২০ দল-ঐক্যফ্রন্ট এড়িয়ে যুগপৎ আন্দোলনের ছক বিএনপির

খালিদ হোসেন
খালিদ হোসেন খালিদ হোসেন , জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:১৫ এএম, ২৫ অক্টোবর ২০২১

নির্বাচন কমিশন (ইসি) পুনর্গঠনের আগেই মাঠের রাজনীতিতে দলীয় অবস্থান শক্ত করতে চায় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)। সম্প্রতি দলটির শীর্ষ নেতাদের সিরিজ বৈঠকে এমন পরামর্শই এসেছে। সেই লক্ষ্যে সুস্পষ্ট দাবি নিয়ে আন্দোলনের ছক কষছে দলের হাইকমান্ড। তবে আগামীতে সব আন্দোলনে ২০ দলীয় জোট এবং জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে এড়িয়ে চলতে চাইছে দলটি।

দলীয় সূত্র বলছে, সরকারবিরোধী আন্দোলনে যুগপৎভাবে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলকে সঙ্গে নেওয়ার চিন্তা-ভাবনা করছে বিএনপি। সেখানে বাম ঘরানা এবং মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের রাজনৈতিক দলগুলোকে টানতে চায় তারা। তবে তাদের দীর্ঘদিনের মিত্র জামায়াতকে নিয়ে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের এবং বাম ঘরানা দলগুলোর ঘোর আপত্তি থাকায় তাদের ছেড়েই এগোনোর চিন্তা আছে বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্বের।

সরকারবিরোধী আন্দোলন যেভাবে
বিভিন্ন পর্যায়ে কথা বলে জানা গেছে, আগামী দিনে সরকারবিরোধী আন্দোলনে কোনো জোট গঠন করতে চায় না বিএনপি। ইস্যুভিত্তিক যুগপৎ আন্দোলনে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে তারা। কারণ এরই মধ্যে রাজনৈতিক দলগুলো নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা প্রকাশ করেছে। এ ইস্যু নিয়েই বিএনপি যুগপৎ আন্দোলনের সূচনা করতে চায়। ইতোমধ্যে দলের শীর্ষ নেতারা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে এ কৌশল নিয়ে আলোচনাও করেছেন। তিনি এ বিষয়ে সবুজ সংকেত দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

২০ দল ও ঐক্যফ্রন্ট কার্যকরে ‘অনীহা’
ঘোষণা দিয়ে এরই মধ্যে বেশ কয়েকটি দল বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট ছেড়েছে। অন্য যে দলগুলো রয়েছে, তাদের অস্তিত্ব নেই বললেই চলে। প্রকৃত অর্থে এখন ২০ দলীয় জোট কার্যকর কোনো জোট নয়। বর্তমানে কর্নেল (অব.) ড. অলি আহমদের লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এলডিপি) ও মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিমের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি ছাড়া কোনো দলের অস্তিত্ব নেই। এ দুই দলের নেতৃত্বে আবার গঠিত হয়েছে ‘জাতীয় মুক্তিমঞ্চ’ নামে আরেকটি প্লাটফর্ম। স্বভাবতই আন্তর্জাতিকভাবে গ্রহণযোগ্যতা নেই ২০ দলীয় জোটের বেশিরভাগ দলের। ফলে এটি এখন কাগুজে জোট অনেকের কাছে।

অন্যদিকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নিয়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যেই তীব্র অসন্তোষ রয়েছে। ২০১৮ সালের নির্বাচন ঘিরেই বিএনপির একটি অংশ ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন ঐক্যফ্রন্টকে সরকারের ফাঁদ বলে প্রচার চালিয়েছিল। নির্বাচনের পর ঐক্যফ্রন্ট প্রায় চুপসে যাওয়ায় সেই প্রচারটিই চলছে জোরেশোরে। ফলে ২০ দলের পাশাপাশি ঐক্যফ্রন্টকে এড়িয়ে আন্দোলনের প্রস্তুতি নিচ্ছে বিএনপি।

jagonews24

যে কারণে জামায়াত ছাড়তে চাইছে বিএনপি
ভোটের রাজনীতির কথা চিন্তা করে জামায়াতকে দীর্ঘদিন সঙ্গে রেখেছে বিএনপি। তবে এবার জামায়াত নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে চায় দলটি। দলের নেতারা বলছেন, গোঁড়া ভাবাদর্শ ও নাশকতায় অভিযুক্ত জামায়াতকে সঙ্গে রাখায় আন্তর্জাতিক অঙ্গনে দীর্ঘদিন ধরে ‘সংকটে’ রয়েছে বিএনপি। স্বাধীনতার বিরুদ্ধে ভূমিকা রাখা জামায়াতের কারণে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের বাম ও মধ্যমপন্থি দলগুলোও বিএনপির সঙ্গে দূরত্ব বজায় রেখে চলে। অথচ এসব দলের আন্তর্জাতিক অঙ্গনে গুরুত্ব রয়েছে। ফলে জামায়াত ছাড়ার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে যেতে পারে বিএনপি।

এদিকে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত বিএনপির সব বৈঠকে ২০ দলীয় জোট ভেঙে দেওয়া এবং জামায়াতের সঙ্গত্যাগের পরামর্শ দিয়েছেন দলের নেতারা। ফলে এ বিষয়ে স্পষ্ট সিদ্ধান্তে আসতে পারে দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাইরে থাকা বিএনপি। এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

গুরুত্ব পাচ্ছে যেসব দাবি
বিএনপির বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, যুগপৎ আন্দোলনে মোটাদাগে বিএনপি কয়েকটি ইস্যু গুরুত্ব দিতে চায়। এর মধ্যে অন্যতম- নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন, নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠন, জনগণের ভোটের অধিকার নিশ্চিত করা, হত্যা-নির্যাতন-হামলা বন্ধ, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা নিশ্চিত করা ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির দায়িত্বশীল এক নেতা জাগো নিউজকে বলেন, ‘যুগপৎ আন্দোলন নিয়ে চিন্তা-ভাবনা চলছে। এ নিয়ে আলোচনাও হয়েছে। যুগপৎ আন্দোলন মানে সব দল একই ধরনের কর্মসূচি দেবে। তবে সেগুলো আয়োজন করা হবে আলাদা আলাদাভাবে।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের প্ল্যাটফর্ম থেকে আমরা কর্মসূচি পালন করবো, অন্যরা তাদের প্ল্যাটফর্ম থেকে করবে। সবাই সবাইকে সহযোগিতা করবো। তারা আমাদের আমন্ত্রণ জানালে তাদের কর্মসূচিতে আমরা অংশ নেবো। আমরাও আমাদের কর্মসূচিতে আমন্ত্রণ জানাবো তাদের। তারা এলে সাদরে গ্রহণ করা হবে।’

জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, ‘আগামী বছরের শুরুতেই নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন করা হবে বলে জানতে পারছি। আমাদের দাবি, নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠন করা হোক। তবে তার আগে আগামী নির্বাচন নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে অনুষ্ঠিত হতে হবে। এটাই আমাদের প্রধান দাবি। এসব দাবি নিয়ে বিএনপি যুগপৎ আন্দোলনের কথা ভাবছে। এর মাধ্যমে বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলাই আমাদের লক্ষ্য।’

কেএইচ/এএএইচ/এইচএ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]