মোটরসাইকেলের সিসি সীমা বাড়ানোর সিদ্ধান্তের আগে ভাবতে হবে যা

সাইফুল হক মিঠু
সাইফুল হক মিঠু সাইফুল হক মিঠু
প্রকাশিত: ০৯:১৯ এএম, ০৩ মার্চ ২০২১

#চালক দক্ষ হলে সিসি সীমা বাড়লেও কমবে দুর্ঘটনা
#সিসি সীমা বাড়ানোর আগে সড়ক নিরাপত্তা নিশ্চিতের তাগিদ

মোটরসাইকেলের স্থানীয় বাজারের দীর্ঘদিনের চাওয়া পূরণ করতে এবার সিসি (ইঞ্জিনক্ষমতা) সীমা বাড়ানোর কথা ভাবছে সরকার। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্টরা বিষয়টির বিভিন্ন দিক বিশ্লেষণ করছে। ১৬৫ সিসি থেকে ৩৫০ সিসি পর্যন্ত মোটরসাইকেলের অনুমতি দেয়ার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। ফলে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন মোটরসাইকেলের ওপর দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।

সড়ক ও গণপরিবহন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সিসি সীমা বাড়ানোর আগে প্রশস্ত সড়কের পাশাপাশি চালকের নিরাপত্তার জন্য উন্নতমানের হেলমেট নিশ্চিত করতে হবে। পাশাপাশি দক্ষ চালক তৈরি করে লাইসেন্স দিলে সিসি সীমা বাড়ালেও দুর্ঘটনা কমবে।

এ বিষয়ে অ্যাকসিডেন্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউটের গবেষক ও বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) সহকারী অধ্যাপক সাইফুন নেওয়াজ জাগো নিউজকে বলেন, ‘সিসির সঙ্গে গতি বা দুর্ঘটনার খুব একটা সম্পর্ক নেই। আমাদের এখন ১৬৫ সিসি সীমা আছে। বাংলাদেশে ১৫০ কিলোমিটার/ঘণ্টা কিংবা ১৬৫ কিলোমিটার/ঘণ্টা গতি তোলার সড়ক তো নেই। এখন যদি সিসি সীমা ২৫০ থেকে ৩০০ করি তাহলে খুব বেশি পার্থক্য হবে না। কেননা যার ১৫০ সিসির মোটরসাইকেল আছে তিনিও তো ১৫০ তুলতে পারছেন না। সুতরাং সিসি সীমা বাড়লেই কী? সিসি বাড়লেও স্পিড যদি না বাড়ে তাহলে খুব বেশি পার্থক্য হবে না। সিসি সীমা বাড়লে গাড়িটা একটু হেভি হবে। ভালো গাড়ি আসবে।’

তিনি বলেন, ‘গতি ১০০ কিলোমিটারের ওপর উঠলে যে রিস্ক, ৩০০ কিলোমিটারেও একই। সিসি সীমা বাড়ানোর আগে অবশ্যই ভালো মানের হেলমেট ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। স্ট্যান্ডার্ন্ড হেলমেট যেগুলোর দাম ১০ থেকে ১২ হাজার টাকার ওপর। চালককে অবশ্যই সেইফটি ভেস্ট পরা বাধ্যতামূলক করতে হবে। যথাযথ ট্রেনিং দিয়ে বা পরীক্ষা নিয়ে চালকের লাইসেন্সের ব্যবস্থা করতে হবে।’

এ বিষয়ে যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী জাগো নিউজকে বলেন, ‘পৃথিবীর বহু দেশে মোটরসাইকেল নিষিদ্ধ করছে। চীনে কিছু প্রদেশে মোটরসাইকেল নিষিদ্ধ করছে। ইউরোপের অনেক দেশেই মোটরসাইকেল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। মোটরসাইকেলে দুর্ঘটনা বাড়ে। এসব যুক্তিতে অনেক দেশেই এই যান নিষিদ্ধ। অথচ আমাদের দেশ অনেক ছোট একটি দেশ। সেখানে মোটরসাইকেলের সিসি সীমা বাড়িয়ে জনগণকে কী সুবিধা দিতে চায় সরকার, সেটা স্পষ্ট করা প্রয়োজন। কারণ ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়ে ছাড়া কোনো মহাসড়কে ১০০ কিলোমিটার গতিতে মোটরসাইকেল চালানো যাবে না। আমি মনে করি এটা গণপরিবহনে একটা ভুল নীতি। অর্থাৎ বাস বিকশিত করার পরিবর্তে মোটরসাইকেলের নিবন্ধন ফি কমানো, সিসি সীমা বাড়ানো গণপরিবহনের ভুল নীতি। এটা থেকে সরকারের সরে আসা উচিত।’

‘সিসি সীমা বাড়লে কী সুবিধা হবে, কী অসুবিধা হবে সেটার একটা স্টাডি হওয়া দরকার। সেটা ছাড়া দুর্ঘটনার ঝুঁকি বাড়বে, মহাসড়কগুলো আরও অনিরাপদ হয়ে উঠবে। সড়ক নিরাপদ না করে সিসি সীমা বাড়ালে এখন মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার হার প্রায় ২৪ থেকে ২৫ শতাংশ, সেটা কিন্তু ৩০ থেকে ৩৫ শতাংশে ঠেকতে পারে বলে আমি মনে করি’—বলেন মোজাম্মেল হক।

এসএম/ইএ/এসএইচএস/এইচএ/জেআইএম

গতি ১০০ কিলোমিটারের ওপর উঠলে যে রিস্ক, ৩০০ কিলোমিটারেও একই। সিসি সীমা বাড়ানোর আগে অবশ্যই ভালো মানের হেলমেট ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]