বেলজিয়ামে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

ফারুক আহাম্মেদ মোল্লা
ফারুক আহাম্মেদ মোল্লা ফারুক আহাম্মেদ মোল্লা
প্রকাশিত: ০৩:৪৫ এএম, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

বরাবরের মতো এবারও যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করেছে বাংলাদেশ স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন বেলজিয়াম।

ভাষা সৈনিকদের প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালবাসা জানিয়ে ইউরোপের রাজধানী ব্রাসেলসে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করা হয়েছে।

বেলজিয়াম সরকার অনুমোদিত ইউনিভার্সিটি অব ব্রাসেলসের পার্কে শুক্রবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সকালে ভাষা শহীদদের স্মরণে নির্মিত অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। এ সময় বেলজিয়ামে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শাহাদাত হোসেন, দূতাবাসের কর্মকর্তাবৃন্দ, সুধী সমাজ, প্রবাসী বাংলাদেশি এবং বেলজিয়ামের নাগরিকরা উপস্থিত ছিলেন।

jagonews24

বাঙালি জাতির জীবনের এক অবিস্মরণীয় দিন ২১ ফেব্রুয়ারি। পাকিস্তানি দুঃশাসন ও শোষণের শৃঙ্খল ভেঙে বাঙালি জাতিসত্তা বিনির্মাণের প্রথম সোপান। ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শৃঙ্খল থেকে মুক্ত হতে না হতেই পাকিস্তানিরা আমাদের মুখের ভাষা ‘বাংলা’ কেড়ে নিতে চায়। মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ ঘোষণা দিলেন, ‘উর্দুই হবে পাকিস্তানের একমাত্র রাষ্ট্রভাষা’। বিক্ষোভে ফেটে পড়ে পূর্ববাংলার ছাত্র-জনতা। প্রতিবাদের লড়াইয়ে সর্বপ্রথম জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বাংলার ছাত্রসমাজ এই ঘোষণার বিরুদ্ধে বিক্ষোভে ফেটে পড়ে ঢাকার রাজপথে। ‘রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই’ স্লোগানে প্রকম্পিত করে সারা পূর্ববাংলা।

১৯৫২ সালের এই দিনে ঢাকার রাজপথ রঞ্জিত হয় রফিক, শফিক, সালাম, বরকত, জব্বারসহ নাম না জানা অগণিত শহীদের রক্তে। মায়ের ভাষার অধিকার ও রাষ্ট্রভাষা প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম ছিল বীর বাঙালি জাতির লড়াই-সংগ্রাম আর বীরত্বের গৌরবগাথা অধ্যায়। শহীদের রক্তে রঞ্জিত অমর একুশে ফেব্রুয়ারি বাঙালি জাতির আত্মপ্রতিষ্ঠা, আত্মবিকাশ ও আত্মবিশ্লেষণের দিন।

মাতৃভাষার জন্য বাঙালির আত্মদানের এই অনন্য ঘটনা স্বীকৃত হয়েছে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে। ১৯৯৯ সালে ইউনেস্কো একুশে ফেব্রুয়ারিকে ঘোষণা করে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে। বাঙালির সঙ্গে সারাবিশ্বেই দিনটি পালন করা হয়।

এমএসএইচ

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]