ফকির আলমগীরের মৃত্যুতে কানাডায় শোকের ছায়া

আহসান রাজীব বুলবুল
আহসান রাজীব বুলবুল আহসান রাজীব বুলবুল , কানাডা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৩:২৬ পিএম, ২৪ জুলাই ২০২১

একুশে পদকপ্রাপ্ত জনপ্রিয় গণসংগীতশিল্পী ফকির আলমগীরের মৃত্যুতে পুরো কানাডায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তার মৃত্যুর খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে বিভিন্ন ব্যক্তি, বুদ্ধিজীবী সাংবাদিক, সাহিত্যিক, সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন গভীরভাবে শোক প্রকাশ করেছেন।

শোক প্রকাশ করতে গিয়ে কানাডার ‘নতুন দেশ’ পত্রিকার প্রধান সম্পাদক ও সাংবাদিক শওগাত আলী সাগর বলেন, তার মৃত্যু বাঙালি জাতির জীবনে এক অপূরণীয় ক্ষতি। তার কর্মের মাধ্যমে তিনি বেঁচে থাকবেন আমাদের হৃদয়ে। মরহুমের শোক-সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।

কানাডার ‘প্রবাস বাংলা ভয়েস’ এর প্রধান সম্পাদক আহসান রাজীব বুলবুল বলেন, প্রথিতযশা এই শিল্পীর মৃত্যু আমাদের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি। গণজাগরণ আর গানের মাধ্যমে জাগরিত করা জাতির আলো যেন ধীরে ধীরে নিভে যাচ্ছে। মরহুমের শোক-সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।

বাংলাদেশ কানাডা অ্যাসোসিয়েশন অব ক্যালগেরির সভাপতি মো. রশিদ রিপন বলেন, আমরা এক গুণী ব্যক্তিত্ব ও অভিভাবককে হারালাম। তার কর্মের মাধ্যমে তিনি বেঁচে থাকবেন আমাদের মাঝে। মরহুমের শোক-সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।

বাংলাদেশ কানাডা অ্যাসোসিয়েশন অব ক্যালগেরির সহ-সভাপতি মো. কাদির বলেন, এ এক অপূরণীয় ক্ষতি। সংগীতে ও বাংলাদেশের জন্য তার অবদান জাতি সারা জীবন মনে রাখবে। মরহুমের শোক-সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।

বিশিষ্ট কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব প্রকৌশলী ও রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী আবদুল্লা রফিক বলেন, স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র ও স্বাধীনতা যুদ্ধে তার অবদানের জন্য তিনি জাতির কাছে চিরদিন স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। মরহুমের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি।

সিলেট অ্যাসোসিয়েশন অব ক্যালগেরির সভাপতি রূপক দত্ত বলেন, তার মৃত্যুতে দেশের সংস্কৃতি অঙ্গনের এক নক্ষত্রের পতন হলো। তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি।

কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব ও রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী কিরন বনিক শংকর বলেন, ঋষিজ শিল্পীগোষ্ঠীর প্রতিষ্ঠাতা, জনপ্রিয় গণসংগীতশিল্রী ফকির আলমগীর আমার মাঝে আর নেই বিশ্বাস করতে পারছি না। বাংলাদেশের প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলনে তার ভূমিকা আর তার অনবদ্য সকল গানের মাধ্যমে ফকির আলমগীর আমাদের মধ্যে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন। আমাদের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে এটি একটি অপূরণীয় ক্ষতি। তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি আর শোক-সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।

কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব ও বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পী সোহাগ হাসান বলেন, স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র ও গণজাগরণের পথিকৃৎ ফকির আলমগীরের মৃত্যু সঙ্গীত অঙ্গনের অপূরণীয় ক্ষতি। শোক-সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা ও কালজয়ী এই শিল্পীর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি।

বিশিষ্ট কলামিস্ট উন্নয়ন গবেষক ও সমাজতাত্ত্বিক বিশ্লেষক মো. মাহমুদ হাসান বলেন, একটি নক্ষত্রের বিদায়। স্বাধীনতা থেকে প্রতিটি অধিকার আদায়ের আন্দোলন সংগ্রামে গণজাগরণ সৃষ্টিতে অসামান্য অবদানের মাধ্যমে তিনি আজীবন জাতির হৃদয়ে বেঁচে থাকবেন। আমি তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি, সঙ্গে সঙ্গে প্রার্থনা করি পরম করুণাময় যেন তার পরিবারকে সেই শোক কাটিয়ে উঠার শক্তি দান করেন।

এছাড়াও কানাডায় ফকির আলমগীরের মৃত্যুতে বিভিন্ন সংগঠন শোক প্রকাশ করেছেন ও তার শোক-সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন।

এমআরএম/এএসএম

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]