কানাডায় করোনার দ্বিতীয় ঢেউ, মৃত্যু ৯৮২৬ জনের

আহসান রাজীব বুলবুল
আহসান রাজীব বুলবুল আহসান রাজীব বুলবুল , কানাডা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৯:২৩ এএম, ২২ অক্টোবর ২০২০

মহামারির দ্বিতীয় পর্যায়ে পুরো কানাডাতে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দিনে দিনে বেড়েই চলেছে। ইতোমধ্যে বিভিন্ন প্রদেশের সিটি ‘ডেঞ্জার জোন’ ও ‘হাই অ্যালার্ট’ ঘোষণা করা হয়েছে।

কানাডার আলবার্টার ক্যালগেরিতে কোভিড-১৯ পজিটিভ বৃদ্ধির কারণে শহরটিকে শুক্রবার নজরদারিতে রাখা হয়।

এদিকে গতকাল আলবার্টার পৌরসভা বিষয়ক মন্ত্রী ট্রেসি আলার্ডের করোনা পজিটিভ এসেছে।

স্থানীয় গণমাধ্যম সিবিসি নিউজ জানিয়েছে, মন্ত্রী ট্রেসি আলার্ডের করোনাভাইরাসের লক্ষণ পাওয়া গেছে। পরে তিনি সেল্ফ আইসোলেশনে যান।

আলবার্টার স্বাস্থ্য বিষয়ক চিফ মেডিকেল অফিসার ডা. ডীনা হিনসা আলর্বার্টানদেরকে সতর্ক করে বলেন, ভাইরাসের বিস্তার নিয়ন্ত্রণে প্রদেশটিকে ‘ডেঞ্জার জোন’ ঘোষণা করে কঠোর বিধি-নিষেধের আওতায় আনা হয়েছে।

তিনি বলেন ‘গত দুই সপ্তাহে প্রদেশজুড়ে দৈনিক হাসপাতালে ভর্তির পরিমাণ ৩.১ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। অন্যদিকে কানাডার টরেন্টোতে করোনা পজিটিভ হার গত সপ্তাহে ৪.৪ শতাংশ ছুঁয়েছে।

উল্লেখ্য, আলবার্টা প্রদেশের সরকার, স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও নীতি নির্ধারকরা মাস্ক ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য সবাইকে পরামর্শ দিয়েছেন। পাশাপাশি হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

কানাডার আলবার্টায় ইতোমধ্যে শীত ও তুষারপাত শুরু হয়েছে। বিশেষজ্ঞদের অনেকেই মনে করছেন একদিকে শীত, তুষারপাত আর অন্যদিকে করোনার প্রকোপ। সবমিলে আলবার্টানরা এক কঠিন সময়ের পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে।

সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, কানাডায় করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৫ হাজার ৯৫৪ জন। মোট মৃত্যুবরণ করেছেন ৯ হাজার ৮ শত ২৬ জন। সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৭৩ হাজার ৫১৪ জন।

এমআরএম/পিআর

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]il.com