কলকাতায় বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশনের বর্ষবরণ

মনিকা সাহা
মনিকা সাহা , কলকাতা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৪:৫৬ এএম, ১৫ এপ্রিল ২০১৮ | আপডেট: ০৪:৫৮ এএম, ১৫ এপ্রিল ২০১৮
কলকাতায় বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশনের বর্ষবরণ

বরাবরের মতোই এবারও কলকাতায় বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশন বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বাংলা নতুন বছরকে বরণ করেছে। বর্ষবরণ উপলক্ষে শনিবার উপ-হাইকমিশন কমিশন প্রাঙ্গণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানের আগে কলকাতার রাস্তায় ব্যানার, ফেস্টুন, মুখোশ নিয়ে মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হয়। উপ-হাইকমিশনের কর্মকর্তারা ছাড়াও এই শোভাযাত্রায় অংশ নেন ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে কলকাতার সাধারণ মানুষ।

যদিও বাংলাদেশে নববর্ষ পালনের পরদিন ভারতীয় বাঙালিরা বাংলা নববর্ষ পালন করেন। তবে ভারতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস ও উপ দূতাবাসগুলোতে বর্ষবরণ উদযাপিত হয় বাংলাদেশের নববর্ষ পালনের দিনেই।

কলকাতা বাংলাদেশ উপ হাইকমিশন শনিবার মঙ্গল শোভাযাত্রা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান-সহ নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালন করল বর্ষবরণ অনুষ্ঠান। কলকাতার পার্কসার্কাস সেভেন পয়েন্টের বাংলাদেশ তথ্য কেন্দ্র থেকে স্থানীয় সময় বিকেল সাড়ে ৪টায় এই শোভাযাত্রা শুরু হয়ে উপ দূতাবাস প্রাঙ্গণে এসে এটি শেষ হয়।

এই মঙ্গল শোভাযাত্রায় অংশ নেন, উপ-হাইকমিশনার তৌফিক হাসান, দূতাবাসের কর্মকর্তা বিএম জামাল হোসেন, মোফাকখারুল ইকবাল, মনছুর আহমেদ বিপ্লব, শেখ সাফিয়ান প্রমুখ। এছাড়া দূতাবাসের অন্যান্য কর্মীরাও এই শোভাযাত্রায় অংশ নেন। তারা সম্মিলিতভাবে কণ্ঠ মেলান কবিগুরু রবীন্দ্রনাথের ‘এসো হে বৈশাখ, এসো এসো’ গানটিতে।

বাংলা বর্ষবরণ উপলক্ষে উপ দূতাবাস প্রাঙ্গণ ছিল সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত। সেখানে ছিল হাওয়াই মিঠাইয়ের স্টল, বাঙালির ঐতিহ্যের অন্যতম নিদর্শন নাগরদোলা, বাইস্কোপ ছাড়াও আরও অনেক কিছু।

সন্ধ্যায় বাংলাদেশি ছাত্রছাত্রীদের অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন তৌফিক হাসান। বাংলাদেশের প্রখ্যাত বাচিক শিল্পী শিমূল মোস্তফার আবৃত্তি সন্ধ্যার পরিবেশকে আরও প্রাণবন্ত করে তোলে।

এমবিআর/

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - jagofeature@gmail.com