মালয়েশিয়ায় শ্রমিক নিয়োগে ঘুস গ্রহণের অভিযোগে গ্রেফতার ৮

আহমাদুল কবির
আহমাদুল কবির আহমাদুল কবির , মালয়েশিয়া প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০২:২৪ এএম, ০৫ আগস্ট ২০২২
গ্রেফতার বেস্টিনেট’র কর্মকর্তারা

ঘুস গ্রহণের অভিযোগে বাংলাদেশি ও নেপালি শ্রমিক নিয়োগের জন্য মালয়েশিয়া সরকারকে সেবা প্রদানকারী আইটি কোম্পানি ‘বেস্টিনেট’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাসহ (সিইও) মোট ৮ কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করেছে মালয়েশিয়ার দুর্নীতি দমন কমিশন (এমএসিসি)।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) মালয়েশিয়ার সংবাদপত্র দ্য স্টার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিদেশি শ্রমিকদের জন্য কোটা অর্জনে নিয়োগকর্তা বা এজেন্টদের সহযোগিতা করতে ঘুস গ্রহণের অভিযোগে বুধবার (৩ আগস্ট) তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারদের মধ্যে পাঁচজন পুরুষ ও তিনজন নারী। তাদের বয়স ৪০ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে বলে ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। তারা প্রতি শ্রমিকের জন্য বাংলাদেশি টাকায় ১৭ হাজার থেকে ৩২ হাজার টাকা পর্যন্ত নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

ওই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, গত মে মাস থেকে ২৯ জুলাই পর্যন্ত মোট ৩ লাখ ৪৫ হাজার ৮৬১টি আবেদন প্রক্রিয়া করেছে বেস্টিনেট।

রিক্রুটিং এজেন্টদের মূল হোতা হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মালয়েশিয়ার দাতো মোহাম্মদ আমিনকেও এমএসিসি গ্রেফতার করেছে বলে একটি সূত্র জানিয়েছে। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

জানা গেছে, বেস্টিনেট ফরেন ওয়ার্কার্স সেন্ট্রালাইজড ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (এফডব্লিউসিএমএস) নামে পরিচিত একটি ব্যবস্থাপনা দেখভাল করে থাকে। এই সিস্টেমটি ২০১৬ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশি শ্রমিক নিয়োগের জন্যও ব্যবহার করা হয়েছিল। কিন্তু এই কাজে প্রতি শ্রমিকের কাছ থেকে ৪ লাখ টাকা পর্যন্ত নেওয়ার অভিযোগে মালয়েশিয়া সরকার এই নিয়োগ স্থগিত করে।

সেসময় বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নিয়োগের জন্য মালয়েশিয়া সরকার ১০টি রিক্রুটিং এজেন্সির একটি সিন্ডিকেটকে অনুমতি দেয়। মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি শ্রমিক নিয়োগের জন্য দুই দেশের সরকার কাজ করলেও এই কাজে মালয়েশিয়া সরকার কর্তৃক প্রস্তাবিত ২৫টি রিক্রুটিং এজেন্সির সিন্ডিকেশনের অভিযোগ আছে। এই কারণে বুধবারের ঘটনাকে তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

ইএ

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]