তুরস্কে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

মু. তারিকুল ইসলাম
মু. তারিকুল ইসলাম মু. তারিকুল ইসলাম , তুর্কি
প্রকাশিত: ০৫:২১ পিএম, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১

বাংলাদেশ দূতাবাস, আংকারা : নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে তুরস্কে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস এবং মহান শহীদ দিবস পালিত হয়েছে। দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মসয়ুদ মান্নান এনডিসির নেতৃত্বে দূতাবাসের কর্মকর্তা/কর্মচারী ও প্রবাসীরা জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ এবং অস্থায়ীভাবে নির্মিত শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

পরবর্তীতে দূতাবাস মিলনায়তনে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এ সময় রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্রপ্রতিমন্ত্রীর দেয়া বাণী পাঠ করে শোনানো হয়। এরপর ভাষা শহীদদের নিয়ে কবিতা পাঠ করা হয়। সংক্ষিপ্ত পরিসরে সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এছাড়া বাংলাদেশ দূতাবাস জুমের মাধ্যমেও আরেকটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। তাতে ৩০টি দেশ থেকে কবিরা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস এবং মহান শহীদ দিবস নিয়ে কবিতা পাঠ করা হয়।

বাংলাদেশে কনস্যুলেট, ইস্তাম্বুল : করোনাভাইরাসের কার্ফিউর মধ্যে অনলাইনে ইস্তাম্বুলে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস এবং মহান শহীদ দিবস উদযাপিত হয়েছে। ইস্তাম্বুলে বাংলাদেশ কনস্যুলেট ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ বেলা ১১টায় জুমের মাধ্যমে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

turki3.jpg

এ সময় দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কর্তৃক প্রদত্ত বাণী পাঠ করা হয়। বাণী পাঠের পর অনুষ্ঠানে ভাষা আন্দোলনের ওপর নির্মিত একটি সংক্ষিপ্ত প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শিত হয়।

ইস্তাম্বুলে নিযুক্ত বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল ড. মো. মনিরুল ইসলাম মাতৃভাষাকে কীভাবে আরও প্রচার-প্রসার করা যায় তা উল্লেখ করতে গিয়ে ইস্তাম্বুল কনস্যুলেটের বিভিন্ন উদ্যোগ ও পদক্ষেপে সমূহ তুলে ধরেন।

এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য তিনটি হলো-

১. ইস্তাম্বুল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তাদের ভাষা সেন্টারে বাংলা ভাষা কোর্স চালুর অনুমোদন পেয়েছে, যা এখন বাংলাদেশ সরকারের অনুমতির অপেক্ষায় রয়েছে।

২. ইস্তাম্বুলের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশি কালচার সেন্টার চালুর প্রচেষ্টা চলছে।

৩. ইস্তাম্বুলের একটি পার্কে বাংলাদেশ ডে উদযাপনের প্রচেষ্টা চলছে।

কনসাল জেনারেল বাংলাদেশ ও তুরস্কের মাঝে ভাষা ও সাংস্কৃতিক বিনিময়ের মাধ্যমে আগামী দিনগুলোতে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরও শক্তিশালী হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। উন্মুক্ত আলোচনায় ডাক্তার, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাক, কবি, ব্যবসায়ী, শিক্ষার্থীরা ও সংবাদ মাধ্যমের প্রতিনিধিসহ তুরস্কে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিরা অংশগ্রহণ করেন।

তারা বক্তব্যের শুরুতে ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারির শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। ২১ ফেব্রুয়ারি শুধু উদযাপনে সীমাবদ্ধ না রেখে তুরস্কে মতো বাংলাদেশেও সর্বস্তরে বাংলা ভাষা ব্যবহার নিশ্চিত করার ওপর জোর দেন। কারণ তুর্কিরা তাদের সকল পর্যায়ে তুর্কি ভাষা ব্যবহার করে থাকে। আলোচনা শেষে শহীদদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনায় বিশেষ দোয়া করা হয়। 

turki3.jpg

বাংলাদেশ কমিউনিটি: তুরস্কের বাংলাদেশ কমিউনিটি অনলাইনে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস প্রতিযোগিতা ২০২১ আয়োজন করে। ৪৩ জন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেছে। দুই গ্রুপের চারটি ক্যাটাগরিতে সেরা ১২ জন পুরস্কৃত করা হয়।

পুরস্কারগুলো হল-
বড়দের গ্রুপ:
১ম পুরস্কার: ড্রোন
২য় পুরস্কার: জুস মেকার
৩য় পুরস্কার: ওয়্যারলেস ব্লুটুথ হেডফোন

ছোটদের গ্রুপ:
১ম পুরস্কার: রিমোট নিয়ন্ত্রিত রোবট
২য় পুরস্কার: স্মার্ট ওয়াচ
৩য় পুরস্কার: পেইন্টিং সেট

২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ রাত ৯টা জুমের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস প্রতিযোগিতা ২০২১ ফলাফল ঘোষণা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে তুরস্কে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত জনাব মসয়ুদ মান্নান এনডিসি মহোদয় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন। অনুষ্ঠানের সঞ্চালনায় ছিলেন ইস্তানবুল গেলিশিম বিশ্ববিদ্যালয় সহকারী অধ্যাপক ড. শাহেন শাহ।

রাষ্ট্রদূত তার স্বাগত বক্তব্যের শুরুতেই ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারির শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন ও স্মরণ করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। তিনি বলেন, ভাষা আন্দোলনের মাধ্যমেই ১৯৭১ সালে দীর্ঘ পথ-পরিক্রমায় বিশ্ব মানচিত্রে বাংলাদেশ নামক একটি রাষ্ট্রের অভ্যুদয় ঘটে।

অনুষ্ঠানে তুরস্কের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলাদেশি শিক্ষক ও পেশাজীবী, ব্যবসায়ী, গৃহিণী, শিক্ষার্থী, প্রতিযোগী ও তুরস্কে অবস্থানরত বাংলাদেশিরা যুক্ত হন।

বাংলাদেশ স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশন: তুরস্কের বাংলাদেশ স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশন ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ বিকেল ৪টায় জুমের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করা হয়। তারা মাতৃভাষা নিয়ে আলাপচারিতা, প্রমিত ভাষার অনুচ্ছেদ আঞ্চলিক ভাষায় পঠন, আঞ্চলিক ভাষার গান ও কবিতা, বাংলা ধাঁধা এবং সর্বশেষ আন্তর্জাতিক ভাষায় মাতৃভাষা দিবস উদযাপনের প্রামাণ্য চিত্রের একটি ভিডিও উপস্থাপন করেন। উদযাপনে বিশেষ করে শিক্ষার্থীর জয়েন করেন।

এমআরএম/এমএস

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]