আলমেরিয়ার কৃষি মডেল বাংলাদেশের কৃষি উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারে

কবির আল মাহমুদ
কবির আল মাহমুদ কবির আল মাহমুদ
প্রকাশিত: ০৯:৫৮ এএম, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

বাংলাদেশ ও স্পেনের কৃষিক্ষেত্রে প্রযুক্তি ও অভিজ্ঞতা বিনিময়ের লক্ষ্যে ভার্চুয়ালি আয়োজিত সেমিনারে বক্তারা বলেছেন, স্পেনের আলমেরিয়া প্রদেশের কার্যকর ও টেকসই কৃষি প্রযুক্তি যাচাই-বাছাই করে বাংলাদেশে প্রয়োগ করলে তা দেশের কৃষির উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে।

মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) স্পেনের বাংলাদেশ দূতাবাসের কমার্শিয়াল উইং ও স্পেন বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি ঢাকার যৌথ উদ্যোগে এবং স্পেনের আলমেরিয়া চেম্বার অব কমার্সের সহযোগিতায় ‘ইন্ট্রোডাকশন টু আলমেরিয়া এগ্রো ইনোভেশন’ শিরোনামে আয়োজিত সেমিনারে এসব কথা বলেন বক্তারা।

স্পেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ সারোয়ার মাহমুদ, বাংলাদেশে নিযুক্ত স্পেনের রাষ্ট্রদূত ফ্রান্সিসকো বেনিতেজ সালাসসহ বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট, কৃষি মন্ত্রণালয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, বেসরকারি খাতের এগ্রো কোম্পানিগুলোর উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিরা এতে বক্তব্য দেন।

স্পেন বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি ও সেমিনারের মডারেটর নুরিয়া লোপেজ সূচনা বক্তব্যে বলেন, ৫০-৬০ বছর আগে আলমেরিয়া একটি অনুর্বর জায়গা ছিল, সেখানকার অধিবাসীরাও ছিল স্পেনের মধ্যে সবচেয়ে দরিদ্র। বর্তমানে কৃষি বিপ্লবের মাধ্যমে আলমেরিয়া স্পেনের অর্থনৈতিকভাবে উন্নত স্থানগুলোর একটি।

এসময় আলমেরিয়ার চেম্বার অব কমার্সের ডিরেক্টর জেনারেল ভিক্টর ক্রুজ মেদিনা ও ইনমা খুরাদো আলমেরিয়া এগ্রিকালচারাল মডেলের মৌলিক বিষয় তুলে ধরে একটি পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপনা করেন।

arg

সেমিনারে স্পেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ সারোয়ার মাহমুদ বাংলাদেশের কৃষিখাতের সম্ভাবনা ও চ্যালেঞ্জ সম্পর্কে আলোকপাত করেন ও এ খাতে প্রযুক্তির প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, আলমেরিয়ার কৃষি মডেল বাংলাদেশে প্রয়োগ ও এর সম্ভাব্যতা পরীক্ষার জন্য বাংলাদেশ থেকে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গের সফরের আবশ্যকতা রয়েছে।

বাংলাদেশে নিযুক্ত স্পেনের রাষ্ট্রদূত ফ্রান্সিসকো বেনিতেজ সালাস বলেন, আলমেরিয়া এক সময় স্পেনের স্বল্পোন্নত অঞ্চলগুলোর একটি ছিল এবং এখন অনেক ইউরোপিয়ান দেশের সবজির জোগান দেওয়া হচ্ছে এই আলমেরিয়া থেকে। কৃষিক্ষেত্রে ইতিবাচক পরিবর্তনের জন্য বাংলাদেশের নীতিনির্ধারক, স্টেকহোল্ডার ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানগুলোকে উৎসাহিত করতে স্পেন সব সময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে বলে তিনি আশা করেন।

কৃষি উন্নয়নে বাংলাদেশ সরকারের গৃহীত গুরুত্বপূর্ণ নীতিমালা উল্লেখ করে স্পেনে বাংলাদেশ দূতাবাসের কমার্শিয়াল কাউন্সেলর রেদোয়ান আহমেদ বলেন, সরকার বর্তমানে কৃষি বাণিজ্যিকীকরণের দিকে জোর দিচ্ছে, যেখানে আলমেরিয়ার কৃষি মডেল বাংলাদেশে কিছু পরিবর্তনসহ অভিযোজিত হতে পারে।

বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. শেখ মোহাম্মদ বখতিয়ার ও বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের ড. নাজিম উদ্দিন এই ভার্চুয়াল সেমিনার আয়োজনের জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, জৈব নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা ব্যবহার করে নিরাপদ কৃষি উৎপাদন ও জমির উৎপাদন বাড়ানোই আলমেরিয়ার মডেলের বৈশিষ্ট্য, যা বাংলাদেশ সরকারের কৃষিনীতি অগ্রাধিকারগুলোর সঙ্গে সংযুক্ত। তারা এ ধরনের প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের পর প্রয়োগের ব্যাপারে একমত পোষণ করেন।

বাংলাদেশ খাদ্য ও সবজি রপ্তানিকারক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন, এফবিসিসিআই প্রতিনিধি নাদিম এবং ইফাদ, প্যারাগন, প্যারামাউন্ট, ডেকো, সিডিএল, গোল্ডেন হারভেস্ট, প্রাণ-এগ্রো, এসিআই কৃষি কোম্পানিগুলোর চেয়ারম্যান, সিইও ও এমডিরা সেমিনারে অংশ নেন।

এআরএ/এমএস

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]