সুখবর পেলেন মালদ্বীপ প্রবাসীরা

মোহাম্মদ মাহামুদুল
মোহাম্মদ মাহামুদুল মোহাম্মদ মাহামুদুল
প্রকাশিত: ০৪:৩২ পিএম, ২৮ মে ২০২২
মালদ্বীপে বাংলাদেশ হাইকমিশন

পুলিশ ভেরিফিকেশন ছাড়াই পাসপোর্ট জমা নিচ্ছে মালদ্বীপে বাংলাদেশ হাইকমিশন। এর আগে ভেরিফিকেশনের জন্য হাজার হাজার প্রবাসী পাসপোর্ট ও ভিসা সেবা নিতে পারেননি।

পুলিশ ভেরিফিকেশন ছাড়া সহজে কীভাবে পাসপোর্ট বানানো যায়- এ বিষয়ে মালদ্বীপে অবস্থিত বাংলাদেশ হাইকমিশনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন বহু প্রবাসী বাংলাদেশি।

এছাড়া সম্প্রতি একটি পত্রিকায় ‘মালদ্বীপে পুলিশ ভেরিফিকেশন ছাড়া মিলছে না পাসপোর্ট’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পর বৃহস্পতিবার (২৬ মে) থেকে মালদ্বীপে বাংলাদেশ হাইকমিশন পুলিশ ভেরিফিকেশন ছাড়াই পাসপোর্ট জমা নিচ্ছে।

প্রায় ৫০ হাজার বাংলাদেশি বৈধ হওয়ার সুযোগ পাবেন। সুযোগটি নেওয়ার জন্য অবৈধ বাংলাদেশিদের আহ্বান জানিয়েছে মালের বাংলাদেশ হাইকমিশন। শনিবার দূতাবাসের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, মালদ্বীপে বসবাসরত অবৈধ বাংলাদেশি নাগরিকদের জানানো যাচ্ছে, ইকোনমিক ডেভেলপমেন্ট মিনিস্ট্রির আওতায় বৈধকরণ প্রক্রিয়া বর্তমানে চালু রয়েছে।

যাদের বৈধ ভিসা ও ওয়ার্ক পারমিট নেই তাদের দ্রুত ভিসা/ওয়ার্ক পারমিট সংগ্রহ করে মালদ্বীপে বৈধভাবে কাজ করার জন্য বলা হয়েছে।

বৈধকরণ প্রক্রিয়ার সুযোগে যদি কেউ বৈধ ভিসা বা ওয়ার্ক পারমিট সংগ্রহ না করেন, তবে তার বিরুদ্ধে মালদ্বীপের আইন অনুযায়ী কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানা গেছে।

দূতাবাস মালদ্বীপ সরকারের শাস্তি এড়াতে অবৈধ বাংলাদেশিদের জরুরি ভিত্তিতে বৈধকরণ প্রক্রিয়ায় ভিসা ও ওয়ার্ক পারমিট সংগ্রহ করার জন্য অনুরোধ করেছে।

পাসপোর্ট ও ভিসা সেবা পেতে যেসব কাগজাদি প্রয়োজন

পাসপোর্টের পুরোনো ফটোকপি, জন্ম নিবন্ধনের ফটোকপি, এনআই আইডির ফটোকপি, একটি পাসপোর্ট সাইজের ছবি, পাসপোর্ট ফি বাবদ ১১০ মার্কিন ডলার এবং বাংলাদেশে পরিবারের যে মোবাইল নম্বরটি চালু আছে সেই নম্বরটা নিয়ে সরাসরি হাইকমিশনার অফিসে গিয়ে জামা দিতে হবে।

বৈধকরণের জন্য যে শ্রমিক যেখানে কাজ করছেন সে মালিককে ইকোনমিক ডেভেলপমেন্ট মিনিস্ট্রিতে আবেদন করতে হবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়।

এমআরএম/জেআইএম

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]