তাওয়াফ ও সাঈ’র চক্করে সন্দেহ হলে হাজিদের করণীয়

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:২৯ পিএম, ০৫ আগস্ট ২০১৮

হজ সামর্থবান ও শারীরিক সক্ষম ব্যক্তিদের জন্য ফরজ ইবাদত। ইসলামের প্রধান পাঁচটি স্তম্ভের একটি। কাবা শরিফ তাওয়াফ ৭ চক্করে এক তাওয়াফ এবং সাফা ও মারওয়া পাহাড়ে ৭ চক্করের মাধ্যমে এক সাঈ সম্পন্ন করা হজ ও ওমরার অন্যতম রোকন। যা না করলে হজ ও ওমরা আদায় হবে না।

কোনো ব্যক্তি যদি তাওয়াফ ও সাঈতে কত চক্কর দিল তাতে সন্দিহান হয়ে পড়ে তখন করণীয় কি? এ সম্পর্কে বলা হয়েছে যে-

‘তাওয়াফ ও সাঈ’র ব্যাপারে যদি সন্দেহের উদ্রেক হয়। যেমন : ৩ চক্কর না ৪ চক্কর পূর্ণ হয়েছে- এ সম্পর্কে সন্দেহ দেখা দেয়। এমন অবস্থায় কম চক্কর অর্থাৎ ৩ চক্কর’কে নিশ্চিত ধরে অবশিষ্ট ৪ চক্কর সম্পন্ন করা।’

আরও পড়ুন > হজ পালনকারীদের জন্য মদিনার ‘মসজিদে কুবা’ জিয়ারত ও ফজিলত

অর্থাৎ কেউ তাওয়াফ ও সাঈ করার সময় চক্কর কতটি সম্পন্ন করল তা সুস্পষ্টভাবে স্মরণ করতে পারছে না। সন্দেহ যদি ৩/৪ এর মধ্যে হয় তবে ৩ চক্করকে মূল ধরে বাকি চক্কর সম্পন্ন করা। সন্দেহ যদি ৪/৫ চক্কর নিয়ে হয় তবে ৪ চক্করকে মূল ধরে বাকি চক্কর সম্পন্ন করার কথা এসেছে। এভাবেই ৭ চক্করে তাওয়াফ ও সাঈ সম্পন্ন করতে হবে।

মনে রাখতে হবে
কাবা শরিফ তাওয়াফের সঙ্গে সঙ্গে ইজতিবা থেকে বের হয়ে উভয় কাঁধ চাদর দ্বারা ঢাকতে হবে। তাওয়াফের পর দুই রাকাআত নামাজ আদায় করার আগেই তা করতে হবে। অতঃপর তাওয়াফ পরবর্তী দুই রাকাআত নামাজ আদায় করতে হয়।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে হজ ও ওমরা সম্পাদনে যথাযথভাবে কাবা শরিফ তাওয়াফ ও সাফা-মারওয়া সাঈ করার তাওফিক দান করুন। হজ ও ওমরায় যাবতীয় ভুল থেকে মুক্ত থাকার তাওফিক দান করুন। আমিন।

এমএমএস/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :