মাওলানা সাদ’কে নিয়ে আলেমদের কঠোর কর্মসূচি ও মন্তব্য

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:৪১ পিএম, ১০ জানুয়ারি ২০১৮

দিল্লির নিজামুদ্দিন মারকাজের মুরব্বী মাওলানা সাদ কান্দলভী বিশ্ব ইজতেমায় অংশ নিতে বাংলাদেশে আসছেন আজ। প্রবল আপত্তি ও নিষেধ সত্ত্বেও তিনি বাংলাদেশে আসছেন এমন খবরে বিমানবন্দর এলাকায় জড়ে হয়েছে লাখো আলেম।

তাছাড়া ইজতেমায় মাওলানা সাদ কান্ধলভীর আসাকে কেন্দ্র করে যাত্রাবাড়ীতে কওমি মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড বেফাকের সামনে বিক্ষোভের পর সাংবাদ সম্মেলন করেছেন দেশের শীর্ষ আলেমগণ।

সংবাদ সম্মেলনে বেফাকের সিনিয়র সহসভাপতি ও তাবলিগের শুরার উপদেষ্টা আল্লাম আশরাফ আলী বলেন, সরকার কর্তৃক গঠিত ওলামায়ে কেরাম ও তাবলিগের মুরুব্বীদের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের দাবি জানান।

সর্ব সম্মত সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে মাওলানা সাদের বিশ্ব ইজতেমোয় আসার ষড়যন্ত রুখে দেয়া হবে। মাওলান সাদ যদি চলেও আসেন তাহলে বিমানবন্দর থেকে ফিরে যেতে হবে। অন্যথায় ওলামায়ে কেরাম যে কোনো পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হবেন বলে বক্তব্য দেন তিনি।

বেফাকের মহা সচিব মাওলানা আব্দুল কুদ্দস বলেন, মাওলানা সাদ দীর্ঘ কয়েক বছর যাবত আকাবিরে আসলাফের মানহাজের বিপরীতে বিভিন্ন বিতর্কিত বক্তব্য দিয়ে আসছেন। এমনকি তিনি কুরআন হাদিসেরও অপব্যাখ্যা করছেন।

আমরা গত বছর চেস্টা করেছিলম তিনি যেন ইজতেমায় না আসেন। এ বছরও সরকারের তত্বাবধানে একটি কমিটি গঠন হয় কমিটির সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্য এবং সভাপতি মাহমুদুল হাসান মাওলানা সাদের ইজতেমায় না আসার মতামত দেন এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কছে গত ৭ জানুয়ারি রাতে সেই মতামত ও সিদ্ধান্ত হস্তান্তর করা হয়।

বেফাকের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মাহফুজল হক বলেন, আমরা দেওবন্দ সফর করেছি, নিজামুদ্দিন সফর করেছি। তারপর শুরা কমিটির কাছে প্রতিবেদন জমা দিয়েছি। এর পর শুরা কমিটি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে তা হস্তান্তর করেছেন।

বিমানবন্দর এলোকায় তার আসাকে প্রতিহত এবং বিমানবন্দর থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ ঠেকাতে এবং বিমানবন্দর থেকেই তাকে ফেরত পাঠাতে বিক্ষোভ ও চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

দীর্ঘদিন ধরে মাওলানা সাদের আপত্তিকর বক্তব্য ও বয়ান থেকে ফিরে আসার আহ্বান জানিয়ে আসছেন বিশ্বের অন্যতম দীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দারুল উলুম দেওবন্দ ও বাংলাদেশের ওলামায়ে কেরাম।

এমএমএস/আইআই

আপনার মতামত লিখুন :