সৌম্যর ১৫৪কেও ম্লান করে দিল ব্রাদার্স

ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৩৩ পিএম, ০৪ এপ্রিল ২০১৮

১১ ছক্কায় তিনি রেকর্ড গড়েছেন। ছুঁয়ে ফেললেন মাশরাফি বিন মর্তুজার ছক্কার রেকর্ডকে। বাংলাদেশে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে এতদিন এককভাবে ছক্কার রেকর্ড ছিল মাশরাফির দখলে। এবার সে জায়গাটা ভাগাভাগি করবেন সৌম্য। ১২৭ বলে ৯ বাউন্ডারি এবং ১১ ছক্কায় সৌম্য সরকারের খেলা ১৫৪ রানের বিশাল ইনিংসকেও কিন্তু ম্লান করে দিয়েছে ব্রাদার্স ইউনিয়ন। সৌম্যর অগ্রণী ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবকে ব্রাদার্স হারিয়েছে ৪ উইকেটের ব্যবধানে। হাতে তখনও বাকি ছিল ১০টি বল।

বিকেএসপির ৪ নম্বর গ্রাউন্ডে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে সৌম্যর ঝড়ে ব্রাদার্সের সামনে ৩৩৪ রানের বিশাল স্কোর গড়ে তোলে অগ্রণী ব্যাংক। যদিও অলআউট হয়ে গিয়েছিল অগ্রণী ব্যাংক। ৫ বল বাকি ছিল তখনও। সৌম্যর ১৫৪ রানের পাশাপাশি ভারতীয় তারকা ঋষি ধাওয়ান ৬৫ বলে অপরাজিত ছিলেন ৮০ রানে। এছাড়া ২৫ রান করেন ধীমান ঘোষ এবং ২৪ রান করেন শাহরিয়ার নাফীস।

ব্রাদার্সের হয়ে ৩টি করে উইকেট নেন সোহরাওয়াদী শুভ এবং শাখাওয়াত হোসাইন। ১টি করে উইকেট নেন ইফতিখার সাজ্জাদ এবং মায়শুকুর রহমান। বাকি দু’জন হলেন রানআউট।

৩৩৪-এর বিশাল রানের নিচে চাপা পড়ে যেখানে পিলে চমকে ওঠার কথা ব্রাদার্সের, সেখানে তারা উল্টো প্রতিরোধ গড়ে দাঁড়াল। দুই ওপেনার মিজানুর রহমান এবং জুনায়েদ সিদ্দিকী ১৩.৪ ওভারেই গড়েন ১২১ রানের বিশাল জুটি। এ সময় ৪৫ বলে ৬২ রান করে আউট হন মিজানুর রহমান। জুনায়েদ সিদ্দিকী ৭৭ বল খেলে আউট হন ৮৩ রান করে। তিনি যখন আউট হন তখন ব্রাদার্সের দলীয় রান ছিল ১৯৮ রান।

এরপর তিন নম্বরে ব্যাট করতে নেমে মায়শুকুর রহমান ৯৫ বলে খেলেন ৮২ রানের ইনিংস। ৬২ বলে দেবব্রত দাস ৭৩ রান করে আউট হন। এরপর অলক কাপালি, ইয়াসির আলি দ্রুত আউট হয়ে গেলেও নাজমুস সাদাত এবং সোহরাওয়ার্দী শুভ দলকে ১০ বল হাতে রেখেই দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছ যায় ব্রাদার্স ইউনিয়ন।

অগ্রণী ব্যাংকে হারিয়ে রেলিগেশন লিগ থেকে ব্রাদার্স ইউনিয়নই উঠে গেলো পরবর্তী লিগে। রেলিগেটেড হয়ে প্রথম বিভাগে নেমে গেলো অগ্রণী ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব এবং কলাবাগান ক্রীড়া চক্র।

আইএইচএস/এমএস