ভালো-মন্দের মিশেলে বছর পার করলো ফুটবল

রফিকুল ইসলাম
রফিকুল ইসলাম রফিকুল ইসলাম , বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৪:৫৭ পিএম, ২৭ ডিসেম্বর ২০১৯

কাঠমান্ডুতে অনূর্ধ্ব-২৩ দলের ভরাডুবি না হলে ফুটবল ফেডারেশনের কর্মকর্তারা মাথা উঁচু করেই বলতে পারতেন দারুণ একটা বছর পার হলো তাদের। কিন্তু রেকর্ড ১৯ স্বর্ণপদক নিয়ে শেষ করা এসএ গেমসের বছরে ফুটবল পেলো ব্রোঞ্জ। তাও ভারত ও পাকিস্তানবিহীন ফুটবলে। বছরের শেষে বড় মুখটা আর থাকেনি বাফুফে কর্তাদের।

ডিসেম্বরে যুব দলের এই ব্যর্থতাটা বাদ দিলে ফুটবলের বছরটা একেবারে খারাপ কাটেনি। বিশেষ করে জাতীয় দলের বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচগুলো ছিল আশা জাগানিয়া। কোনো জয় এখনো না মিললেও তাদের পারফরম্যান্সে সবাই খুশি।

জাতীয় দলটা যেহেতু তারুণ্য নির্ভর, বেশিরভাগ খেলোয়াড়ই যুব দলের- তাই এবার মানুষের প্রত্যাশা ছিল দক্ষিণ এশিয়ান গেমস ফুটবলে ভালো করবে বাংলাদেশ; কিন্তু হয়েছে তার উল্টো। শেষটা ভালো হয়নি বলে সবটা আরো ভালো হয়নি ফুটবলে।

saltamami-background_2

ফিফা ফ্রেন্ডলি ও বিশ্বকাপের বাছাইসহ বিদায়ী বছরে ৯টি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। জয়ের পাল্লাই ভারী। ৯ ম্যাচের চারটি জিতে হেরেছে তিনটিতে। ড্র হয়েছে ৩ ম্যাচ। যদিও বিদায়ী বছরে খেলা কাতার-২০২২ বিশ্বকাপ বাছাইয়ের চারটি ম্যাচ খেলে এখনো জয় পায়নি। তবে খেলে ফেলা ম্যাচগুলোতে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স ছিল আশা জাগানিয়া।

২০১৯ সালে জাতীয় দল প্রথম খেলেছি ফিফা ফ্রেন্ডলি ম্যাচ। মার্চে কম্বোডিয়া গিয়ে বাংলাদেশ জিতে এসেছিল ১-০ গোলে। এরপরই ছিল লাওসের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের প্রথম পর্বের দুটি ম্যাচ। জুনে লাওসে গিয়ে ১-০ গোলে জিতে ঢাকায় গোলশূন্য ড্র করেছিল বাংলাদেশ।

বিশ্বকাপ বাছাইয়ের গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ খেলেছিল আফগানিস্তানের বিপক্ষে। আফগানদের হোমভেন্যু তাজিকিস্তানের দুশানবেতে হয়েছিল ম্যাচটি এ বছর ১০ সেপ্টেম্বর। নিরপেক্ষ ভেন্যুতে হওয়া ম্যাচটি বাংলাদেশ হেরেছে গোল মিসের খেসারত দিয়ে। ১-০ গোলে আফগানদের কাছে হারলেও প্রথম ম্যাচটি দারুণ খেলেছিল লাল-সবুজ জার্সিধারীরা।

বছরে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের আরো তিনটি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। কাতার, ভারত এবং ওমানের বিপক্ষে- এ তিন ম্যাচের মধ্যে ১০ অক্টোবর ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে কাতারের বিরুদ্ধে এবং ১৫ অক্টোবর কলকাতার সল্টলেকে ভারতের বিরুদ্ধে দুর্দান্ত ফুটবল খেলেছে বাংলাদেশ। ঢাকায় কাতারের বিরুদ্ধে হেরেছে ২-০ গোলে। দ্বিতীয় গোলটি কাতার পেয়েছে শেষ মুহূর্তে। ২০২২ বিশ্বকাপের আয়োজক এবং এশিয়ান চ্যাম্পিয়নদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স ছিল বছরের সেরা।

