করোনাযোদ্ধাদের সম্মান জানালো কানাডা প্রবাসীরা

প্রবাস ডেস্ক প্রবাস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:৫৯ এএম, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

আহসান রাজীব বুলবুল, কানাডা প্রতিনিধি

কানাডার আলবার্টা প্রদেশের ক্যালগেরিতে আজ প্রবাসী বাঙালিদের উদ্যোগে বাংলাদেশ সেন্টারের সামনে করোনাযোদ্ধাদের এক মিনিটের অবিরাম করতালি দিয়ে সম্মান জানানো হয়েছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কানাডা অ্যাসোসিয়েশন অব ক্যালগেরির সভাপতি মো. রশিদ রিপন, সাধারণ সম্পাদক জয়ন্ত বসু, কোষাধক্ষ্য শানিলা মাহমুদ পুনম, ক্যালগেরির ব্যবসায়ী আলম খন্দকার।

আরও উপস্থিত ছিলেন- ব্যবসায়ী ও প্রকৌশলী আবদুল্লা রফিক, প্রকৌশলী মো. কাদির, সিলেট অ্যাসোসিয়েশন অব ক্যালগারির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি রূপক দত্ত, মিতা আলম, ও বাংলাদেশ কানাডা অ্যাসোসিয়েশন অব ক্যালগেরির ইয়ূথ সেক্রেটারি নাদিয়া হাসান।

বাংলাদেশ কানাডা অ্যাসোসিয়েশন অব ক্যালগেরির সভাপতি মো. রশিদ রিপন বলেন, ‘বৈশ্বিক মহামারি করোনাকালীন গত আট মাসে যাদের আমরা হারিয়েছি তাদের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা এবং যারা এখনও কাজ করে চলেছেন তাদেরকে আমরা আন্তরিকভাবে অভিনন্দন জানাই’।

সাধারণ সম্পাদক জয়ন্ত বসু বলেন, ‘জাতির এই সংকটকালীন যারা জীবন বাজি রেখে কাজ করে চলেছেন তাদের প্রতি আমাদের অসীম কৃতজ্ঞতা’।

ব্যবসায়ী আলম খন্দকার বলেন, ‘যারা ইতোমধ্যে আত্মাহুতি দিয়েছেন তাদের প্রতি আমাদের বিনম্র শ্রদ্ধা, শোক-সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাই’।

ব্যবসায়ী ও প্রকৌশলী আবদুল্লা রফিক বলেন, ‘মহামারির কঠিন এক সংকটময় মুহূর্তে আমরা এখন অতিক্রম করছি। এই সময়ে সম্মুখযোদ্ধারা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। তাদের প্রতি আমাদের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা’।

প্রকৌশলী মো. কাদির বলেন, ‘যারা ইতোমধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি। দিন-রাত পরিশ্রম করে সম্মুখ সারিতে থেকে আমাদের যারা সেবা দিয়ে চলেছেন তাদের প্রতি আমাদের বিনম্র শ্রদ্ধা’।

সিলেট অ্যাসোসিয়েশন অব ক্যালগেরির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি রূপক দত্ত বলেন, ‘আজকের এক মিনিটের অবিরাম করতালির মধ্য দিয়ে আমরা সেই সমস্ত সম্মুখযোদ্ধাদের অনুপ্রেরণা ও উৎসাহ দিতে চাই। জাতীয় সংকট ও ক্রান্তিকালে তারা সবসময় আমাদের পাশে থাকবে এটাই আমাদের প্রত্যাশা’।

উল্লেখ্য, প্রবাসী বাঙালিদের উদ্যোগে এই অনুষ্ঠানে সম্মুখসারির যোদ্ধা, সাংবাদিক, ব্যবসায়ী ও রাজনীতিবিদরা এক মিনিটের অবিরাম করতালিতে অংশ নেন।

এমআরএম

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]