মালয়েশিয়ার সাবাহর বিধানসভা নির্বাচনে ক্ষমতাসীন জোটের বিজয়

আহমাদুল কবির
আহমাদুল কবির আহমাদুল কবির , মালয়েশিয়া প্রতিনিধি মালয়েশিয়া
প্রকাশিত: ০৪:৪৭ পিএম, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

মালয়েশিয়ার সাবাহ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে ক্ষমতাসীন জোটের বিজয় হয়েছে। এদিকে পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠতার দাবি করে যখন সরকার উৎখাত পরিকল্পনা করছেন আনোয়ার ইব্রাহিম, তখন ২৬ সেপ্টেম্বর দেশটির গুরুত্বপূর্ণ রাজ্যে সাবাহর ১৬তম নির্বাচনে বিজয় লাভ করে ক্ষমতাসীন জোট।

এতে সাত মাস বয়সী মহিউদ্দিন ইয়াসিন সরকারের অবস্থান শক্তিশালী হলো বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। শনিবার অনুষ্ঠিত সাবাহ-এর বিধান সভা নির্বাচনে ৭৩টি আসনের মধ্যে মুহিদ্দিনের পেরিকাতান ন্যাশনাল (পিএন) জিতেছে ৩৮ আসনে। আগে এই রাজ্যটি ছিল বিরোধীদের দখলে। কিন্তু সামান্য ব্যবধানে তাদের কাছ থেকে এই রাজ্যের নিয়ন্ত্রণ হাতছাড়া হয়ে যায়।

malasia2

এর আগে মহিউদ্দিন বলেছিলেন, সাবাহে জিআরএস (ক্ষমতাসীন জোট) জিতলে শিগগিরই জাতীয় নির্বাচনের ডাক দেওয়া যেতে পারে। নির্বাচনের আগে বিশ্লেষকরা বলেছিলেন, যদি সাবাহ রাজ্যে ক্ষমতাসীনরা পরাজিত হয় তাহলে তার অর্থ হবে জোট সরকারের ইতি।

উল্লেখ্য, নিজের দলের ভেতরে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ড. মাহাথির মোহাম্মদের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক ফন্দি এঁটে তাকে মার্চে ক্ষমতাচ্যুত করেন মুহিদ্দিন ইয়াসিন। এরপর ক্ষমতায় আসেন তিনি।

malasia2

তার বিরোধীরা অভিযোগ করেন, তিনি ব্যালটের পরিবর্তে জোটের ভিতরে ফাটল ধরিয়ে ক্ষমতা চুরি করেছেন। তার মিত্ররা শক্তিশালী ম্যান্ডেট অনুমোদন নিশ্চিত করতে আগাম ভোট দেয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করেছে কয়েক মাস হলো।

মালয়েশিয়ার সাধারণ নির্বাচন ২০২৩ সালে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই ডাকা হবে বলে ব্যাপক ধারণা করা হচ্ছে।

malasia3

তবে এই নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন মাহাথির মোহাম্মদ। মাহাথির মোহাম্মদ জানিয়েছেন, ২০২৩ সালে জাতীয় নির্বাচন বা আগাম হলে তিনি প্রধানমন্ত্রী পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন না। কারণ ওই সময় তার বয়স হবে ৯৮ বছর।

শনিবার গণমাধ্যমে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেছেন। তিনি পার্টি পিজুয়াং তানাহ এয়ার নামে নতুন একটি দল গঠন করছেন। এই দলের উপদেষ্টা হিসেবে তিনি থাকতে চান। অবশ্য কোনো কারণে আগাম নির্বাচন হলে তাতে তিনি অংশ নেবেন কিনা সে বিষয়ে কোনো ইঙ্গিত দেননি ৯৫ বছর বয়সী মাহাথির।

malasia5

তিনি এর আগে ১৯৮১ থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত মালয়েশিয়ার দীর্ঘতম দায়িত্ব পালনকারী প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। মাহাথির আশা করেছিলেন তার পুত্র মুখরিজ তার উত্তরাধিকার বহন করবে। এটা তার উপর নির্ভর করে। আমি তার পথে দাঁড়াব না। মুখরিজ হলেন পার্টি পেজুয়াং তানাহ এয়ার (পেজুয়াং) এর অন্তবর্তী সভাপতি যা পিপিবিএম ছাড়ার পরে মাহাথির প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।

মাহাথির বলেছেন, সরকার থেকে দূরে থাকলেও তিনি পেজুংয়ের মাধ্যমে দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাবেন। ‘পেজুয়াং খুব শক্তিশালী নীতি পেয়েছে, যার মধ্যে একটি হলো এই দেশকে দুর্নীতিগ্রস্ত হওয়া থেকে বিরত রাখা। তার সাবেক দল পিপিবিএমের নেতৃত্বে নতুন পেরিকাটান নরসিয়াল সরকার বরিশান নরসিয়ালের পুরনো দুর্নীতিবাজ পদ্ধতি গ্রহণ করেছে।

malasia6

পেরিকাতান ন্যাশনাল সরকার হওয়ার তিন মাস পর আমি কোনও মন্তব্য করিনি কারণ আমি তাদের অভিনয় দেখতে চেয়েছিলাম। দুর্ভাগ্যক্রমে, এটি দুর্নীতির দিকে ফিরে গেছে, সরকারের পক্ষে সমর্থন কিনে। তা সত্ত্বেও, এটি এখনও কেবলমাত্র দুই সদস্যের সংখ্যাগরিষ্ঠ বলে মহাথির যোগ করেন।

তিনি বলেন, পিএন সরকারকে ঘুষের মাধ্যমে উত্থাপন করা হচ্ছে। ‘এটি দুর্নীতির আরও খারাপ রূপ। পুরো সরকার দুর্নীতির মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত’।

এমআরএম/পিআর

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]