কেপটাউন সমুদ্র সৈকতে হঠাৎ বিষধর সাপের বিচরণ

ফারুক আস্তানা
ফারুক আস্তানা ফারুক আস্তানা , দক্ষিণ আফ্রিকা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ১২:৪২ পিএম, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

দক্ষিণ আফ্রিকার কেপটাউন সমুদ্র সৈকতের কয়েকটি জায়গায় বেশ কিছু বিষধর সাপের বিচরণ লক্ষ্য করা গেছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে সমুদ্রের বেলাভূমিতে এসব সাপ দলবেঁধে বিচরণ করতে দেখা গেছে।

সৈকতে ভ্রমণ করতে আসা বেশ কিছু পর্যটক সমুদ্রের বেলাভূমিতে নেমে সাপের বিচরণ দেখে ভয়ে পালাতে থাকে এবং সমুদ্রের নিরাপত্তায় নিয়োজিত আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে খবর দিলে তারা বেলাভূমিতে সাপের বিচরণ দেখে।

এরপর কেপটাউন মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড বায়োলজি সায়েন্সের একদল কর্মকর্তা সমুদ্রের বেলাভূমি থেকে সাপগুলো সংগ্রহ করে তাদের তত্ত্বাবধানে নিয়ে যায়।

সামুদ্রিক বিজ্ঞানীরা বলেছেন, হলুদ রঙের পেটযুক্ত বিষাক্ত সাপগুলো মানুষের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ। এটি সমুদ্র সৈকত ভ্রমণকারী পর্যটকদের জন্য বিড়ম্বনার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বিজ্ঞানীরা বলেছেন, এসব সাপ সাধারণত লোকালয়ে আসে না। এদের বসবাস হয়ে থাকে সমুদ্রের গভীরে। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সাপগুলো আটলান্টিক মহাসাগরের তলদেশ থেকে ঢেউয়ের তালে তালে সমুদ্রের বেলাভূমিতে চলে এসেছে।

দক্ষিণ আফ্রিকার মেরিন ওয়াইল্ডলাইফ বিশেষজ্ঞ ব্রেট গ্লাসবি গণমাধ্যমে বলেছেন, আমরা সমুদ্রের বেলাভূমি থেকে মোট ৮টি সাপ উদ্ধার করে এনেছি। এদেরকে কৃত্রিম উপায়ে বাঁচিয়ে রাখতে আপাতত অ্যাকুরিয়ামে রাখা হবে এবং আরও সাপের সন্ধানে কাজ করা হবে।

তিনি বলেন, সাপগুলি যদি ছেড়ে দেওয়া হয় এবং যদি তাদের পরিচালনা করা না হয় তবে লোকালয়ের জন্য হুমকি সরুপ হবে। সাপগুলিকে পরীক্ষা নিরীক্ষার পর মহাসাগরের গভীরে ছেড়ে দেওয়া হবে, তা না হয় বাঁচানো সম্ভব হবে না।

এমআরএম/এমএস

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]