গৌরীপ্রসন্ন মজুমদারের বসতবাড়ি সংরক্ষণের দাবি

তোফাজ্জল লিটন
তোফাজ্জল লিটন তোফাজ্জল লিটন , যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি নিউইয়র্ক
প্রকাশিত: ১১:০৮ এএম, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১

বাংলা আধুনিক ও চলচ্চিত্র সংগীতের বিশিষ্ট গীতিকার ও সুরকার গৌরীপ্রসন্ন মজুমদারের জন্মভিটা সংরক্ষণের দাবি জানানো হয়েছে নিউইয়র্কে। বরেণ্য এ গীতিকারের জন্মদিন উপলক্ষে স্থানীয় সময় গত ৬ ডিসেম্বর জ্যাকসন হাইটসের নবান্ন রেস্টুরেন্টে এক জন্মোৎসব অনুষ্ঠানে এ দাবি জানায় গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার স্মৃতি সংসদ, নিউইয়র্ক।

আয়োজকরা জানান, বর্তমানে গৌরীপ্রসন্ন মজুমদারের পাবনার জন্মভিটাটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। এটি তার নামে নামকরণ করার দাবিও জানানো হয়।

গৌরীপ্রসন্ন মজুমদারের গান ও তার সম্পর্কিত স্মৃতিচারণ এবং কথামালা দিয়ে সাজানো হয়েছিল অনুষ্ঠানটি। সঙ্গে ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধকালীন কীভাবে পরিচয় ও গান নিয়ে কাজ করেছিলেন এর স্মৃতিচারণ করেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কণ্ঠযোদ্ধা রথীন্দ্রনাথ রায়। তিনি একটি সঙ্গীতও পরিবেশন করেন। এছাড়া স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী শহীদ হাসান গৌরীপ্রসন্ন মজুমদারের লেখা কয়েকটি গান পরিবেশন করেন।

অনুষ্ঠানে আরও সঙ্গীত পরিবেশন করেন মোত্তালিব বিশ্বাস, চন্দন চৌধুরী, শাহানা ভট্টাচার্য, শাহ মাহবুব ও মরিয়ম মারিয়া। অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন স্বাধীন মজুমদার। নিউইয়র্কে বাংলাদেশি কমিউনিটির অন্তত ৭০ জন সংস্কৃতিমনা ব্যক্তিত্ব অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আয়োজক সংগঠনের অন্যতম উদ্যোক্তা গোপাল স্যানাল। এছাড়া শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সংগঠনের আহ্বায়ক মুহাম্মদ ফজলুর রহমান, প্রবীণ সাংবাদিক মনজুর আহমদ, কণ্ঠশিল্পী মোত্তালিব বিশ্বাস, অভিনেত্রী রেখা আহমদ, সংস্কৃতিকর্মী মিথুন আহমেদ ও কমিউনিটি অ্যাক্টভিস্ট শুভ রায়। অনুষ্ঠান আয়োজকদের ধন্যবাদ জানিয়ে বক্তব্য রাখেন শাহ গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা ও বাংলা চ্যানেল-এর সিইও শাহ্ জে. চৌধুরী।

গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার ১৯২৫ সালে ৫ ডিসেম্বর পাবনার ফরিদপুর উপজেলার গোপালনগর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৮৬ সালের ২০ আগস্ট কলকাতায় জীবনাবসান। তার লেখা- ‘কফি হাউসের সেই আড্ডাটা আজ আর নেই’ গানটি ২০০৪ সালে বিবিসির জরিপে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ ২০টি বাংলা গানের মধ্যে জায়গা করে নিয়েছিল।

মানুষের মুখে মুখে তার লেখা আরও গানের মধ্যে আছে, ‘শোন একটি মজিবরের কণ্ঠ থেকে লক্ষ মজিবরের কণ্ঠে সুরের ধ্বনি প্রতিধ্বনি/ আকাশে-বাতাসে ওঠে রণি/বাংলাদেশ আমার বাংলাদেশ’; ‘মাগো, ভাবনা কেন/ আমরা তোমার শান্তিপ্রিয় শান্ত ছেলে’; ‘বাঁশি শুনে আর কাজ নাই সে যে ডাকাতিয়া বাঁশি’; ‘ও নদীরে একটি কথা শুধাই শুধু তোমারে’; ‘এই সুন্দর স্বর্ণালী সন্ধ্যায় এ কী বন্ধনে জড়ালে গো বন্ধু’; ‘এই মেঘলা দিনে একলা ঘরে থাকে না তো মন’; ‘কেন দূরে থাকো শুধু আড়ালে রাখো’; ‘কে তুমি, কে তুমি আমায় ডাকো’; ‘আমার স্বপ্নে দেখা রাজকন্যা থাকে’; ‘প্রেম একবার এসেছিল নীরবে’; ‘এই পথ যদি না শেষ হয়, তবে কেমন হতো তুমি বলো তো’।

এমকেআর/এমকেআর/এমএস

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]