নিউইয়র্কে বাংলাদেশ বিষয়ক জাতিসংঘ সাইডলাইন কনফারেন্স

প্রবাস ডেস্ক
প্রবাস ডেস্ক প্রবাস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:২৬ এএম, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২
নিউইয়র্কে বাংলাদেশ বিষয়ক জাতিসংঘ সাইডলাইন কনফারেন্স

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে বাংলাদেশ বিষয়ক ৭৭তম জাতিসংঘ সাইডলাইন কনফারেন্স হয়েছে। এনআরবি, পিস কিপিং ও রোহিঙ্গাদের আশ্রয়দান বিশ্বব্যাপী দেশের ভাবমূর্তি উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে বলে অভিমত ব্যক্ত করেন কনফারেন্সের বক্তারা।

গত শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) এনআরবি সেন্টারের উদ্যোগে আয়োজিত এ কনফারেন্সে নিরাপত্তা সহায়তা দেয় নিউইয়র্ক পুলিশ বিভাগ। তরুণ ব্যবসায়ী শেখ ফরহাদের তত্ত্বাবধানে কনফারেন্সে সার্বিক সহায়তা দেয় ম্যানহাটন সেন্টারের ওয়াসমির চৌধুরী ও হান্টার কলেজের আহনাফ আলভী রাতিলা।

এ সময় বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতির বাণী পাঠ করে শোনান বক্তা রোম্মান। প্রধানমন্ত্রীর বাণী উপস্থাপন করেন ব্যাংক অব আমেরিকার ভাইস প্রেসিডেন্ট আলিফ লায়লা নাবিলা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন বলেন, বাংলাদেশ শান্তিপ্রিয় দেশ ও আলোচনার মাধ্যমে সব সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করে থাকে। এনআরবি, শান্তিরক্ষী মিশনে বাংলাদেশের অবদান ও রোহিঙ্গাদের বিষয়টি বিশ্বব্যাপী আমাদের দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে।

নিউইয়র্কে বাংলাদেশ বিষয়ক জাতিসংঘ সাইডলাইন কনফারেন্স

তিনি বলেন, প্রবাসীদের অবদানে বাংলাদেশ আজ সমৃদ্ধ। নিউইয়র্কে বিমানসেবা সম্প্রসারণে তিনি প্রবাসীদের সহায়তা কামনা করেন। তাছাড়া তিনি দেশের ভাবমূর্তি উন্নয়নে সেন্টার ফর এনআরবিকে ধন্যবাদ জানিয়ে তাদের কার্যক্রম অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান।

জাতিসংঘে আমেরিকার শান্তিবিষয়ক দূত ড. সীমা কারাতনায়া তার বক্তব্যে বাংলাদেশের জনগণের পরিশ্রম ও সফলতার প্রশংসা করেন।

তিনি বলেন, জাতিসংঘের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক সম্প্রসারণে তার দপ্তর কাজ করছে। বাংলাদেশের ব্যক্তিখাতের উদ্যম ও সফলতা অন্যান্য দেশের জন্য ঈর্ষণীয়।

ড. সীমা কারাতনায়া সেন্টার ফর এনআরবির সঙ্গে অব্যাহতভাবে কাজ করার আগ্রহ ব্যক্ত করেন।

পুলিশ কর্মকর্তা মাক্সিমো বলেন, পুলিশ বিভাগের সঙ্গে এনআরবির দীর্ঘদিনের সম্পর্ক রয়েছে। এনআরবির জন্য আমাদের সহায়তা অব্যাহত থাকবে।

নিউইয়র্কে বাংলাদেশ বিষয়ক জাতিসংঘ সাইডলাইন কনফারেন্স

সম্মেলনে বাংলাদেশের জনগণের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের ভ্যাকসিন সংগ্রহ ও সার্বিক কার্যক্রমে অবদান রাখায় আমেরিকান প্রবাসী ও প্রাক্তন জাতিসংঘ কর্মকর্তা মাহমুদ-উশ-শামশ্ চৌধুরী বাপ্পী ও হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. মাসুদুল হাসানকে সম্মাননা দেওয়া হয়।

এ সম্মাননা দেওয়ার বিষয়েটি আগেই এনআরবি সেন্টারের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে লিখিতভাবে জানানো হয়।

এম এস সেকিল চৌধুরীর সভাপতিত্বে গুরুত্বপূর্ণ এ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এম এ মোমেন। বিশে অতিথি ছিলেন- জাতিসংঘে নিয়োজিত আমেরিকার শান্তিবিষয়ক দূত ড. সীমা কারাতনায়া, নিউইয়র্ক পুলিশের কমিউনিটি বিষয়ক প্রধান মাক্সিমো টলেনটিনো, নিউইয়র্ক শহরের আন্তর্জাতিক বিষয়ক ডেপুটি কমিশনার দিলীপ চৌহান।

জাতিসংঘ সদর দপ্তরে মুসলিম প্রাথর্না বিষয়ক নেতা ও জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য ড. শামসী আলী, নিউইয়র্কে নিযুক্ত বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল ড. মনিরুল ইসলাম, ইউএস বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের প্রেসিডেন্ট লিটন আহমেদ, বাংলাদেশ আমেরিকা বিজনেস অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট ফখরুল ইসলাম, মূলধারার রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব পল খান, আমেরিকান ব্যবসায়ী বিল লায়ন, তরুণ আমেরিকান ব্যাংকার ওয়াসেফ চৌধুরী ও তরুন প্রতিনিধি বাফলোর শাহি চৌধুরী কনফারেন্সে বিভিন্ন বিষয়ে বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের প্রতিনিধি, ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ, পুলিশের কর্মকর্তা বৃন্দ, আমেরিকান বাংলাদেশ পুলিশ সদস্য ও বিভিন্ন দেশ থেকে আগত প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এসএএইচ/জেআইএম

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]