সৌদিতে বাংলাদেশি শিক্ষকদের মিলনমেলা

প্রবাস ডেস্ক
প্রবাস ডেস্ক প্রবাস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:৪৮ পিএম, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২

সাগর চৌধুরী, সৌদি আরব প্রতিনিধি

সৌদি আরবের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত বাংলাদেশি শিক্ষকদের মিলনমেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায়, আল-কাছিম অঞ্চলের বুরাইদা শহরের একটি রেস্তোরাঁয় এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

আল-কাছিম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের আয়োজনে এক-পঞ্চমাংশের বেশি প্রফেসর ও তাদের পরিবারের সদস্যরা প্রথম এ সম্মেলনে উপস্থিত হন। গবেষণাসহ ও বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিতরা এ সময় অংশ নেন।

পরিচয় পর্ব, কেক কাটা, আড্ডা, খেলাধুলা এবং পরবর্তীতে করণীয় বিষয়ে দীর্ঘ আলোচনা শেষে নৈশভোজের মধ্য দিয়ে সম্মেলন শেষ হয়। নিজেদের মধ্যে গবেষণা বিনিময় ও সহযোগিতা বৃদ্ধি, সৌদির বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে বাংলাদেশি প্রফেসর ও ছাত্র-ছাত্রীদের অংশগ্রহণ বৃদ্ধি, দেশের বাইরে সর্ববৃহৎ বাংলাদেশি জনগোষ্ঠীর (সৌদি প্রবাসীদের) কল্যাণে কাজ করার লক্ষ্যে অঙ্গীকারবদ্ধ হন প্রফেসররা।

প্রতি ৩ মাস বা ৬ মাস পরপর আলাদা আলাদা বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়োজনে এখন থেকে এ ধরনের নিয়মিত সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে বলে আয়োজকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, আল-গাছিম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ড. মোহাম্মদ মাহদি হাসান, ড. মুনির উদ্দিন আহমেদ, ড. মো. শফিকুজ্জামান, ড. মোহাম্মদ আলী মোর্তুজা, ড. মোহসিনা হক, প্রভাষক বোরহান উদ্দিন চৌধুরী. সোলায়মান আল রাজি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডা. নাজমুস সাকিব, ডা. জুলিয়ান সাকিব, ডা. কাজী মোহাম্মদ তারেক এবং ডা. তুরানী তালুকদার. কিং সউদ বিশ্ববিদ্যালয়, রিয়াদ থেকে প্রফেসর ড. রেজাউল করিম মিলন, প্রফেসর ড. গোলাম মোহাম্মদ, ড. তাহসিন, ড. আব্দুল হাদি, আব্দুল্লাহ কাফি ও ড. ফাতেমা, কিং ফয়সাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. মো. আল আমিন ভূঁইয়া।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ড. সৈয়দ রুশদ সৈকত এবং ইমাম আব্দুর রহমান বিন ফয়সাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. সেলিম আশরাফ। জেদ্দার কিং আব্দুল আজিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. মুজিবুর রহমান, ড. মাজহারুল ইসলাম ও কিং ফাহাদ ইউনিভার্সিটি অব পেট্রোলিয়াম ও মিনারেলের ড.মোহাম্মদ শফিউল্লাহ, কিং ফয়সাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. মোহাম্মদ মুনিরুল ইসলাম ছাড়াও দাম্মাম বিশ্ববিদ্যালয়, তাইফ বিশ্ববিদ্যালয়, তাবুক বিশ্ববিদ্যালয়, মদিনা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসরগন ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হয়ে মতবিনিময় করেন।

এমআরএম/এমএস

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]