কানাডায় নজর কাড়ছে বাংলাদেশের ক্রিকেট, প্রয়োজন পৃষ্ঠপোষকতা

আহসান রাজীব বুলবুল
আহসান রাজীব বুলবুল আহসান রাজীব বুলবুল , কানাডা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৫:১৫ পিএম, ১৫ জুলাই ২০২১

কোনো ধরনের প্রাতিষ্ঠানিক পৃষ্ঠপোষকতা ছাড়াই টরন্টোয় বাংলাদেশিদের ৬টি টিম মূলধারার ক্রিকেট লিগে অংশ নিয়ে ইতোমধ্যে নজর কেড়েছে। টেপ বল, ক্রিকেট বল মিলিয়ে বাংলাদেশিদেরই ২০টির মতো ক্রিকেট টিম গড়ে উঠেছে বলে জানিয়েছেন টরন্টোর ক্রিকেট অঙ্গনের সংশ্লিষ্টরা।

তারা জানান, নিয়মিত অনুশীলনের জন্য একটি মাঠ আর পৃষ্ঠপোষকতা পেলে বাংলাদেশি খেলায়াড়রা কানাডার জাতীয় দলে প্রতিনিধিত্ব করতে সক্ষম হবে।

বুধবার রাতে কানাডার বাংলা পত্রিকা ‘নতুনদেশ’ এর প্রধান সম্পাদক শওগাত আলী সাগর এর সঞ্চালনায় ‘শওগাত আলী সাগর লাইভ’ অনুষ্ঠানে আলোচনায় প্রবাসী বাাংলাদেশি ক্রিকেটাররা এ কথা বলেন।

এতে আলোচনায় অংশ নেন স্বাধীন ক্রিকেট ক্লাবের প্রেসিডেন্ট ইত্তেজা আহমেদ টিপু, বাংলা ওয়ারিয়র ক্রিকেট টিমের ভাইস ক্যাপ্টেন মোস্তফা দাউদ এবং টিম টাইগার ক্রিকেট টিমের ক্যাপ্টেন তানিম চৌধুরী।

ইত্তেজা আহমেদ টিপু কানাডায় বিশেষ করে টরন্টোয় বাংলাদেশিদের ক্রিকেট চর্চার ইতিবৃত্ত তুলে ধরে বলেন, প্রবাসের কঠিন জীবনে নিয়মিত খেলাধূলার চর্চা করা রীতিমতো কঠিন কাজ। কিন্তু ক্রিকেটামোদী বাংলাদেশিরা ভাড়া করা মাঠে অনুশীলণ করে করেই এখন মূলধারার বিভিন্ন লীগে অংশ নিচ্ছে।

তিনি বলেন, অনুশীলনের মাঠ ভাড়া থেকে শুরু করে যাবতীয় খরচ ক্রিকেটারদের বহন করতে হয়। ব্যক্তিগতভাবে কেউ কেউ স্পন্সরশিপ নিয়ে এগিয়ে এলেও প্রাতিষ্ঠানিক সহযোগিতা অভাব রয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

ক্রিকেটার মোস্তফা দাউদ ক্রিকেটারদের নিয়মিত অনুশীলনের জন্য একটি মাঠের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরে বলেন, ক্রিকেটারদের অনুশীলনের জন্য মাঠের অভাব একটি বড় সমস্যা হয়ে দেখা দিয়েছে আমাদের জন্য। সিটি কর্পোরেশনের কাছ থেকে মাঠ ভাড়া নিয়ে আমাদের অনুশীলন করতে হয়।

তিনি বলেন, কানাডায় বাংলাদেশি ক্রিকেটের বিকাশের জন্য দরকার একটি মাঠ। এ ব্যাপারে কমিউনিটির সবার এগিয়ে আসা দরকার।

ক্রিকেটার তানিম চৌধুরী অন্যান্য কমিউনিটিতে থাকা অবকাঠামোগত সুবিধাদি তুলে ধরে বলেন, পর্যাপ্ত অবকাঠামোগত সুবিধাদি নিশ্চিত করা গেলে আমাদের ক্রিকেটাররা কানাডার জাতীয় দলে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করতে সক্ষম হবে। নতুন প্রজন্মের ছেলে মেয়েরাও ক্রিকেটের ব্যাপারে উৎসাহী হবে।

তিনি বলেন, বহু সংখ্যক মেধাবী বাংলাদেশি ক্রিকেটার কানাডায় বসবাস করেন। অবকাঠামোগত সুবিধা তৈরি হলে নতুন প্রজন্মকে সম্পৃক্ত করে কানাডায় বাংলাদেশিরা জাতীয় ক্রিকেটে নেতৃত্ব দিতে সক্ষম হবে বলে তিনি মনে করেন।

তিনি প্রবাসী বাংলাদেশিদের নিজ নিজ সামর্থ্য অনুসারে টরন্টোর বাংলাদেশি ক্রিকেটকে সহযোগিতার আহ্বান জানান। আলোচনায় অংশ নিয়ে নতুনদেশ এর প্রধান সম্পাদক শ্ওগাত আলী সাগর বলেন, অথচ তাদের সম্পর্কে কমিউনিটিতে তেমন একটা আলোচনা শোনা যায় না, তাদের নিয়ে তেমন উচ্ছ্বাস দেখা যায় না।

অনেকটা আড়ালেই যেন পড়ে আছে বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশিদের মর্যাদার আসনে বসানোর অসাধারণ এক উদ্যোগ। তিনি টরন্টোর বাংলাদেশিদের কিক্রেটারদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানান।

এমআরএম/জিকেএস

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]