ইমরান খানের পরই ইয়াসির শাহ

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:০৬ পিএম, ২৭ নভেম্বর ২০১৮

আবুধাবিতে নিশ্চিত জয়ের ম্যাচটি শেষ মুহূর্তে ৪ রানে হেরে যাওয়ার কারণে পাকিস্তান যেন তেতেই ছিল। দুবাইতে এর প্রতিশোধ নিতে হবে। কিন্তু প্রতিশোধটা যে এভাবে এক তরফা হয়ে যাবে তা কে ভাবতে পেরেছিল? একা এক ইয়াসর শাহের হাতেই বিধ্বস্ত হতে হলো পুরো নিউজিল্যান্ড দলকে। প্রথম ইনিংসে ৮ উইকেট, দ্বিতীয় ইনিংসে ৬ উইকেট নিয়ে একাই তিনি ধ্বস নামান কিউই ইনিংসে। যার ফলে পাকিস্তান জয় পেয়েছে এক ইনিংস ও ১৬ রানের ব্যবধানে।

পাকিস্তানের হয়ে অসাধারণ সাফল্য দেখিয়েছেন ইয়াসির শাহ। যার ফলশ্রুতিতে ম্যাচ সেরা পুরস্কারও উঠলো এই লেগ স্পিনারের হাতে। শুধু তাই নয়, দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দিয়ে ইয়াসির শাহ একটি অসাধারণ রেকর্ডেও নিজের নাম বসিয়ে দিলেন।

পাকিস্তানের কিংবদন্তি ক্রিকেটার, বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক এবং বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান পাকিস্তানের হয়ে সেরা বোলিং নৈপুন্য দেখিয়েছিলেন আজ থেকে ৩৬ বছর আগে। ১৯৮২ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১১৬ রান দিয়ে ১৪ উইকেট নিয়েছিলেন ইমরান খান।

১৮৪ রান দিয়ে দুবাইতে ১৪ উইকেট নিলেন ইয়াসির শাহ। তার এই রেকর্ডের কারণে ইমরান খানের পরই বসে গেলো ইয়াসির শাহের নাম। শুধু তাই নয়, একই সঙ্গে শ্রীলঙ্কান কিংবদন্তী, সদ্য অবসে যাওয়া রঙ্গনা হেরাথের একটি রেকর্ডও ভেঙে দিলেন ইয়াসির শাহ। আরব আমিরাতের মাটিতে এতদিন সেরা বোলিং ছিল হেরাথের। ১৩৬ রান দিয়ে ১১ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি গত বছর, এই পাকিস্তানের বিপক্ষেই। এবার সেই হেরাথকেই পেছনে ফেলে দিলেন ইয়াসির।

পাকিস্তানের হয়ে এতদিন দ্বিতীয় সেরা বোলিং ফিগার ছিল আরেক লেগ স্পিনার আবদুল কাদিরের। ১৯৮৭ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১০১ রান দিয়ে ১৩ উইকেট নিয়েছিলেন এই স্পিনার। তাকে ছাড়িয়ে গেলেন এবার ইয়াসির শাহ। ১৯৫৬ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ১১৪ রান দিয়ে ১৩ উইকেট নিয়েছিলেন ফজলে মাহমুদ।

ইয়াসির শাহের ছেয়ে আর দু’জন লেগ স্পিনারের সেরা বোলিং সাফল্য রয়েছে। নরেন্দ্র হিরওয়ানি এবং অনিল কুম্বলে। ১৯৮৮ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে চেন্নাইতে অভিষেকেই ১৩৬ রান দিয়ে ১৬ উইকেট নিয়েছিলেন হিরওয়ানি।

১৯৯৯ সালে অনিল কুম্বলে পাকিস্তানের বিপক্ষে ১৪৯ রান দিয়ে নিয়েছিলেন ১৪ উইকেট। ওই ম্যাচেই এক ইনিংসে ৭৪ রান দিয়ে ১০ উইকেট নেয়ার ঘটনা ঘটিয়েছিলেন কুম্বলে। আর সব মিলিয়ে ইয়াসির শাহের এই ম্যাচ ফিগার সেরা বোলিংগুলোর মধ্যে ঠাঁই করে নিয়েছে আট নম্বরে।

সবচেয়ে সেরা বোলিং ফিগার হচ্ছে ইংল্যান্ডের জিম লেকারের। ১৯৫৬ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ম্যানচেস্টারে ১৯ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। ১৬ উইকেট রয়েছে নরেন্দ্র হিরওয়ানি এবং মুত্তিয়া মুরালিধরনের। ১৫ উইকেট রয়েছেন হরভজন সিংয়ের। ১৪ উইকেট রয়েছে ৫ জন বোলারের। যাদের মধ্যে ইয়াসির শাহ একজন।

আইএইচএস/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।