লেবাননে টিকা নিতে প্রবাসী বাংলাদেশিদের ভিড়

বাবু সাহা
বাবু সাহা বাবু সাহা
প্রকাশিত: ০৫:০০ এএম, ২২ নভেম্বর ২০২১

লেবাননে দীর্ঘদিন বিরতি দিয়ে আবারও বাংলাদেশিসহ বিভিন্ন দেশের অভিবাসীদের করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়েছে। স্থানীয় সময় ২০-২১ ও ২৭-২৮ নভেম্বর চারদিন এই কর্মসূচি চলবে।

লেবাননের জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ দূতাবাস ও আন্তর্জাতিক অভিবাসী সংস্থা (আইএমও) সম্মিলিতভাবে বৈরুতের শহীদ রফিক হারিরি হাসপাতালে এ টিকাদান কর্মসূচির আয়োজন করে। দেশটিতে বসবাস করা ১৮ বছরের বেশি বয়সী বাংলাদেশিসহ সব দেশের অভিবাসীরা প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট প্রদর্শন ও সরাসরি রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে এ কর্মসূচির আওতায় টিকা নিতে পারছেন। কর্মসূচির প্রথম দুইদিন শনি ও রোববার প্রায় আট শতাধিক বাংলাদেশি টিকা নিয়েছেন বলে দূতাবাস সূত্রে জানা গেছে।

jagonews24

বাংলাদেশ দূতাবাসের শ্রম সচিব আব্দুল্লাহ আল মামুন দেশটির জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় গৃহীত এ কর্মসূচিকে সাধুবাদ জানিয়ে বলেন, লেবাননের জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও আন্তর্জাতিক অভিবাসী সংস্থার সঙ্গে দূতাবাসের সার্বক্ষণিক যোগাযোগ ও প্রচার-প্রচারণার ফলে বাংলাদেশিরা উদ্বুদ্ধ হয়ে টিকা নিচ্ছে। তিনি বাংলাদেশিদের স্বাস্থ্য-ঝুঁকি কমাতে সবাইকে টিকা নেওয়ার অনুরোধ জানান।

আইএমও'র মেডিকেল দলের তত্ত্বাবধায়ক নাদা নাজেম বলেন, আমি খুবই খুশি যে অভিবাসীরা নিজেদের সুরক্ষায় টিকা নিচ্ছেন। তিনি বাংলাদেশ দূতাবাসসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানান।

টিকাগ্রহণ শেষে বাংলাদেশিরা দূতাবাস ও দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, বাংলাদেশ দূতাবাসের আন্তরিক প্রচেষ্টার ফলে আমরা সহজে সরাসরি রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে টিকা নিতে পারছি। এখানকার সার্বিক পরিবেশের প্রশংসা করেন বাংলাদেশিরা।

jagonews24

উল্লেখ্য, দেশটির বেশিরভাগ বাংলাদেশির হাতে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট না থাকা ও বয়স সীমার কারণে অনেকেই এতদিন করোনা টিকা নিতে পারেননি। এছাড়া আগে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বয়স সীমা ৩০ বছর নির্ধারণ করে দিলেও বর্তমানে তা কমিয়ে ১৮ বছর করা হয়েছে। তাই ১৮ বছরের ঊর্ধ্বের সব অভিবাসী সহজেই টিকা নিতে পারছেন।

এআরএ

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]