী বাংলাদেশিদের বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ সর্বস্তরের মানুষ ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। রাতের শীত উপেক্ষা করে অনুষ্ঠানে ৫০টির বেশি সংগঠনের বহু প্রবাসী বাংলাদেশি স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন।

Rome-1

দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও স্থানীয় শিল্পীদের পরিবেশনায় একুশের কালজয়ী গান ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি/আমি কি ভুলিতে পারি’ গাওয়ার মধ্য দিয়ে ২০ ফেব্রুয়ারি দিবাগত রাত ১টায় অনুষ্ঠান শুরু হয়। এ ছাড়া স্বাধীন বাংলা বেতারকেন্দ্র থেকে প্রচারিত মর্মস্পর্শী দেশাত্ববোধক গানও পরিবেশন করা হয়। এরপর দূতাবাসের কর্মকর্তারা একুশে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন।

Rome-3

রাষ্ট্রদূত তার বক্তব্যের শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে এবং ভাষা আন্দোলনে সব শহীদকে গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন এবং তাদের আত্মার শান্তি কামনা করেন। এরপর রাষ্ট্রদূত ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস সংক্ষিপ্তভাবে তুলে ধরেন।

Rome-3

তিনি বলেন, বাঙালি জাতির ও বাংলা ভাষার মর্যাদা রক্ষায় বঙ্গবন্ধু অনবদ্য অবদান রেখেছিলেন। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে ১৯৪৮ সালে সর্বপ্রথম মাতৃভাষার দাবিতে গঠিত হয় ‘সর্বদলীয় রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম পরিষদ’ এবং এ আন্দোলনের জন্য তাকে কারাভোগ করতে হয়।১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি ভাষা আন্দোলনের চূড়ান্ত রূপ লাভ করে। যেদিন শহীদ হন সালাম, রবকত, রফিক, জব্বার, শফিকসহ নাম না জানা অনেকে।

জেডএ/পিআর

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - jagofeature@gmail.com