জার্মানিতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

হাবিবুল্লাহ আল বাহার
হাবিবুল্লাহ আল বাহার হাবিবুল্লাহ আল বাহার
প্রকাশিত: ০৮:৫৬ পিএম, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস উপলক্ষে জার্মানির বন শহরে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক কেন্দ্র দেশটিতে এ আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সভাপতি বদরুন্নেসা হোসেন সুলতানা।

মাকসুদা আফরোজের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে ভাষা আন্দোলনের প্রেক্ষাপট ও ইতিহাস তুলে ধরেন পারভেজ আখতার এবং রফিকুল ইসলাম।

বক্তারা বাংলা ভাষা রক্ষার্থে ছাত্র-জনতার আন্দোলনের ইতিবৃত্ত তুলে ধরে বলেন, পাকিস্তানি শাসক যখন শুধুমাত্র উর্দুকেই রাষ্ট্রভাষা করতে চাইলো তখন পূর্ব বাংলা থেকে অত্যন্ত যৌক্তিক কারণেই এর তীব্র প্রতিবাদ হয়েছিল। কারণ উর্দু পুরো পাকিস্তানে তো নয়ই বরং পশ্চিম পাকিস্তানেরও সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের ভাষা নয়। বাঙালির ন্যায্য দাবি যখন তারা মানলো না তখন আন্দোলন তীব্রতর হওয়ায় পুলিশ গুলি চালায়। তাতে মারা যায় সালাম, বরকত, রফিক, জব্বারসহ অনেকে। সেই আন্দোলনের পথ ধরেই পরবর্তীতে আমরা ভাষা ও স্বাধীনতা পাই।

মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের অন্যতম সংগঠক ড. তিয়াসা হোসেন আইয়ুবের নেতৃত্বে সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সদস্যরা প্রথমে দলীয় ও একক কবিতা এবং গান পরিবেশন করেন। পরে ড. তিয়াসা হোসেন আইয়ুবের নেতৃত্বে দলীয় ও একক সংগীত পরিবেশন করেন সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের শিল্পীরা। অন্যান্যের মধ্যে গান ও কবিতা পরিবেশন করেন মুশরাত জাহান, আশরাফুল লতিফ অ্যালিস, নুশরাত হারুন অন্তরা, জাহিদ হাসান, নাজমুল হক রাসেল, বায়েজিদুল ইসলাম রাজিব, মিঠুন প্রণব, ফারাহ নায়ার জাবিন, সুমি জাহান, নাজমুন নাহার রুমানা, তুলি তালুকদার এবং মিঠু রমজান।

একুশের চেতনা নিয়ে স্বরচিত বাংলা কবিতা আবৃত্তি করেন কবি ও পরিকল্পনাবিদ মো. খুরশীদ হাসান সজীব এবং জার্মান ভাষায় স্বরচিত কবিতা আবৃত্তি করেন কবি ও সাংবাদিক হোসাইন আব্দুল হাই।

এমএফ/জেআইএম

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - jagofeature@gmail.com