বাংলাদেশিদের উদ্যোগে ম্যাসাচুসেটসে ‘বৃহৎ হালাল সুপারমার্কেট’

কৌশলী ইমা কৌশলী ইমা , যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৪:২৫ পিএম, ১১ এপ্রিল ২০২১

যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস অঙ্গরাজ্যের লোয়েল শহরে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের উদ্যোগে আন্তর্জাতিকমানের হালাল সুপারমার্কেটের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়েছে।

স্থানীয় সময় শনিবার (১০ এপ্রিল) সকাল ৯টায় ‘ফুডল্যান্ড’ নামের এ হালাল সুপারমার্কেটটির উদ্বোধন করেন লোয়েল সিটি মেয়র জন ল্যেহী।

ম্যাসাচুসেটস প্রবাসী বেশ কয়েকজন বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের যৌথ উদ্যোগে আন্তর্জাতিকমানের এ হালাল সুপারমার্কেটটি চালু করায় অভিনন্দন জানিয়েছেন লোয়েল সিটি মেয়র।

ফুডল্যান্ড হালাল সুপারমার্কেট উদ্বোধনের পর মেয়র জন ল্যেহী উপস্থিত বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাদের এই মহৎ উদ্দেশ্যকে আমি স্বাগত জানাচ্ছি। এ সুপারমার্কেটে হালাল মাংসসহ বিভিন্ন দেশীয় নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি এই শহরের বাসিন্দাদের চাহিদা মেটাবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, ব্যবসা পরিচালনার ক্ষেত্রে যে কোনো সমস্যা দেখা দিলে আমি সর্বদাই আপনাদের পাশে থাকব। পরে মেয়র তার সিটির পক্ষ থেকে সাইটেশন পড়ে শোনান।

ফুডল্যান্ড হালাল সুপারমার্কেটের অন্যতম স্বত্বাধিকারী হুমায়ুন মোর্শেদ ও মেডফোর্ড ইসলামিক কালচারাল সেন্টারের পরিচালক নিকোল মোসালাম যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- ফুডল্যান্ড সুপারমার্কেটের ল্যান্ডলর্ড (জমির মালিক) জেমস।

এছাড়া কন্ট্রাক্টর পল, নিউ হ্যাম্পশায়ার অঙ্গরাজ্যের বাংলাদেশি হাউজ অব রিপ্রেজেনটেটিভ আবুল খান, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব নিউ ইংল্যান্ড (বেইন) সভাপতি আসিফ বাবু, ব্যবসায়ী সৈয়দ নুরুজ্জামান ও ব্যবসায়ী আলাউদ্দিন। মেয়র, ল্যান্ডলর্ড ও কন্ট্রাক্টরকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান যথাক্রমে তাপস বড়ুয়া, হুমায়ুন মোর্শেদ ও আলাউদ্দিন ব্ক্তব্য দেন।

jagonews24

ফুডল্যান্ড হালাল সুপারমার্কেটটি উদ্বোধনের পর দেশি-বিদেশি ক্রেতার ভিড় দেখা গেছে। লোয়েল ও পার্শ্ববর্তী বেশ কয়েকটি শহরে বসবাসকারী প্রবাসী বাংলাদেশিসহ বিভিন্ন দেশীয় মুসলমান ক্রেতাদের হালাল খাবার সরবরাহের চাহিদা মেটাতে সক্ষম হবে এ সুপারমার্কেটটি।

উদ্বোধনের পর বাজার করতে আসা একজন বাংলাদেশি ক্রেতা জানান, লোয়েল শহরে প্রবাসী বাংলাদেশিদের সংখ্যা খুবই কম। বোস্টনের আশপাশের শহরগুলোতে প্রচুর সংখ্যক বাংলাদেশি বসবাস করেন। সেসব এলাকা থেকে প্রায় ৩০-৪০ মিনিটে অনায়াসে গাড়ি চালিয়ে আসা যাবে এ মার্কেটে।

তিনি আরও বলেন, যেভাবে এ মার্কেটটি সাজানো হয়েছে তাতে গোটা নিউ ইংল্যান্ড তথা ম্যাসাচুসেটস, নিউ হ্যাম্পশয়ার, ভারমন্ট, কানেকটিকাট, রোড আইল্যান্ড ও মেইনের মুসলমান ক্রেতাদের চাহিদা মেটানো সম্ভব হবে। কিন্তু এক ঘণ্টা বা দু’ঘন্টা গাড়ি চালিয়ে অনেকেই সচরাচর বাজার করতে আসবে না।

তিনি বলেন, হরহামেশা তারা বাজার করতে আসবে এটা নিশ্চিত। তবে শুধু লোয়েল শহরেই প্রচুর সংখ্যক বিভিন্ন দেশীয় হাজার হাজার মুসলামান বসবাস করেন এসব ক্রেতা যদি নিয়মিত এখানে বাজার করতে আসে তাতেই মার্কেটটি সচল থাকবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

সর্বপরি ফুডল্যান্ড সুপারমার্কেটটি নিউ ইংল্যান্ডের মুসলমানদের সকল প্রকার চাহিদা মেটাতে সক্ষম হবে বলে মার্কেটের স্বত্বাধিকারীরা আশা করছেন। ফুডল্যান্ড হালাল সুপারমার্কেটে সবকিছুই সহজ ও সুলভ মূল্যে পাওয়া যাবে তারা উল্লেখ করেন।

এমআরএম/এমকেএইচ

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]