‘ভোক্তা অধিদপ্তরে অভিযোগের চাপ দেখে বিব্রত লাগছে’

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:১৫ পিএম, ২২ জুলাই ২০২২
ছবি: সংগৃহীত

মাহবুব কবির মিলন

গতকাল হোটেল-রেস্তোরাঁ, ক্যাফের সার্ভিস চার্জ নিয়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরে এক মত বিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলাম। হোটেল রেস্তোরাঁ মালিক সমতি এবং অন্যান্য খাবার আউটলেটের প্রতিনিধিবৃন্দ ছিলেন সেখানে। ক্যাব প্রতিনিধি এবং সিসিএস এর ইডি পলাশ ছিলেন।

এদিন বেশ আলোচনা হয়েছে। আরও কিছু মতামত গ্রহণ করা লাগবে হয়তো সার্ভিস চার্জের বিষয়টি ফয়সালা করার জন্য। আশা করা যায় পজিটিভ সিদ্ধান্ত নেয়া যাবে। এটি করতে পারলে অন্যান্য দপ্তর যারা সার্ভিস চার্জ নিয়ে থাকেন, তাদের বিষয়ে একটি পরিষ্কার ধারণা পাওয়া যাবে।

ভোক্তা অধিকার রক্ষায় এই দপ্তরের কোনো বিকল্প নেই আর। ডিজি মহোদয়ের চেম্বারে দীর্ঘসময় সব বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বর্তমান ডিজি একজন সৎ এবং ডায়নামিক অফিসার। তিনি তার কাজকে সবসময় Own করেন। যে গুণটি আমাদের অনেকের মধ্যেই নেই। এক ঝাঁক তরুণ উদ্যোমী এবং সৎ কর্মকর্তার সমন্বয়ে গঠিত ভোক্তা অধিদপ্তর দিয়ে তিনি অনেক কল্যাণের কাজ করতে পারবেন বলে আমার বিশ্বাস।

jagonews24ভোক্তা অধিদপ্তরের মতবিনিময় সভায় মাহবুব কবির মিলন/ছবি: সংগৃহীত

স্বল্প লোকবল নিয়ে এত অভিযোগ জমা পড়েছে যে, সেগুলো এড্রেস করা অসম্ভব। অভিযোগের কোন উত্তর পাওয়া যাচ্ছে না বলে বিস্তর অভিযোগ শোনা যায়। ভোক্তার লোকবল খুব দ্রুত বাড়াতে হবে, সেই সাথে দরকার নতুন সংশোধীত আইনটি পাশ করা।

আমিও সবাইকে বলি এবং সামাজিক মিডিয়ায় লিখে থাকি, ভোক্তার অধিকার ক্ষুণ্ণ হওয়া মাত্রই ভোক্তায় অভিযোগ করতে। অভিযোগ সঠিক হলে অবশ্যই রিমেডি পাওয়া যায় বা যাবে। এখন ভোক্তার চাপ দেখে নিজের কাছেই বিব্রত লাগছে।

রনি আমাকে ফোন করলে তাঁকেও বলেছি, ভোক্তায় অভিযোগ করে ধৈর্য্য ধরে একটু অপেক্ষা করতে। অবশেষে তার অভিযোগের একটি ভালো ফয়সালা করেছে ভোক্তা অধিদপ্তর। অন্তত শুভসূচনা হলো একটি বিষয়ের। ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের জন্য শুভকামনা।

এএএইচ/জিকেএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।