চীনে ‘এক্সিলেন্ট ক্যাম্পার অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী

প্রবাস ডেস্ক
প্রবাস ডেস্ক প্রবাস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:১২ পিএম, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২
চিয়াংশি প্রভিন্সিয়াল ফরেন অ্যাফেয়ার্স অফিস এর পরিচালক ঝাও হুই এর সাথে মোহাম্মদ ছাইয়েদুল ইসলাম

নর্থইস্ট এশিয়ান ইয়ুথ ক্যাম্প অন সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্টে অবদান রাখায় ‘এক্সিলেন্ট ক্যাম্পার অ্যাওয়ার্ড’ পেয়েছেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী মোহাম্মদ ছাইয়েদুল ইসলাম। ইয়ুথ ক্যাম্পের প্রতিপাদ্য ছিল, ‘সাংস্কৃতিক দূত এবং শক্তি থেকে তারুণ্য’।

চীনের চিয়াংশি প্রদেশে ২৪ থেকে ২৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তিন দিনব্যাপী ইয়ুথ ক্যাম্পটির সমাপনী অনুষ্ঠানে তাকে এই পুরস্কার দেওয়া হয়। এক্সিলেন্ট ক্যাম্পার অ্যাওয়ার্ডের জন্য তাকে সার্টিফিকেট ও বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৫০ হাজার সমপরিমাণ চাইনিজ মুদ্রা বোনাস মানি হিসেবে দেওয়া হয়।

চায়না সং ছিং লিং ফাউন্ডেশন এবং এসকে গ্রুপের যৌথ স্পন্সরে, ফরেন অ্যাফেয়ার্স অফিস অব চিয়াংশি প্রভিন্সিয়াল পিপলস গভর্নমেন্ট এবং চিয়াংশি প্রভিন্সিয়াল পিপলস অ্যাসোসিয়েশন ফর ফ্রেন্ডশিপ উইথ ফরেন কান্ট্রিস যৌথভাবে ইয়ুথ ক্যাম্পটি চিয়াংশি প্রদেশের রাজধানী নানছাং শহরে আয়োজন করে।

চীনে ‘এক্সিলেন্ট ক্যাম্পার অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী

সমাপনী অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি বক্তব্য দেন চায়না সং ছিং লিং ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান লি বিন ও এসকে গ্রুপের চেয়ারম্যান কুই তাইইউয়ান। ইয়ুথ ক্যাম্পে আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি হয়ে বক্তব্য দেন ছাইয়েদুল ইসলাম।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- চিয়াংশি প্রভিন্সিয়াল ফরেন অ্যাফেয়ার্স অফিসের পরিচালক ও চিয়াংশি প্রভিন্সিয়াল পিপলস অ্যাসোসিয়েশন ফর ফ্রেন্ডশিপ উইথ ফরেন কান্ট্রিসের সভাপতি ঝাও হুই, চায়না সং ছিং লিং ফাউন্ডেশনের আন্তর্জাতিক বিনিময় ও সহযোগিতা বিভাগের ডেপুটি ডিরেক্টর ফ্যাং শিনওয়েন, এসকে গ্রুপের ভাইস প্রেসিডেন্ট থিয়ান ফুশিসহ অন্যান্যরা।

চীনে ‘এক্সিলেন্ট ক্যাম্পার অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী

চায়না সং ছিং লিং ফাউন্ডেশন এর আন্তর্জাতিক বিনিময় ও সহযোগিতা বিভাগের ডেপুটি ডিরেক্টর ফ্যাং শিনওয়েন এর কাছ থেকে এক্সিলেন্ট ক্যাম্পার অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করছেন মোহাম্মদ ছাইয়েদুল ইসলাম

ছাইয়েদুল ইসলাম বর্তমানে চীন সরকারে স্কলারশিপে চিয়াংশি ইউনিভার্সিটি অব ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইকোনেমিক্স বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি প্রোগ্রামে ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড মেজরে অধ্যয়ন করছেন। উচ্চতর শিক্ষার জন্য ২০১৮ সালে চীন সরকারে স্কলারশিপে একই বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস্টার্স প্রোগ্রামে ইন্টান্যাশনাল বিজনেস মেজরে ভর্তি হন তিনি।

ছাইয়েদুল ইসলামের বাড়ি নরসিংদীর মনোহরদী উপজেলার চন্দনবাড়ি ইউনিয়নের নলুয়া গ্রামে। বাবার নাম মোহাম্মদ লুৎফর রহমান বারিক। দুই ভাই বোনের মধ্যে তিনিই বড়।

চীনে ‘এক্সিলেন্ট ক্যাম্পার অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী

পড়াশোনার পাশাপাশি চীনে তিনি একজন গণমাধ্যমকর্মী হিসেবে এবং বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডে যুক্ত। এর আগে তার ভালো কাজ চীনের প্রভাবশালী সরকারি-বেসরকারি গণমাধ্যমে বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছে।

বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল, রাশিয়া, ইয়েমেন, পাকিস্তান, কাজাখস্তান, জাম্বিয়া, পাপুয়া নিউগিনি থেকে ৪০ জনের বেশি শিক্ষার্থী এই ইয়ুথ ক্যাম্পে অংশ নেয়। সমাপনী অনুষ্ঠানে ইয়ুথ ক্যাম্পে অংশ নেওয়াদের মধ্যে সনদ বিতরণ করা হয়।

এমআরএম/জেআইএম

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]