লন্ডনে আজীবনের জন্য ‘যৌন অপরাধী’ হিসেবে চিহ্নিত মুহিব উদ্দীন

ফিরোজ আহম্মেদ বিপুল
ফিরোজ আহম্মেদ বিপুল ফিরোজ আহম্মেদ বিপুল
প্রকাশিত: ০৩:৩৮ পিএম, ১৫ জানুয়ারি ২০২১

যুক্তরাজ্যে ধর্ষণের দায়ে মুহিব উদ্দীন (৩১) নামে এক বাংলাদেশি রেস্টুরেন্ট কর্মীকে ৬ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির পোর্টসমাউথ ক্রাউন কোর্ট। তিনি দেশটির পোর্টসমাউথে বসবাস করতেন।

২০২০ সালের ২৯ আগস্ট স্থানীয় সময় রাত দশটার দিকে ক্লেরেডন রোডে ১৯ বছরের এক তরুণীকে ধর্ষণ করেন মুহিব। যুক্তরাজ্যের হ্যাম্পশায়ার পুলিশের ওয়েবসাইট থেকে যানা গেছে, মামলাটি তদন্তের পর ২০২০ সালের নভেম্বর ১০ তারিখ মুহিবকে অভিযুক্ত করা হয়।

২০২১ সালের ১৩ জানুয়ারি পোর্টসমাউথ ক্রাউন কোর্ট তাকে ৬ বছরের কারাদণ্ড দেয়। ধর্ষণের শিকার ওই মেয়ে মুহিব উদ্দীনকে চিনতেন না। মেয়েটি রেস্টুরেন্টের পেছনের গলিতে বসা ছিলেন। মুহিব পেছন থেকে তাকে আক্রমণ করেন। ধস্তাধস্তি করে একপর্যায়ে তাকে সিসিটিভি ক্যামেরার দৃষ্টিসীমার বাইরে নিয়ে যান।

গোয়েন্দা পরিদর্শক এমা ক্রুটে এই রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে বলেছেন, ‘ভুক্তভোগী ন্যায় বিচার পেয়েছেন। মুহিব উদ্দিনকে এখন জেলে থাকতে হবে। আমি মনে করি এই মামলা সাধারণ মানুষের জন্য এমন একটা উদাহরণ, যাতে তারা বুঝতে পারবেন এসব অভিযোগ আমরা কতটা গুরুত্বের সঙ্গে নেই। অভিযুক্তকে সাজা দিতে আমরা সবকিছু করেছি।’

সাজাপ্রাপ্ত মুহিব উদ্দীনের বাংলাদেশের কোনো তথ্য উল্লেখ না থাকলেও স্থানীয় গণমাধ্যম ‘দি নিউজ’ জানায় তিনি ২০১৬ সালে বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাজ্যে আসেন।

তার আইনজীবীর দাবি, যুক্তরাজ্যে কিংবা বাংলাদেশে মুহিবের নামে আগে কোনো মামলা নেই। আদালতের কাছে মুহিবকে ‘সীমিত বুদ্ধিবৃত্তিক ক্ষমতার মানুষ’ বলে পরিচয় করিয়েছেন ওই আইনজীবী। কিন্তু আদালত সেটি আমলে নেননি।

আদালত তার পর্যবেক্ষণে বলেছেন, রেস্টুরেন্ট কর্মী মুহিব পরিকল্পিতভাবে তরুণীকে ধর্ষণ করেছেন। মুহিবকে যুক্তরাজ্যে আজীবনের জন্য ‘যৌন অপরাধী’ হিসেবে চিহ্নিত করা হবে।

এমআরএম/জিকেএস

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]