মালয়েশিয়ায় টিকার জন্য নিবন্ধন করেছেন ৪ লাখ প্রবাসী

আহমাদুল কবির
আহমাদুল কবির আহমাদুল কবির , মালয়েশিয়া প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৪:১৮ পিএম, ১৮ জুন ২০২১

মালয়েশিয়ায় চার লাখ প্রবাসী টিকা নিতে নিবন্ধন সম্পন্ন করেছেন। টিকাদান কর্মসূচির সমন্বয়কমন্ত্রী খায়রি জামাল উদ্দিন বলেছেন, ৪ লাখ প্রবাসী ও অভিবাসী শ্রমিক কোভিড-১৯ টিকার জন্য রেজিস্ট্রেশন করেছেন। দেশটিতে ১৬ জুন পর্যন্ত প্রায় ১ কোটি ৪৬ লাখ মানুষ টিকার জন্য নিবন্ধন করেছেন বলে জানান মন্ত্রী।

বুধবার (১৬ জুন) ‘হার্ড ইমিউনিটির পথে’ শীর্ষক এক অনলাইন আলোচনা সভায় তিনি বলেন, প্রবাসীরা শিগগিরই সরকারের শিল্প প্রতিরোধ কর্মসূচির (পিকাস) এর আওতায় করোনার টিকা পাবেন।

মন্ত্রী খায়রি আরও বলেন, মালয়েশিয়া দেশটির শরণার্থীদের টিকা দেয়ার জন্য জাতিসংঘের (ইউএন) সংস্থাগুলোর সঙ্গে কাজ করবে। তবে জাতিসংঘের হাইকমিশনার (ইউএনএইচসিআর) কার্ডযুক্ত শরণার্থীদের কোভিড-১৯ শনাক্ত করার পরে সম্পূর্ণ টিকা দেয়া হবে। শরণার্থী ছাড়াও নথিভুক্ত অভিবাসীরা- যারা সাধারণত উৎপাদন, নির্মাণ ও বৃক্ষরোপণ খাতে কাজ করেন তাদের জাতীয় এবং শিল্প উভয় কর্মসূচির আওতায় টিকা দেয়া হবে।

jagonews24

দেশটিতে অনিবন্ধিত অভিবাসীদের কীভাবে টিকা দেয়া হবে তা নিয়ে উদ্বেগ রয়েছে। ২০১৭ সালে মালয়েশিয়ায় প্রায় ৪০ লাখ বিদেশি কর্মী ছিলেন। বিশ্বব্যাংকের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৭ সালে মালয়েশিয়ার মোট বিদেশি শ্রমিকের মধ্যে ৪০ শতাংশ ইন্দোনেশিয়ান। ২২ শতাংশ নেপালি এবং ১৪ শতাংশ বাংলাদেশি।

খায়রি বলেন, অবৈধ অভিবাসীদের নিয়ে ভয় রয়েছে। কারণ, তারা ধরা পড়ার ভয়ে টিকা নিতে নাও আসতে পারেন। টিকা নিতে তাদের কাছে সঠিক বার্তা পৌঁছাতে হবে।

এদিকে ইমিগ্রেশন বিভাগ সম্প্রতি অবৈধ অভিবাসীদের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়েছে। গত ৬ জুন সাইবারজায়া একটি অভিযানের সময় আটক বন্দিদের ওপর জীবাণুনাশক ছিটানো হয় বলে জানা গেছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হামজাহ জয়নুদিন গত শনিবার (১২ জুন) বলেছেন, অনিবন্ধিত অভিবাসী শ্রমিকরা কোভিড-১৯ ইনোকুলেশনের যোগ্য হতে পারবেন না। মালয়েশিয়ায় আনুমানিক ২৫ লাখ বৈধ প্রবাসী রয়েছে।

jagonews24

এদিকে পৃথক বিবৃতিতে সিনিয়র ওয়ার্কস মিনিস্টার ফাদিল্লাহ ইউসুফ বলেন, মালয়েশিয়ার নির্মাণশিল্প উন্নয়ন বোর্ড (সিআইডিবি) ১৭ জুন নির্মাণশিল্পের ৪০ হাজার শ্রমিককে কোভিড-১৯ টিকা দেয়ার প্রস্তাব করেছে। এই কর্মসূচির আওতায় বেসরকারি খাতকে তাদের নিজস্ব যোগ্য মেডিকেল টিম ও টিকা কেন্দ্রগুলো প্রস্তুত করতে হবে। সিআইডিবি নির্মাণ শিল্পের পক্ষ থেকে টিকাদান কর্মসূচি বাস্তবায়নে সমন্বয় ও সহায়তা করবে বলে জানান ফাদিল্লাহ।

টিকা ফি বাবদ জনপ্রতি ১৪০ রিঙ্গিত খরচ হবে। এর মধ্যে ৫০ রিঙ্গিত সরকার দেবে। বাকি ৯০ রিঙ্গিত শ্রমিকদের নিয়োগকারীরা দেবেন। সিআইডিবির টিকা কর্মসূচি ৩০ জুন কুয়ালালামপুরে এবং ১৪ জুলাই সেলাঙ্গরে অনুষ্ঠিত হবে।

এমআরএম/জিকেএস

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]