আল জাজিরার ওপর ক্ষেপেছে মালয়েশিয়া

আহমাদুল কবির
আহমাদুল কবির আহমাদুল কবির , মালয়েশিয়া প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ১২:১৬ এএম, ০৭ জুলাই ২০২০

‘মালয়েশিয়ার ভাবমূর্তি নষ্টকারী বিদেশি নাগরিকদের দেশ ত্যাগ করতে হবে’ এমন হুংকার দিয়েছেন দেশটির ইমিগ্রেশন পরিচালক দাতুক খায়রুল দাজাইমি দাউদ। সোমবার বিকেলে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি বলেছেন, ‘বিদেশি নাগরিক যারা মালয়েশিয়ার ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত করার লক্ষ্যে ভুল বক্তব্য দিচ্ছেন তাদের বৈধতা বাতিল করা হবে’।

মালয়েশিয়ায় বসবাসরত বৈধ ও অবৈধ অভিবাসীদের প্রতি লকডাউন চলাকালীন দেশটির সরকারের বৈষম্যমূলক আচরণ শিরোনামে সম্প্রতি কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল জাজিরায় প্রচারিত একটি প্রতিবেদনের পর ক্ষেপেছে দেশটির সরকার।

মালয়েশিয়ার ভাবমূর্তি নষ্ট করার লক্ষ্যে আল জাজিরায় যারা বিবৃতি দিয়েছেন সেটি সঠিক প্রমাণিত না হলে তাদের দেশ ত্যাগ করতে হবে বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন ইমিগ্রেশন মহাপরিচালক।

এছাড়া ‘ইমিগ্রেশন বিভাগ সকল বিদেশি বিশেষত দীর্ঘমেয়াদি পাসধারীদের যেমন স্টুডেন্ট পাস, অস্থায়ী কর্মসংস্থান পাস, আবাসিক পাস এবং অন্যদের বিবৃতি দেওয়ার সময় সাবধান হওয়ার জন্য সতর্ক করে দিয়েছেন।

এমন তথ্যভিত্তিহীন দাবি করে আল জাজিরা টেলিভিশনকে মালয়েশিয়া জনগণের কাছে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী দাতুক সেরী ইসমাইল সাবরি ইয়াকুব।

jagonews24

সোমবার (৬ জুলাই) রিকভারি মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার (আরএমসিও) এর একটি সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী এ আহ্বান জানান। আল জাজিরা টেলিভিশনে ৩০ মিনিট থেকে ৫০ মিনিটের একটি ডকুমেন্টারি প্রচারিত হয়েছে এবং এই প্রতিবেদনটিতে দাবি করা হয়েছে মালয়েশিয়ায় বসবাসরত অভিবাসীদের প্রতি লকডাউন চলাকালীন বৈষম্যমূলক আচরণ করা হয়েছে। কর্মহীন ও খাদ্য সংকটে থাকা অভিবাসী শ্রমিকদের মানবাধিকার লঙ্ঘন করে তাদের বসতঘর থেকে গ্রেফতার করে তাদের ডিটেনশন ক্যাম্পে বন্দি রেখে বৈষম্যমূলক আচরণ করেছে এমন কি আটক নারী অভিবাসীদের তাদের ছোট ছোট শিশুদের আলাদা করে রেখেছে এবং তাদের মারধর করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ‘এসব তথ্য উপাত্ত ও অভিযোগগুলো ভিত্তিহীন সত্যতা যাচাই না করেই অনৈতিক কাজ করেছে আল-জাজিরা টেলিভিশন। মালয়েশিয়ার জনগণের কাছে ক্ষমা চাইতে বলা হচ্ছে এবং যে ডকুমেন্টারিটি প্রচারিত হয়েছে সেটা প্রত্যাহার করে নিতে বলা হয়েছে।

jagonews24

তিনি বলেন, ‘প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে শিশুদের তাদের মায়ের কাছ থেকে কেড়ে নিয়ে নিষ্ঠুর আচরণ করা হয়েছে এসব ভিত্তিহীন। বাস্তবতা হলো শিশুদের আলাদা করার পর তাদের মায়েদের কাছেই রাখা হয়েছে’।

ইসমাইল সাবরি আরও বলেন, অবৈধ অভিবাসীদের বিরুদ্ধে অভিবাসন আটক ব্যবস্থাটি ইমিগ্রেশন আইনের ভিত্তিতে করা হয়েছে যা আইনি দলিলবিহীন ব্যক্তিদের গ্রেপ্তারের অনুমতি দেওয়া হয়েছিল এবং এটি অন্যান্য দেশে এই আইন অনুসারেই করা হয়ে থাকে।

এদিকে সোমবার সকালে পোর্ট ক্লাং এ স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের সাথে মতবিনিময়ের সময় মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাতো সেরী হামজা জায়নুদ্দিন জাজিরায় প্রচারিত প্রতিবেদনের বিষয়ে বলেন, ‘আমরা বিদেশি ডকুমেন্টারি নিয়ে মাথা ঘামাই না তারা কী বললো আমাদের যায় আসে না। আমরা এ দেশের জনগণের জন্য কাজ করি তারা সেটা কিভাবে চায় আমরা সেটা গুরুত্ব দেই’।

তিনি বলেন, বিদেশি শ্রমিক আমাদের প্রয়োজন আছে তবে অবৈধ ও অনিবন্ধিত কোনো শ্রমিক নয়। আর দেশটিতে যারা আছেন মালয়েশিয়ানসহ অন্যরা আইন মানছেন কিনা আমরা সেভাবে তাদের পরিচালনা করি এটা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

এমআরএম

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]