ইতালিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদের জামাত

জমির হোসেন
জমির হোসেন জমির হোসেন , ইতালি প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৩:১৮ পিএম, ১৩ মে ২০২১

ইতালিতে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৩ মে) ইতালিসহ ইউরোপের অন্যান্য দেশে ঈদ উদযাপন করেন প্রবাসী বাংলাদেশিসহ ইসলাম ধর্মাবলম্বী মুসলমানরা।

বৃহস্পতিবার সকালে দেশটির রাজধানী রোমে গুড়িগুড়ি বৃষ্টি হয় হলেও তা দীর্ঘস্থায়ী হয়নি।

রোমের ব্যস্ততম এলাকা লারগো প্রেনেসতে ঈদের প্রথম জামাত সকাল সাড়ে সাতটায় অনুষ্ঠিত হয়। এরপর দ্বিতীয় জামাত হয় সাড়ে আটটায়। পরে তৃতীয় জামাত হয় সাড়ে নয়টায়।

jagonews24

ঈদ উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক নায়েব আলী এবং সমন্বয়ক ছিলেন আল আমিন। এছাড়া ইতালির বিভিন্ন স্থানে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। করোনায় ইতালি সরকার ঘোষিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদ উদযাপন করেন প্রবাসী মুসলমানরা।

ঈদের অনুভূতি নিয়ে বাংলাদেশ সমিতির এক নম্বর যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হোসেন মোল্লা বলেন, কোভিড-১৯ কারণে সব কিছু সীমিত হয়ে গেছে। তবুও খোলা মাঠে ঈদের জামাত করতে পেরে অনেক ভালো লেগেছে। সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা।

jagonews24

বৈশ্বিক মহামারির মধ্যেও এ দিনটি উপলক্ষে চোখের পড়ার মতো মুসল্লিদের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। তবে এ বছর কোভিড-১৯ এর কারণে প্রবাসীদের মনে আগের মতো তেমন আনন্দ দেখা যায়নি। নামাজ পরবর্তী সময়ে বিধিনিষেধ থাকায় কেউ কারও সঙ্গে কোলাকুলি, হাত মুসাফা করার তেমন কোনো দৃশ্য চোখে পড়েনি।

সবাই ইতালি সরকারের স্বাস্থ্যবিধি মেনে এক মিটার দূরত্ব বজায় রেখে নামাজ আদায় করেন। জামাতে প্রশাসনের কড়া নিরাপত্তার ফলে সবাইকে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করতে হয়েছে।

লারগো প্রেনেসতে খোলা মাঠে জামাতের প্রশাসনিক ব্যবস্থায় সহযোগিতা করেন সামাজিক সংগঠন ইল ধূমকেতুর কর্ণধার নুরে আলম সিদ্দিকী বাচ্চু এবং সার্বিকভাবে সহযোগিতা করে বৃহত্তর ঢাকা সমিতি।

jagonews24

করোনার ফলে আনন্দ অনেকাংশেই ভাটা পড়লেও ঈদে জামাতে নামাজ আদায় করতে পেরে আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া আদায় করেন প্রবাসীরা।

এদিকে ঈদ জামাত শেষে ফিলিস্তিনের ওপর ইসরাইলের নির্যাতনের তীব্র নিন্দা জানানো হয়। এর প্রতিবাদ জানিয়ে শুক্রবার (১৪ মে) বিকেল ৪টায় এক বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক দেয়া হয়। এ সময় ইল ধূমকেতুর কর্ণধার নুরে আলম সিদ্দিকী বাচ্চু সবাইকে সমাবেশে উপস্থিত হয়ে প্রতিবাদ জানাতে আহ্বান জানান।

এমআরআর/জিকেএস

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]