সুদানে বাংলাদেশিদের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান পরিদর্শন রাষ্ট্রদূতের

প্রবাস ডেস্ক প্রবাস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:১৫ পিএম, ০৬ মে ২০২১ | আপডেট: ০৬:৫৮ পিএম, ০৬ মে ২০২১

ইথিওপিয়ার আদ্দিস আবাবা থেকে রাষ্ট্রদূত মো. নজরুল ইসলাম ও কাউন্সেলর সম্প্রতি দক্ষিণ সুদান ভ্রমণ করেছেন এবং দক্ষিণ সুদানে বসবাসকারী বাংলাদেশিদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে মিলিত হয়েছেন।

সফরকালে তারা বাংলাদেশিদের পরিচালিত বিভিন্ন ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানপরিদর্শন করেন এবং তাদের সঙ্গে ব্যবসা সম্পর্কিত বিভিন্ন সমস্যা ও সম্ভাবনা সম্পর্কে আলোচনা করেন।

এছাড়াও তারা দক্ষিণ সুদানে বসবাসরত বাংলাদেশিদের জন্য বেশ কিছু কন্স্যুলার কার্যক্রম পরিচালনা করেন। তবে দক্ষিণ সুদান যেহেতু স্থলবেষ্টিত একটি দেশ এবং সেখানকার যোগাযোগ ব্যবস্থা খুবই অনুন্নত ও অনিয়মিত, সেহেতু বাংলাদেশিরা নিয়মিতভাবে এ রকম কন্সুলার সফর পরিচালনার দাবি করেন।

সফরকালে বাংলাদেশিরা রাষ্ট্রদূতকে বিভিন্ন ব্যবসায়ী সম্ভাবনা সম্পর্কে অবহিত করেন। বিশেষ করে ঢাকা বিমানবন্দরে এবং বি এম ই টি’তে বিভিন্ন ছাড়পত্র গ্রহণে দীর্ঘসূত্রিতা এবং বিভিন্ন অসুবিধা সম্পর্কে বাংলাদেশিরা আলোকপাত করেন।

jagonews24

রাষ্ট্রদূত দক্ষিণ সুদানে বসবাসরত বাংলাদেশিদের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের বিষয়ে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনার আশ্বাস দেন। তিনি সকল বাংলাদেশিদেরকে দক্ষিণ সুদানের সকল আইন-কানুন এবং নিয়মাবলী মেনে চলার জন্য অনুরোধ করেন যাতে করে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি সদা সমুন্নত থাকে।

রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশিদের সফলভাবে ব্যবসা পরিচালনার জন্য প্রয়োজনীয় সহায়তার জন্য দক্ষিণ সুদান সরকারের সঙ্গে আলোচনার আশ্বাস দেন। অতঃপর রাষ্ট্রদূত মুজিব শতবর্ষ এবং স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে সরকার কর্তৃক গৃহীত বিভিন্ন কার্যক্রমের বর্ণনা দেন।

সফরকালে দক্ষিণ সুদানে কর্মরত বাংলাদেশি শান্তিরক্ষী কর্মকর্তাদের সঙ্গে রাষ্ট্রদূত সাক্ষাত করেন এবং শান্তিরক্ষা কার্যক্রম সম্পর্কে অবহিত হন। দক্ষিণ সুদানে কর্মরত সকল বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের নিরলস প্রচেষ্টা ও সর্বোচ্চ ত্যাগের বিনিময়ে বিশ্ব শান্তিরক্ষায় অবদান রাখার মাধ্যমে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করার জন্য রাষ্ট্রদূত তাদের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

পাশাপাশি রাষ্ট্রদূত তাদেরকে বাংলদেশ দূতাবাস, আদ্দিস আবাবার পক্ষ থেকে সর্বত সহায়তা প্রদানের পুনরায় আশ্বাস প্রদান করেন।

এমআরএম/এএসএম

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]