ভারতের আর্ট গ্যালারিতে শিল্পুর একক চিত্র প্রদর্শনী

প্রবাস ডেস্ক প্রবাস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:৫১ এএম, ০৮ নভেম্বর ২০১৯

গাইবান্ধার কৃতি সন্তান দেশের বরেণ্য চিত্রশিল্পী শাহ মাইনুল ইসলাম শিল্পুর ‘সতত স্বদেশ: প্রেমে ও দ্রোহে’ শীর্ষক ৫ম একক চিত্র প্রদর্শনী ১৩ নভেম্বর থেকে ১৮ নভেম্বর পশ্চিমবঙ্গের শিলিগুড়ির রামকিনকর আর্ট গ্যালারিতে অনুষ্ঠিত হবে। এতে শিল্পীর বিষয় ভিত্তিক ৩০টি চিত্রকর্ম প্রদর্শিত হবে।

এই চিত্র প্রদর্শনী দুপুর ২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলবে। প্রসঙ্গ, ১৩ নভেম্বর চিত্র প্রদর্শনীর আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করবেন পদ্মশ্রী খেতাবপ্রাপ্ত ভারতের বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব করিমুল হক। এ ছাড়া অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী দীপংকর দত্ত, চিত্র সমালোচক রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের অধ্যাপক টিএমএম নুরুল মোদাচ্ছের চৌধুরী প্রমুখ।

ইতোপূর্বে ২০১৮ সালের মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধা শিল্পী শাহ মাইনুল ইসলাম শিল্পুর ‘ত্রয়াঙ্গিক বিন্যাস’ শীর্ষক ৪র্থ একক চিত্রপ্রদর্শনী গাইবান্ধা পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে শুরু হয়। জাতীয় সংসদের হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনি এমপি এই প্রদর্শনীর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

শিল্পুর মোট ৩৫টি ছবি প্রদর্শিত হয়। শিল্পী কালি ও কলম, জল রং এবং এ্যাক্রিলিক- এই তিন মাধ্যমে কাজ করেছেন। অধিকাংশ ছবির বিষয় ছিল একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ ৭১’র মুক্তিযুদ্ধ। তদুপরি একই সময়ে শিল্পীর মোট ৩টি শিল্পকর্ম প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে গত ২ থেকে ১৪ মার্চ ঢাকার ঢাকার অলিয়াঁস ফ্রঁসেজে লা গ্যালারিতে একটি চিত্র প্রদর্শনী এবং ১২ থেকে ২২ মার্চ পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জয়নুল গ্যালারিতে অপর প্রদর্শনীটি অনুষ্ঠিত হয়।

তিনটি প্রদর্শনীর মূল প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল ৭১’র মুক্তিযুদ্ধ। মাধ্যম ছিল কালি ও কলম। এই খ্যাতিমান এ শিল্পী ত্রয়াঙ্গিক বিন্যাস তিনটি মাধ্যমের সমন্বয় ও বিষয় নির্বাচনেও ভিন্নতর স্বাদ প্রদানের চেষ্টা করেন।

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনি এমপি শিল্পীর সহধর্মিণী এবং তার এক ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে তার সংসার। ছাত্র জীবন থেকেই শাহ মাইনুল ইসলাম শিল্পু ছবি আঁকার প্রতি আকৃষ্ট হন এবং সাহিত্য চর্চাতেও তিনি আগ্রহী ছিলেন।

জাহিদ খন্দকার/এমআরএম/এমকেএইচ

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]