জার্মান আ.লীগে অনুপ্রবেশকারীর ঠাঁই হবে না

হাবিবুল্লাহ আল বাহার
হাবিবুল্লাহ আল বাহার হাবিবুল্লাহ আল বাহার
প্রকাশিত: ০২:২২ এএম, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী এবং বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সভা করেছে জার্মান আওয়ামী লীগের হেসেন প্রদেশ শাখা। ফ্রাঙ্কফুর্টে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন হেসেন প্রদেশ শাখা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং জার্মান আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি নূরে হাসনাত শিপন।

সভা পরিচালনা করেন হেসেন শাখা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মোতালেব। সভায় জার্মান আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা, উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য এবং হেসেন শাখার নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

jagonews24

প্রতিবাদ সভায় টেলিকনফারেন্সে বক্তব্য দেন জার্মান আওয়ামী লীগের সভাপতি বশিরুল আলম চৌধুরী সাবু। এছাড়াও প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য দেন জার্মানি আওয়ামী লীগের প্রধান পৃষ্ঠপোষক বীর মুক্তিযোদ্ধা আমিনুর রহমান খসরু, সিনিয়র উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা মহসিন হায়দার মনি, জার্মান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্বাস আলী চৌধুরী।

আরও বক্তব্য দেন সিনিয়র সহ-সভাপতি ইউনুস খান, সিনিয়র সহ-সভাপতি জাহিদুল ইসলাম পুলক, সিনিয়র সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন, সহ-সভাপতি নাসির উদ্দিন, পিন্টু রহমান, হেসেন শাখা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি জাকির হোসেন, জার্মান আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী আসিফ হোসেন দিপ, সাখাওয়াত হোসেন সোহেল, আব্দুল মান্নানসহ আরও অনেকে।

jagonews24

সভায় বক্তারা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের সমালোচনা করেন এবং সামরিক শাসকদের দল থেকে আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী এবং পরবর্তীতে সংগঠনের অভ্যন্তরে কোন্দল সৃষ্টি কারীদেরকে জার্মান আওয়ামী লীগের সমস্ত কার্যক্রম থেকে অবাঞ্চিত ঘোষণা করেন।

এছাড়াও আওয়ামী লীগের নেতারা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের সম্মিলিতভাবে প্রতিহত করার জন্য জার্মানির সকল মুজিব আদর্শের সৈনিকদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানান। তারা বলেন, কর্মীদের দাবির প্রেক্ষিতে জার্মান আওয়ামী লীগে কোনো অনুপ্রবেশকারী এবং হাইব্রিডের স্থান হবে না।

এছাড়াও একই দাবিতে জার্মান আওয়ামী লীগের নর্থ রাইন ভেস্টফালেন প্রদেশ শাখা কমিটির উদ্যোগে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই সভায় জার্মান আওয়ামী লীগের সভাপতি বশিরুল আলম চৌধুরী সাবু, সাধারণ সম্পাদক আব্বাস আলী চৌধুরী, সিনিয়র সহ-সভাপতি জাহিদুল ইসলাম পুলকসহ কেন্দ্রীয় এবং শাখা কমিটির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এমআরএম

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]