কারাবন্দি বিদেশিদের শর্তসাপেক্ষে বৈধকরণের পরিকল্পনা মালয়েশিয়ার

আহমাদুল কবির
আহমাদুল কবির আহমাদুল কবির , মালয়েশিয়া প্রতিনিধি মালয়েশিয়া
প্রকাশিত: ১১:৩১ এএম, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০
বন্দি বিদেশিদের বিভিন্ন খাতে নিয়োগেরও পরিকল্পনা করছে মালয়েশিয়া সরকার

মালয়েশিয়ায় কারাবন্দি বিদেশিদের শর্তসাপেক্ষে বৈধকরণের পরিকল্পনা করছে দেশটির সরকার। বাংলাদেশি অভিবাসীসহ বিভিন্ন দেশের কয়েক হাজার অভিবাসী ডিটেনশন ক্যাম্পে আটক রয়েছেন। তাদেরকে দেশটিতে অবৈধভাবে বসবাস ও বিভিন্ন অপরাধে আটক করা হয়েছে।

শর্তসাপেক্ষে এসব বিদেশিকে বিভিন্ন খাতে নিয়োগ দিতে পরিকল্পনা করছে মালয়েশিয়া সরকার। এর জন্য সংশ্লিষ্ট নিয়োগকারীদের ডিটেনশন ক্যাম্পে বন্দিদের প্রত্যাবর্তনের খরচ বহন করতে হবে। এরপর কারাবন্দিদের বৈধকরণের চূড়ান্ত প্রস্তাব দেশটির মন্ত্রিসভায় উত্থাপন করা হবে।

বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্র ও মানবসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী পর্যায়ের এক বৈঠকে এসব বিষয়ে আলোচনা হয়। দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাতো সেরী হামজা জায়নুদ্দিন বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। এতে আরও উপস্থিত ছিলেন মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রী এম সারাভানান।

বৈঠকে বলা হয়, বড় বড় কোম্পানিগুলো যাদের ব্যাপক শ্রমিক সংকট রয়েছে, তারা চাইলে ডিটেনশন ক্যাম্পে আটক বিদেশিদের নিয়োগ দিতে পারে। কিন্তু তার আগে শর্ত হলো, তাদের যতজন শ্রমিক প্রয়োজন ততজন শ্রমিকের প্রত্যাবর্তনের খরচ বহন করতে হবে। যদি এই শর্তে নিয়োগদাতারা রাজি থাকে, তাহলে প্রস্তাবটি শিগগিরই মন্ত্রিসভায় বিলটি উত্থাপন করা হবে।

কারাবন্দি বিদেশিদের মধ্যে প্রায় ১৫ শতাংশ কর্মক্ষম রয়েছে। যারা অসুস্থ কিংবা কাজ করতে অক্ষম, তাদেরকেও নিজ দেশে প্রত্যাবর্তন করা হবে। তাদেরকে নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর জন্য আটক করা হয়েছে।

বৈঠকে আরও বলা হয়, করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘ সময় বন্দি থাকা বিদেশিদের ক্ষেত্রে এটা একটা ইতিবাচক সমাধান হতে পারে। এতে উভয়পক্ষ উপকৃত হবে। বর্তমান বিভিন্ন সেক্টরে বিশেষ করে পামতেল শিল্প, প্লানটেশন, কনস্ট্রাকশন ও কৃষি খাতে যে শ্রমিক সংকট রয়েছে, সেগুলোতে তাদেরকে কাজে লাগানো যেতে পারে। ডিটেনশন ক্যাম্প থেকে অথবা বিদেশ থেকে নতুন শ্রমিক আমদানি করে এ সংকট মোকাবিলা করা যাবে।

এমএসএইচ/এমএস

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]