নিউইয়র্ক বাংলা বইমেলা শুরু ২৮ অক্টোবর

তোফাজ্জল লিটন
তোফাজ্জল লিটন তোফাজ্জল লিটন , যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৯:৩০ এএম, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১
ফাইল ছবি

বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও নিউইয়র্ক বাংলা বইমেলার ৩০ বছর পূর্তিকে সামনে রেখে আগামী ২৮ অক্টোবর থেকে ১ নভেম্বর পর্যন্ত পাঁচ দিনব্যাপী নিউইয়র্ক বাংলা বইমেলার আয়োজন করেছে মুক্তধারা ফাউন্ডেশন। ৩০তম নিউইয়র্ক বাংলা বইমেলার শ্লোগান নির্ধারণ করা হয়েছে ‘বই আমার শক্তি, বই আমার মুক্তি’।

মেলার উদ্বোধন করবেন কবি আসাদ চৌধুরী। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে সংস্কৃতিবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদের উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে। এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা, জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রের পরিচালক কবি মিনার মনসুর ও লেখক আনিসুল হককে।

লাগর্ডিয়া এয়ারপোর্টের ম্যারিয়াট হোটেলের বল রুমে ২৮ অক্টোবর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। দর্শক-পাঠকদের সরাসরি অংশগ্রহণে এদিন বিকেল ৫টায় শুরু হয়ে রাত ১১টা পর্যন্ত চলবে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। এছাড়াও থাকবে আমন্ত্রিত অতিথিদের নিয়ে দুটি বিশেষ আয়োজন। থাকবে আমন্ত্রিত শিল্পীদের সংগীত পরিবেশনা। নিউইয়র্ক সিটির কোভিড নীতিমালা মেনেই সশরীরে অনুষ্ঠান করার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন ৩০তম নিউইয়র্ক বাংলা বইমেলার আহ্বায়ক ড. নূরুন নবী।

মুক্তধারা ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিত সাহা জানান, উদ্বোধনের পর ২৯ অক্টোবর থেকে ১ নভেম্বর পর্যন্ত বাকি চারদিন বইমেলা চলবে জ্যাকসন হাইটসের ৭৭ স্ট্রিট ও ৩৭ এভিনিউ কর্নারে অবস্থিত জুইশ সেন্টারে। প্রতিদিন বিকাল ৪টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত বইমেলা চলবে। এরই মধ্যে বইমেলায় অংশ নিতে বাংলাদেশ থেকে অনন্যা, আহমদ পাবলিশিং হাউস, কথাপ্রকাশ, ইত্যাদি, নালন্দা, বাতিঘর ও অন্বয় প্রকাশের প্রতিনিধিরা নিউইয়র্কে যাওয়ার জন্য বিমানের টিকিট ক্রয় করেছেন বলে জানান তিনি।

বিশ্বজিত সাহা আরও বলেন, এছাড়া বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গ থেকে প্রচুর পরিমাণে নতুন বই আসছে বইমেলায়। ২০২১ সালের বইমেলায় সরাসরি বই ক্রয়ের যেমন সুযোগ থাকবে তেমনি থাকবে পৃথিবীর যে কোনো স্থান থেকে ভার্চুয়ালি বই ক্রয়ের সুযোগ। মেলার প্রস্তুতি ও অনুষ্ঠানমালা সম্বন্ধে বিস্তারিত খবর জানতে মেলার জন্য মুক্তধারার নিজস্ব ওয়েবসাইটে চোখ রাখতে সবাইকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

এআরএ/জেআইএম

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]