আমরা বাংলাদেশকে অনেক ভালোবাসি : পর্তুগালের রাষ্ট্রপতি

মো. রাসেল আহম্মেদ
মো. রাসেল আহম্মেদ মো. রাসেল আহম্মেদ
প্রকাশিত: ১১:২৫ পিএম, ১৯ নভেম্বর ২০১৯

লিসবনে দু’দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক কূটনৈতিক বাজারে বাংলাদেশ দূতাবাস লিসবন, পর্তুগাল অংশগ্রহণ করেছে। মেলায় দূতাবাসের স্টলে দেশীয় ঐতিহ্য ও হস্তশিল্পকে বিশেষভাবে তুলে ধরে হয়। শাড়ি, গামছা, শিকাসহ দেশীয় ঐতিহ্যবাহী উপকরণের মাধ্যমে গ্রামীণ আদলে নির্মিত বাংলাদেশ প্যাভিলিয়ন যা বাজারে আগত দর্শনার্থীদের প্রশংসা কুড়িয়েছে।

এ সময় পর্তুগালের রাষ্ট্রপতি মারসেলো রেবেলো দ্য সুজা বাংলাদেশ প্যাভিলিয়ন ঘুরে ঘুরে দেখেন। দূতাবাসের পক্ষ থেকে পর্তুগালের রাষ্ট্রপতিকে একটি রূপার তৈরি বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী নৌকা উপহার দেয়া হয়। তিনি বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নে এসে আমরা বাংলাদেশকে খুব ভালোবাসি বলে মন্তব্য করেন।

jagonews24

বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নে মসলিন, জামদানি এবং উপজাতি তাত শিল্পকে বিশেষগুরুত্ব সহকারে তুলে ধরা হয়েছে। এ উপলক্ষে দূতাবাসে আগত দর্শনার্থীর মধ্যে মসলিন, জামদানি এবং উপজাতি তাঁত শিল্পকে পরিচিত করার জন্য পর্তুগিজ ও ইংরেজি ভাষায় প্যাম্পলেট প্রকাশ করা হয়।

এ ছাড়াও বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নে দেশীয় ঐতিহ্যবাহী পোশাক, মুক্তা ও অন্যান্য গহনা, মহিলাদের ব্যাগ, মসলিনের টেবিল ক্লথ, হাতের সেলাইয়ের কাজসহ অন্যান্য হস্তশিল্পজাত পণ্য এবং বাংলাদেশের প্যাকেটজাত খাদ্যদ্রব্য প্রদর্শন করা হয়। বাজারে আগত ছয় হাজারের অধিক পর্তুগিজ ও অন্যান্য দেশের নাগরিক বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নে আসেন এবং ঐতিহ্যবাহী বাংলাদেশি পণ্য দেখেন।

jagonews24

প্রবাসী বাংলাদেশি শাস্ত্রীয় সংগীত শিল্পী কে এম মোস্তফা আনোয়ার তানপুরার মূর্ছনায় মেলায় আগত সঙ্গীত প্রেমীদের বিমোহিত করে। এ সময় সেবামূলক কাজে ব্যয়ের জন্য অর্থ সংগ্রহের লক্ষে দূতাবাস হতে খিচুড়ির সাথে মুরগীর কোরমা, ডিম, পিয়াজু, সিংগারা, সমুচার দেড় শতাধিক খাবারের বাক্স প্রদান করা হয়।

এমআরএম

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - jagofeature@gmail.com