ভালো কাজের সংকল্পের ফজিলত


প্রকাশিত: ০৫:৫৮ এএম, ১৮ জানুয়ারি ২০১৬

বিনা কাজে ছাওয়াব লাভ, যা বান্দার জন্য আল্লাহর একান্ত অনুগ্রহ। কাজ ভালো হোক আর মন্দ হোক, প্রতিটি কাজের বিনিময়েই রয়েছে প্রাপ্তি। কাজ যদি ভালো হয়, ফলাফল হয় ভালো। আর যদি কাজ হয় মন্দ তবে তার প্রাপ্তিও মন্দ। তাই রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, প্রতিটি কাজের ফলাফল  নির্ভর করে তার নিয়তের উপর। বিনা কাজে ছাওয়াব লাভের গুরুত্ব ও তাৎপর্যপূর্ণ হাদিসখানা তুলে ধরা হলো-

Hadith-Inner

হজরত আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁর প্রভূর সূত্রে বর্ণনা করতে গিয়ে বলেন, ‘আল্লাহ তাআলা সৎকাজ ও পাপকাজের সীমা চিহ্নিত করে দিয়েছেন এবং সেগুলো বৈশিষ্ট্য স্পষ্টভাবে বিবৃত করেছেন। অতএব যে ব্যক্তি কোনো সৎ কাজের সংকল্প ব্যক্ত করেও এখনো তা সম্পাদন করতে পারেনি, আল্লাহ তার আমলনামায় একটি পূর্ণ নেকী লিপিবদ্ধ করার আদেশ দেন।

আর সংকল্প পোষণের পর যদি উক্ত কাজটি সম্পাদন করা হয়, তাহলে আল্লাহ তার আমলনামায় দশটি নেকি থেকে শুরু করে সাতশ’ এমনকি তার চেয়েও কয়েকগুণ বেশি নেকি লিপিবদ্ধ করে দেন।

আর যদি সে কোনো পাপ কাজের ইচ্ছা পোষণ করেও তা সম্পাদন না করে, তবে আল্লাহ তার বিনিময়ে তার আমলনামায় একটি পূর্ণ নেকি লিপিবদ্ধ করেন। আর যদি ইচ্ছা পোষণের পর সেই খারাপ কাজটি সে করেই ফেলে তাহলে আল্লাহ তাআলা তার আমালনামায় শুধু একটি পাপই লিখে রাখেন। (বুখারি, মুসলিম)

সুতরাং আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে ভালো কাজ করার পাশাপাশি সব সময় ভালো কাজ করার মানসিকতা পোষণ করাও ছাওয়াবের কাজ। আল্লাহ তাআলা ভালো  কাজ করে নেক কাজের মানসিকতা পোষণ করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

এমএমএস/এমএস