হজ-ওমরার তাওয়াফে ‘ইজতিবা-রমল’ করার উদ্দেশ্য কী?

ইসলাম ডেস্ক
ইসলাম ডেস্ক ইসলাম ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:১১ পিএম, ২৬ জুন ২০২২

হজ ও ওমরার তাওয়াফে ‘ইজতিবা এবং রমল’ করা সুন্নাত। তবে এটি পুরুষদের জন্য নারীদের জন্য নয়। ইজতিবা-রমল ফরজ তাওয়াফকারীদের জন্য প্রযোজ্য। নফল তাওয়াফে ইজতিবা-রমল নেই। হজ মৌসুম ছাড়াও বছরজুড়ে ওমরার ফরজ তাওয়াফ হয়। কিন্তু এসব তাওয়াফে ‘ইজতিবা-রমল করার উদ্দেশ্য কী?

ইজতিবা কী?

হজ-ওমরার তাওয়াফে পুরুষদের ইজতিবা করা সুন্নাত। নারীদের জন্য কোনো ইজতিবা নেই। আর ইজতিবা হলো ইহরামের পোশাক পরার পর শরীরের চাদরকে ডান বগলের নিচে দিয়ে চাদরের উভয় মাথাকে বাম কাঁধের ওপর দিয়ে সামনে এবং পেছনে ফেলানেই ইজতিবা।

রমল কী?

এটিও শুধু পুরুষ তাওয়াফকারীদের জন্য সুন্নাত। রমল হলো (তাওয়াফে কুদুম) তাওয়াফের সময় প্রথম তিন চক্করে মুজাহিদের মতো বীরদর্পে দুই কাঁধ ও শরীর দুলিয়ে ঘন ঘন পায়ে দ্রুত চলা।

ইজতিবা-রমলের সুন্নাত আমল

১. হজরত ইবনে আব্বাস রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, ‘রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম নিজে এবং তাঁর সাহাবাগণ ইজতিবা করেছেন এবং তিন চক্কর রমল করেছেন।

২. নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম যখন প্রথম তাওয়াফ করতেন তখন প্রথম তিন চক্করে দ্রুত চলতেন। আর বাকি চার চক্করে সাধারণভাবে চলতেন। (বুখারি ও মুসলিম)

রমল করার উদ্দেশ্য

নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হিজরতের পর যখন মদিনা (ইয়াসরিব) থেকে বাইতুল্লায় আগমন করেন, তখন মক্কার মুশরিকরা বলাবলি করতে লাগলো যে, মদিনার (ইয়াসরিবের) আবহাওয়া মুসলমানদেরকে দুর্বল ও রুগ্ন করে ফেলেছে।

তখন নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মুসলমানদেরকে মুশরিকদের এই অপবাদকে মিথ্যা প্রমাণিত করার জন্য কাবা শরিফের তাওয়াফে ‘রমল’ করার নির্দেশ প্রদান করেন।

তারপর থেকেই তাওয়াফে রমল করার বিধান চালু রয়েছে। যা এখনও বিদ্যমান। তবে নফল তাওয়াফে রমল এবং ইজতিবা নেই।

মনে রাখতে হবে

ইজতিবা শুধু সাত চক্কর তাওয়াফে সুন্নাত। এর আগে বা পরে সুন্নাত নয়। রমলও সাত চক্কর তাওয়াফের প্রথম তিন চক্করে আদায় করতে হবে।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহর সব পুরুষকে সুন্নাতের অনুসরণে হজ-ওমরার ফরজ তাওয়াফে ইজতিবা ও রমল করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

এমএমএস/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]