পাঁচদিন পর কলকাতায় ভারতের বিপক্ষে ম্যাচটিও ছিল বাংলাদেশের অন্যতম সেরা। জিততে জিততে ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র করেছে স্বাগতিকদের সঙ্গে। সবচেয়ে বড় কথা অনেক দিন পর ভারতের বিপক্ষে প্রাধান্য নিয়ে খেলতে পেরেছিল বাংলাদেশ। মাঠে যে ভারতভীতি দেখা যেতো বাংলাদেশের ফুটবলারের মধ্যে তা ছিল না কলকাতার ম্যাচে।

saltamami-background_2

কাতার ও ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ দুটি সামনে রেখে প্রস্তুতির অংশ হিসেবে বাংলাদেশ উড়িয়ে এনেছিল ভুটানকে। সেপ্টেম্বরের ২৯ ও অক্টোবরের ৩ তানিখে ভুটানের বিরুদ্ধে দুটি ফ্রেন্ডলি ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ জিতেছিল ৪-১ ও ২-০ গোলে।

নভেম্বরে বছরের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচটি খেলেছে বাংলাদেশ। সেটিও ছিল বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচ; কিন্তু ওমানের মাটিতে ওমানের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ সুবিধা করতে পারেনি। ১৪ নভেম্বর মাসকাটের ম্যাচটি ৪-১ গোলে হারে বাংলাদেশ।

খুব বেশি না হলেও ফিফা র‍্যাংকিংয়ে অবস্থানটা ওপরের তুলেই বছর শেষ করেছে বাংলাদেশ। ২০১৮ সাল বাংলাদেশ শেষ করেছিল ১৯২ নম্বরে থেকে। এবার শেষ করেছে ১৮৭ নম্বরে থেকে। বিদায়ী বছরে ফিফা র্যাংকিংয়ে বাংলাদেশ ওপরে উঠেছে ৫ ধাপ।

আন্তর্জাতিক ফুটবলের পাশাপাশি বিদায়ী বছরে ঘরোয়া ফুটবল ছিল জমজমাট। এ বছর নতুন চ্যাম্পিয়ন পেয়েছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ। বসুন্ধরা কিংস প্রথমবারের মতো প্রিমিয়ার লিগে নাম লিখিয়েই ঘরে নিয়েছে শিরোপা। পাশাপাশি জিতেছে দুটি টুর্নামেন্টের একটি স্বাধীনতা কাপ। ফেডারেশন কাপ জিতেছে আবাহনী।

saltamami-background_2

বেশ কয়েকটি ক্লাব ভালো দল গড়ায় বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ জমজমাট হয়েছিল। জাতীয় দলের পারফরম্যান্স ভালো হওয়ার পেছনে কারণটাই ছিল ঘরোয়া ফুটবল প্রতিদ্বন্দ্বীতামূলক হওয়া।

ছেলেদের ফুটবল ভালো-মন্দের মিশেলে শেষ হলেও ২০১৯ সাল ভালো যায়নি নারী ফুটবলারদের। মেয়েদের বয়সভিত্তিক দল ভালো করলেও জাতীয় দল ব্যর্থ ছিল মাঠে। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিয়েছিল সাবিনারা। তবে অনূর্ধ্ব-১৬ দল এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের চূড়ান্ত পর্বে উঠে আগের সফলতা ধরে রাখতে পেরেছিল।

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পদচারণা থাকলেও মেয়েদের লিগটা মাঠে গড়ায়নি ২০১৯ সালেও। বাফুফে বেশ জোড় দিয়েই বলেছিল এ বছর মেয়েদের লিগ মাঠে গড়াবে। কিন্তু প্রতিশ্রæতি পর্যন্তই। বাফুফে কর্মকর্তাদের কথা আর কাজে কোনো মিল ছিল না মেয়েদের লিগ নিয়ে।

আরআই/আইএইচএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]