বিজয় দিবসে বাংলাদেশ-গ্রিসের পতাকার রঙে আলোকসজ্জা

মতিউর রহমান মুন্না
মতিউর রহমান মুন্না মতিউর রহমান মুন্না , গ্রিস প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০১:০৩ এএম, ৩০ নভেম্বর ২০২২
ছবি- জাগো নিউজ

কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তির সমাপ্তি স্মরণে আগামী ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশ ও গ্রিসের জাতীয় পতাকার রঙে এথেন্সের ঐতিহাসিক ওমোনিয়া স্কোয়ারকে আলোকসজ্জা করা হবে। এ নিয়ে উভয় দেশের মধ্যে এখনো আলোচনা চলছে।

জাগো নিউজের এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে এমন তথ্য জানিয়েছেন গ্রিসে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আসুদ আহমেদ।

jagonews24


রাষ্ট্রদূত জানান, প্রাচীন সভ্যতার দেশ গ্রিসে বসবাস করেন প্রায় ৩০ হাজার বাংলাদেশি। ওমোনিয়া শহরে বসবাস করেন সিংগভাগ বাংলাদেশি। ২০২২ সালে বাংলাদেশ ও গ্রিসের কূটনৈতিক সম্পর্কের সুবর্ণ জয়ন্তীর বছরব্যাপী উদযাপন সমাপ্তি স্মরণ করতে সম্প্রতি এথেন্সের টাউন হলে সেখানের মেয়রের কূটনৈতিক উপদেষ্টা তাসোস ক্রিকোকিসের সঙ্গে আলোচনা করেন।

তিনি বলেন, আগামী ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশের মহান বিজয় দিবসে বাংলাদেশ ও গ্রিসের জাতীয় পতাকার রঙে ঐতিহাসিক ওমোনিয়া স্কোয়ারকে আলোকসজ্জা করার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। প্রবাসী বাংলাদেশিরা সেখানে বসেই ১৬ ডিসেম্বর নিজের দেশের বিজয় দিবস অনুভব করতে ও দুই দেশের কূটনৈতিক সম্পর্ককে সবার মধ্যে তুলে ধরতে এই ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

jagonews24

আসুদ আহমেদ বলেন, এটি সত্যিই অত্যন্ত তৃপ্তির বিষয় যে গ্রিসে থাকা আমাদের ৩০ হাজার প্রবাসী বাংলাদেশি এখানে থেকেই নিজের দেশের বিজয় দিবস অনুভব করার সুযোগ পাবেন। এছাড়া দুই দেশের সর্ম্পককে এ দেশের মানুষের মাঝে তুলে ধরতে এই আলোকসজ্জা ভূমিকা রাখবে।

১৯৭২ সালের ১১ মার্চ বাংলাদেশকে স্বাধীনতার স্বীকৃতি দেয় ইউরোপের দেশ গ্রিস। চলতি বছরের মার্চ মাসে বাংলাদেশ-গ্রিস কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তিতে টেলিফোনে শুভেছা বিনিময় করেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও গ্রিসের প্রধানমন্ত্রী কিরিয়াকোস মিৎসোটাকিস।

তারা এ সময়ে বাংলাদেশ-গ্রিসের কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তিতে পরস্পরকে অভিনন্দন জানান এবং ভবিষ্যতে দু’দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও মজবুত করার বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তারা বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দ্বিপাক্ষিক বিষয় নিয়েও আলোচনা করেন।

এমআরএম

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]