Jago News logo
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৩০ মার্চ ২০১৭ | ১৬ চৈত্র ১৪২৩ বঙ্গাব্দ

আল্লাহর রাস্তায় জীবন ও সম্পদ ত্যাগের নমুনা


ধর্ম ডেস্ক

প্রকাশিত: ০১:২৬ পিএম, ০৫ জানুয়ারি ২০১৭, বৃহস্পতিবার
আল্লাহর রাস্তায় জীবন ও সম্পদ ত্যাগের নমুনা

আল্লাহ তাআলা কুরআনে নিষ্ঠাবান মুমিনগণের অবস্থান বর্ণনা করেছেন এবং প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সাহাবায়ে কেরামের মান-মর্যাদা বর্ণনায় অসংখ্য আয়াত নাজিল করেছেন। আলোচ্য আয়াতটিও তাঁর একটি। এ আয়াতে আল্লাহ তাআলা হজরত সোহায়েব ইবনে সেনান রুমি রাদিয়াল্লাহু আনহু সম্পর্কে নাজিল করেন।

হজরত সোহায়েল রাদিয়াল্লাহু আনহু তাঁর জীবনের ধন-সম্পদ সর্বস্ব ত্যাগ করেছিলেন। যা আল্লাহ তাআলার নিকট অনেক উত্তম ও পছন্দনীয় হয়েছিল। যা তিনি কুরআনে এভাবে উল্লেখ করেন-

Quran

আয়াত পরিচিতি ও নাজিলের কারণ
সুরা বাকারার ২০৭ নং আয়াতে আল্লাহ তাআলা তাঁর জন্য জীবন উৎসর্গকারী সাহাবাদের বিষয়টি সুস্পষ্টভাবে তুলে ধরেছেন।

হাদিসের বিভিন্ন প্রসিদ্ধ গ্রন্থ মুসতাদরেকে হাকেম, ইবনে জারির, মুসনাদে ইবনে আবি হাতেমসহ সহিহ সনদে বর্ণিত হয়েছে যে, এ আয়াতটি হজরত সোহায়েব ইবনে সেনান রুমি রাদিয়াল্লাহু আনহু-এর ঘটনাকে কেন্দ্র করে অবতীর্ণ হয়েছিল। আর তা হলো-

হেজরত সোহায়েব ইবনে সেনান রুমি রাদিয়াল্লাহু আনহু যখন পবিত্র নগরী মক্কা থেকে হিজরত করে মদিনার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়েছিলেন, তখন পথিমধ্যে একদল কুরাইশ তাঁকে বাধা দেয়।

তিনি সাওয়ারি থেকে নেমে দাঁড়ালেন এবং তাঁর তূণীতে রক্ষিত সবগুলো তীর বের করে দেখালেন এবং কুরাইশদের লক্ষ্য করে বললেন, হে কুরাইশগণ! তোমরা জান, আমার তীর লক্ষ্যভ্রষ্ট হয় না। আমি আল্লাহর শপথ করে বলছি- যতক্ষণ পর্যন্ত আমার তূনীতে একটি তীরও অবশিষ্ট থাকবে, ততক্ষণ তোমরা আমার ধারে কাছেও পৌঁছতে পারবে না।

তীর শেষ হয়ে গেলে আমি তরবারি চালাবো। যতক্ষণ আমার প্রাণ থাকবে ততক্ষণ আমি তরবারি চালিয়ে যাবো। তারপর তোমরা যা করতে চাও পারবে।

আর যদি তোমরা দুনিয়ার স্বার্থ চাও; তাহলে শোন! আমি তোমাদেরকে মক্কায় রক্ষিত আমার ধন-সম্পদের সন্ধান বলে দিচ্ছি, তোমরা তা নিয়ে নাও এবং আমার (হিজরতের) রাস্তা ছেড়ে দাও। তাতে কুরাইশ দল রাজি হয়ে গেল।

হজরত সোহায়েব রুমি রাদিয়াল্লাহু আনহু নিরাপদে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের দরবারে পৌঁছে এ ঘটনা বর্ণনা করলেন।

তখন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম দুই বার ইরশাদ করলেন- হে আবু ইয়াহইয়া! তোমার ব্যবসা লাভজনক হয়েছে। তখন এ আয়াতটি নাজিল হয়। এ বর্ণনাটি হজরত আনাস রাদিয়াল্লাহু আনহুও বর্ণনা করেন।

পড়ুন- সুরা বাকারার ২০৬ নং আয়াত

পরিষেশে...
যারা আল্লাহ তাআলার নৈকট্য অর্জনে নিজেদের ধন-সম্পদ এবং জীবন উৎসর্গ করে তারাই সফলকাম। আল্লাহ তাআলা এ কারণেই কুরআনের অন্য আয়াতে এ ঘোষণা দিয়েছেন যে, ‘আল্লাহ মুমিনদের জীবন ও সম্পদ জান্নাতের বিনিময়ে ক্রয় করে নিয়েছেন।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে ধন-সম্পদ এবং জীবনের বিনিময় জান্নাত লাভে কুরআন ও সুন্নাহর বিধি-বিধান পালন করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

এমএমএস/জেআইএম

আপনার মন্তব্য লিখুন...