ইসরাইলি কারাগারে নির্যাতনে শাহাদাতবরণ করেন ৭৩ ফিলিস্তিনি মুসলিম!

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:৫২ পিএম, ১২ অক্টোবর ২০১৯

অবৈধ দখলদার ইসরাইল বাহিনী অর্ধ শতাব্দি সময় ধরে ফিলিস্তিনের নিরাপরাধ মুসলিম কারাবন্দিদের ওপর নিষ্ঠুর নির্যাতন চালিয়ে আসছে। মানবাধিকার কর্মীদের তথ্য মতে, ইসরাইলের কারাগারে আটক ফিলিস্তিনের মুসলিম বন্দিদের ৮০ ধরনের নির্যাতন করে থাকে।

মানবাধিকার সংগঠন ‘আল-মিজান’-এর আইন বিষয়ক সমন্বয়কারী মিরফাত নাহাল বলেন, ‘ইসরাইলি সেনারা প্রতিদিন গড়ে ২০ জন ফিলিস্তিনি মুসলিমকে আটক করে। এর মধ্যে গড়ে মাত্র ২ জনকে মুক্তি দিলেও ১৮ জনই ইসরাইলি কারাগারের অন্ধ প্রকোষ্ঠে থেকে যান।

আইনজীবী মিরফাত নাহালের তথ্য মতে, ‘ইসরাইল আন্তর্জাতিক বন্দি আইন ও নীতিমালা উপেক্ষা করে কারাগারে আটকে রেখে ফিলিস্তিনি মুসলিম বন্দিদের নানা ধরনের নির্যাতন করে আসছে। এ তালিকায় স্থান পেয়েছে ৮০ ধরনের নির্যাতন। যা মানবাধিকারের প্রকাশ্য লঙ্ঘন।’

ফিলিস্তিনি বন্দিদের নিয়ে কাজ করা গবেষণা ও ডকুমেন্টারি বিভাগের প্রধান আব্দুন নাসের ফারাবানের তথ্য মতে, ‘১৯৬৭ সাল থেকে এখন পর্যন্ত ইসরাইলের কারাগারে জিজ্ঞাসাবাদের সময় ইসরাইলি সেনাদের বর্বর নিয়াতনে শাহাদাতবরণ করেন ৭৩ জন ফিলিস্তিনি মুসলিম।

তিনি আরও বলেন, ‘ইসরাইলের যেসব কারাগারে ফিলিস্তিনি মুসলিমদের বন্দি রাখা হয়, তার প্রত্যেকটিতে রয়েছে টর্সার সেল। এমন কোনো বন্দি বাকি নেই যাদের কারাগারের টর্সার সেলে একবারও নেয়া হয়নি। ইসরাইলি কারাগারের টর্সার সেলের নির্যাতনের দুঃসহ স্মৃতি ও চিহ্ন বছরের পর বছর বয়ে বেড়ান মুক্তি পাওয়া কারাবন্দিরা।’

উল্লেখ্য যে, মানবাধিকার সংগঠন আল-মিজান-এর তথ্য মতে- এখনও ইসরাইলের কারাগারগুলোতে বন্দি আছে প্রায় ৬ হাজার নিরাপরাধ ফিলিস্তিনি মুসলিম। যাদের মধ্যে প্রায় ৩০০ শিশু ও নারী রয়েছে। অসুস্থ বন্দির সংখ্যা প্রায় ২ হাজার। এছাড়াও অস্থায়ীভাবে ৫ শাতাধিক ফিলিস্তিনিকে অবৈধভাবে আটকে রাখা হয়েছে।

এমএমএস/এমএস