এসপি লালন আহমেদের স্মৃতিচারণায় প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৪৯ পিএম, ১৫ জুলাই ২০২২
খুলনার একটি বৃদ্ধাশ্রমে চেক বিতরণ করেন প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব এম এম ইমরুল কায়েস রানা ও এসপি দেওয়ান লালন আহমেদ

হৃদরোগে মারা যাওয়া গীতিকার ও পুলিশ কর্মকর্তা দেওয়ান লালন আহমেদকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করেছেন তার বন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব এম এম ইমরুল কায়েস রানা।

শুক্রবার (১৫ জুলাই) সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে স্মৃতিচারণ করে তিনি লেখেন, ‘বাপ্পি, এসপি দেওয়ান লালন আহমেদ- আমার বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাচমেট এবং বন্ধু। বাপ্পি পড়তো সরকার ও রাজনীতি বিভাগে আর আমি ইংলিশ ডিপার্টমেন্টে। দীর্ঘদিনের পথচলায় সম্পর্কটা কেবল ঘনিষ্ঠ থেকে ঘনিষ্ঠতরই হয়েছে।’

‘ঈদের ছুটিতে বাবা-মায়ের সঙ্গে ঈদ করতে খুলনায় গিয়েছিলাম। বিশ্ববিদ্যালয়ের আমাদের আরেক বন্ধু কমলেশের অনুরোধে খুলনার বটিয়াঘাটায় তার মায়ের নামে প্রতিষ্ঠিত বৃদ্ধাশ্রমে চেক বিতরণ করতে গেলাম ঈদের দিন বিকেলে। ওখান থেকেই বাপ্পির সঙ্গে ফোনে শেষ কথা আমার। বৃদ্ধাশ্রমটির উপদেষ্টা হিসেবে মাস ছয়েক আগে আমি আর লালন একসঙ্গে এরকম এক চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিলাম। সুলতা দেবী সেবাশ্রমের (বৃদ্ধাশ্রম) প্রতিষ্ঠাকালীন চারজন উপদেষ্টা- জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক ড. আফসার আহমেদ, গাজীপুরের এসপি এস এম শফিউল্লাহ, খুলনার তৎকালীন পুলিশ সুপার এসপি দেওয়ান লালন আহমেদ এবং আমি। এদের দুজন এরইমধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন।’

bappi-1

এম এম ইমরুল কায়েস রানা আরও লেখেন, ‘বাপ্পি ছিল তুখোড় একজন গীতিকার। সাহিত্যের ছাত্র হিসেবে গীত নিয়ে আমার সঙ্গে তার দীর্ঘ আলোচনা-সমালোচনা হতো। হোয়াটসঅ্যাপে তার নিজের কাজের প্রতিনিয়ত আপডেট পাঠাতো; পরামর্শ চাইতো। নিজের লেখা দুটি বইও অফিসে এসে আমাকে দিয়ে গেছে। খুলনায় ট্যুরিস্ট পুলিশে ওর পোস্টিং থাকা অবস্থায় যতবার খুলনা গিয়েছি লম্বা সময় একসঙ্গে কাটিয়েছি। এই দীর্ঘ মেলামেশায় তার সম্পর্কে আমার সহজ স্বীকারোক্তি- হি ইজ অ্যা গুড সোল, ইনডিড।’

‘জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সবুজ বনানী, বিস্তীর্ণ লেক এবং খোলা প্রান্তরের মতো অপার্থিব এক মোহময় পরিবেশে যে সম্পর্কের সৃষ্টি, তা কি কখনও শেষ হবার!’

সবশেষ তিনি লেখেন, ‘মহান আল্লাহতায়ালার কাছে প্রার্থনা- বন্ধু দেওয়ান লালন আহমেদ বাপ্পিকে বেহেস্তে নসিব করুন।’

এর আগে বৃহস্পতিবার (১৪ জুলাই) দুপুর দেড়টার দিকে পুলিশ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান পুলিশ সুপার দেওয়ান লালন আহমেদ।

এসইউজে/কেএসআর/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।