রোজায় আল্লাহর স্মরণে থাকতে যে দোয়া পড়বেন

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:৫৯ পিএম, ১৩ মে ২০১৯

আল্লাহর স্মরণে থাকতে পারা মানুষের জন্য সবচেয়ে বড় রহমত। রোজা পালনের পাশাপাশি তার পথে ও মতে জীবন পরিচালনার মাধ্যমেই তা সম্ভব। এ নেয়ামত লাভে আল্লাহর কাছেই বেশি বেশি প্রার্থনা করতে হবে।

আল্লাহর স্মরণে থাকতে পারলেই মানুষ দুনিয়ার যাবতীয় গোমরাহী ও পথভ্রষ্টতা থেকে মুক্ত থাকার তাওফিক লাভ করবে। তাই রোজাদারের উচিত বেশি বেশি এ দোয়া পড়া। যাতে রয়েছে আল্লাহর স্মরণে থাকার আহ্বান-
اَللَّهُمَّ أعِنِّيْ فِيْهَ عَلَى صِيَامِهِ وَقِيَامِهِ، وَجَنِّبْنِيْ فِيْهِ مِنْ هَفَوَاتِهِ وَآَثَامِهِ، وَارْزُقْنِيْ فِيْهِ ذِكْرَكَ بِدَوَامِهِ، بِتَوْفِيْقِكَ يَا هَادِيَ الْمُضَلِّيْنَ

উচ্চারণ : আল্লাহুম্মা আইন্নি ফিহি আলা সিয়ামিহি ওয়া ক্বিয়ামিহ; ওয়া ঝাননিবনি ফিহি মিন হাফাওয়াতিহি ওয়া আছামিহ; ওয়ারযুক্বনি ফিহি জিকরাকা বিদাওয়ামিহি; বিতাওফিক্বিকা ইয়া হাদিয়াল মুদাললিন।

অর্থ : ‘হে আল্লাহ! এ দিনে আমাকে রোজা পালন ও নামাজ প্রতিষ্ঠায় সাহায্য করুন। আমাকে অন্যায় কাজ ও সব গুনাহ থেকে হেফাজত করুন। আপনার তাওফিক ও শক্তিতে সবসময় আমাকে আপনার স্মরণে থাকার সুযোগ দিন। গোমরাহী ও পথভ্রষ্টতায় লিপ্ত হওয়া থেকে মুক্তিদান করুন হে সঠিকপথ প্রদর্শনকারী।

রোজাদারের জন্য একটি কথা মনে রাখা জরুরি-
আল্লাহ তাআলা মন্দ কাজ সংঘটিত হওয়ার সব বিষয়গুলোকে হালকা করেছেন রোজাদারের ইবাদত-বন্দেগি করার জন্য। জান্নাতের দরজা খুলে দিয়েছেন জান্নাতি পরিবেশ লাভের জন্য। আবার জাহান্নামের দরজা ও শয়তানকে বেড়ি পড়ানোর মাধ্যমে অপরাধ প্রবণতা কমিয়ে দিয়েছেন।

সুতরাং এরপরও যদি মানুষ খারাপ কাজ থেকে নিজেদের বিরত রাখতে না পারে, মন্দ কাজের প্রভাবমুক্ত হয়ে ভালো কাজের দিকে অগ্রসর হতে না পারে, তবে এর চেয়ে হতভাগা আর কে হতে পারে?

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে তার স্মরণে থাকার জন্য রোজার হুকুমগুলো যথাযথ পালনের তাওফিক দান করুন। খারাপ কথা ও কাজ থেকে বিরত থাকার তাওফিক দান করুন। ভালো কাজের মাধ্যমে রমজানের রহমত বরকত মাগফেরাত ও নাজাত লাভের তাওফিক দান করুন। আমিন।

এমএমএস/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :