ভাষা শহীদদের স্মরণে বাসাতের আলোচনা সভা

প্রবাস ডেস্ক প্রবাস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৪১ পিএম, ০২ মার্চ ২০২১

ভাষা শহীদদের স্মরণ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২১ উপলক্ষে ‘বাংলাদেশ স্টুডেন্টস’ অ্যাসোসিয়েশন ইন তুর্কি-বাসাত’ একটি অনলাইন আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে মাতৃভাষা নিয়ে আলাপচারিতা, প্রমিত ভাষার অনুচ্ছেদ আঞ্চলিক ভাষায় পঠন, আঞ্চলিক ভাষার গান ও কবিতা, বাংলা ধাঁধা এবং সর্বশেষ আন্তর্জাতিক ভাষায় মাতৃভাষা দিবস পালন ও প্রামাণ্য চিত্র উপস্থাপন হয়।

কুরআন তিলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি শুরু হয়। উদ্ভোধনী বক্তব্য দেন বাসাতের সভাপতি তারিফা কানিজ। ‘মাতৃভাষা নিয়ে আলাপচারিতা’ পর্বে বাসাতের উপদেষ্টাদের মধ্যে শাহ মুহাম্মদ জালাল উদ্দিন এবং শেখ মুহাম্মদ মঈন উদ্দিন মাতৃভাষার গুরুত্ব সম্পর্কে সংক্ষিপ্তাকারে তাদের মূল্যবান বক্তব্য দেন।

‘প্রমিত ভাষার অনুচ্ছেদ আঞ্চলিক ভাষায় পঠন’ পর্বে অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ অঞ্চলের ভাষায় নির্দিষ্ট একটি অনুচ্ছেদ পাঠ করে। যেসব অঞ্চলের ভাষা উপস্থাপিত হয়েছে তা নিম্নরূপ-চট্টগ্রাম, বরিশাল, সিলেট, নোয়াখালী, ফরিদপুর, পুরান ঢাকা, মিরসরাই, ফেনী।

‘আঞ্চলিক ভাষার গান ও কবিতা’ পর্বে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী মুহাম্মদ ত্বহা, মামুন আব্দুল্লাহ ও মুশতাক আহমেদ এবং হাইস্কুল শিক্ষার্থী নাজমুল আলম নিজ নিজ আঞ্চলিক ভাষায় গান ও কবিতা পাঠ করেন।

‘বাংলা ধাঁধা’ পর্বে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী আল আমিন মিয়া কিছু জটিল ধাঁধা উপস্থাপন করেন। কিন্তু অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী মেধাবী শিক্ষার্থীরাও কম যাননি। তারা কোনো ধাঁধাকেই সঠিক জবাবহীন রাখেননি।

অনুষ্ঠানের শেষে আন্তর্জাতিক ভাষায় মাতৃভাষা দিবস উদযাপনের একটি প্রামাণ্য চিত্র উপস্থাপন করা হয়। কাজাখস্তান, সাইবেরিয়া, ইন্দোনেশিয়া, তুরস্ক, সেনেগাল, নেপাল, কসোভো, বেনিন, জর্দান, পাকিস্তান, থাইল্যান্ড, আজারবাইজান, আফগানিস্তান, বুরুন্ডি, সোমালিয়া এবং বাংলাদেশসহ মোট ১৫টি দেশের ছাত্রদের পক্ষ থেকে প্রতিনিধিরা নিজ নিজ মাতৃভাষায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের শুভেচ্ছা জানান।

বাসাতের সাংগঠনিক সম্পাদক মিনহাজুল আবেদীনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাসাতের সাবেক সভাপতি মুমিন এবং বতর্মান সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক হেলালিসহ এক্সিকিউটিভ এবং সেক্রেটারিয়েট সদস্যরা।

এমআরএম/এমকেএইচ

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]