ওশান ভাইকিংয়ের ২০ অভিবাসনপ্রত্যাশীকে আশ্রয় দেবে নরওয়ে

প্রবাস ডেস্ক
প্রবাস ডেস্ক প্রবাস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:১৯ এএম, ২৩ নভেম্বর ২০২২
চলতি মাসের শুরুর দিকে ভূমধ্যসাগর থেকে দুইশ ৩৪ জন অভিবাসনপ্রত্যাশীকে উদ্ধার করে আশ্রয়ের আশায় সমুদ্রে কয়েক সপ্তাহ ধরে ভাসছিল বেসরকারি সংস্থার জাহাজ ওশান ভাইকিং। ফাইল ফটো। এএফপি, ক্রিস্টফ সিমন।

ভূমধ্যসাগরে কয়েক সপ্তাহ ধরে ভাসতে থাকা মানবিক উদ্ধারকাজে নিয়োজিত জাহাজ ওশান ভাইকিংয়ের ২০ জন অভিবাসনপ্রত্যাশীকে আশ্রয় দেবে স্ক্যান্ডেনেভিয়ার দেশ নরওয়ে। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী শনিবার এ তথ্য জানিয়েছে।

চলতি মাসের শুরুর দিকে ভূমধ্যসাগর থেকে দুইশ ৩৪ জন অভিবাসনপ্রত্যাশীকে উদ্ধার করে আশ্রয়ের জন্য সমুদ্রে কয়েক সপ্তাহ ধরে ভাসছিল মানবিক উদ্ধারকাজে নিয়োজিত বেসরকারি সংস্থার জাহাজ ওশান ভাইকিং।

জাহাজটির পক্ষ থেকে সাগর তীরের দেশ ইতালিকে তাদের বন্দরে ভেড়ার অনুমতি দিতে অনুরোধ করলেও সে অনুরোধে সাড়া দেয়নি ইতালি। ফলে আশ্রয়ের আশায় কয়েক সপ্তাহ সমুদ্রে ছিল জাহাজটি।

এ নিয়ে বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরে ইতালির সঙ্গে জার্মানি ও ফ্রান্সের কূটনৈতিক উত্তেজনা বিরাজ করে। শেষ পর্যন্ত অভিবাসনপ্রত্যাশীদের নিয়ে জাহাজটিকে নিজেদের বন্দরে ভেড়ার অনুমতি দেয় ফ্রান্স।

ফ্রান্স সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়, জাহাজে থাকা ৪০ জন অপ্রাপ্তবয়স্ককে একটি সামাজিক সুরক্ষাকেন্দ্রে আশ্রয় দেওয়া হয়েছে। আর আবেদন যাচাই-বাছাইয়ের জন্য একশ ৮৯ জনকে আশ্রয় শিবিরে রাখা হয়েছে। এই একশ ৮৯ জনের মধ্যে একশ ৬৬ জন তাদের আশ্রয় আবেদনের পক্ষে যথেষ্ট প্রমাণ দেখাতে পারেননি।

আর তাই বাকি ৬৬ জনের আশ্রয় আবেদন প্রক্রিয়া চলমান। আশ্রয়ের জন্য এই ৬৬ জনকে ইউরোপের ১১টি দেশে পাঠানো হবে। এর মধ্যে রয়েছে জার্মানি, ফ্রান্স, ফিনল্যান্ড ও পর্তুগালসহ ইউরোপের বেশকিছু দেশ। ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের স্বেচ্ছায় পুনর্বাসন স্কিমের আওতায় এই দেশগুলো স্বপ্রণোদিত হয়ে এসব অভিবাসন প্রত্যাশীদের আশ্রয় দেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

এদিকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য না হয়েও জাহাজটিতে থাকা ২০ অভিবাসনপ্রত্যাশীকে আশ্রয় দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে নরওয়ে।

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র বার্তাসংস্থা এএফপিকে বলেন, আমরা বলতে চাই যে, অভিবাসনপ্রত্যাশীদের আশ্রয় দেওয়ার ব্যাপারে নরওয়ের কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। ফ্রান্স সরকারের অনুরোধের প্রেক্ষিতে এই বিশেষ সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

মন্ত্রণালয়ের এই মুখপাত্র জানান, যাদের আশ্রয় দেওয়ার কথা বলা হয়েছে তারা শরণার্থী হিসেবে নরওয়েতে আশ্রয় পাওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতা পূরণ করতে পারবে এমন সম্ভাবনা যথেষ্ট। তবে অপ্রাপ্তবয়স্কদের আশ্রয় দেওয়ার তালিকায় যুক্ত করা হয়নি।

সূত্র: ইনফোমাইগ্রেন্টস

এমআরএম/জিকেএস

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]