আফিফের ব্যাটিং ভালো লেগেছে ওয়ার্নারের

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:১৫ পিএম, ০৯ জানুয়ারি ২০১৯

টসে জিতে আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্তটা তখন বুমেরাং হয়ে নিজেদের দিকেই ফিরে আসার জোগাড়। ব্যাট করতে নেমে ইনিংস শুরুর ১৬ বলের মধ্যেই আউট প্রথম সারির তিন ব্যাটসম্যান। লিটন কুমার দাস ০, নাসির হোসেন ৩ এবং সাব্বির রহমান ০ রানে আউট হলে সিলেট সিক্সার্সের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৩ উইকেটে ৬ রান।

একপাশে তখনো টিকে ছিলেন অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার, পাঁচ নম্বরে উইকেটে আসেন তরুণ ব্যাটসম্যান আফিফ হোসেন ধ্রুব। এমন চাপের মুখে কতোটা কার্যকর হবেন ১৯ বছর বয়সী আফিফ, তা নিয়ে নিশ্চিত ছিল না কেউই। কিন্তু সে সংশয় দূর করে দিতে খুব বেশি সময় নেননি বাঁহাতি আফিফ।

মুখোমুখি চতুর্থ বলে নাঈম হাসানকে মিড উইকেটে উড়িয়ে বিশাল ছক্কার মারে দূরে সরিয়েছেন নিজের ওপর থাকা চাপ। পরের ওভারে সিকান্দার রাজাকে জোড়া চার মেরে জানান দিয়েছেন নিজের আত্মবিশ্বাসের কথা। সে আত্মবিশ্বাসের জোরেই আবু জায়েদ রাহীকে লং অন বাউন্ডারিতে এবং খালেদ আহমেদের ওভারে ছক্কা মেরেছেন ডিপ ফাইন লেগ বাউন্ডারি দিয়ে।

চতুর্থ উইকেট জুটিতে মাত্র ৪৭ বলে ৭১ রানের জুটি গড়েন আফিফ এবং ওয়ার্নার। এ জুটির পুরোটা সময়েই ওয়ার্নারের চেয়েও বেশি আধিপত্য বিস্তার করে খেলেছেন আফিফ। উইকেটের চারপাশেই খেলেছেন দৃষ্টিনন্দন কিছু শট। তাকে এমন স্বাচ্ছন্দ্যে খেলতে দেখে নির্ভার হয়ে খেলতে পেরেছেন অধিনায়ক ওয়ার্নারও। পরে আফিফের বিদায়ে তিনিও এগিয়েছেন নিজের মতো করে।

ম্যাচ শেষে আফিফকে তার প্রাপ্য কৃতিত্ব দিয়ে ওয়ার্নার জানিয়েছেন, নিজের মতো করেই সফল হয়েছেন এ তরুণ। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে ওয়ার্নার বলেন, 'শুরুতে ৬ রানেই ৩ উইকেট হারালে চিন্তায় পড়াই স্বাভাবিক। তবে আমরা সে অবস্থা থেকে ঘুরে দাঁড়িয়েছি। ওমন শুরুর পরেও দারুণ একটা পুঁজি পাওয়ায় ম্যাচ সহজ হয়ে গিয়েছিল। আমি আফিফকে বলেছিলাম পুরো ২০ ওভার খেলতে হবে। তবে সে তার নিজের মতো করেই খেলেছে, নিজের খেলার ধরণটা ধরে রেখেছে। এর পুরো কৃতিত্ব তার। পুরো টুর্নামেন্টজুড়েই সে আমাদের হয়ে ভালো করতে যাচ্ছে।'

পরে ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে আফিফ নিজেও জানিয়েছেন, ওয়ার্নারের সাথে জুটির সময় তিনি খেলেছেন নিজের মতো করেই। আফিফের ভাষ্যে, 'আমি চেয়েছি আমার নিজের গেমটা খেলার, আমি সবসময় যেটা চেষ্টা করি। তো ওভাবেই আমি খেলতে চেষ্টা করেছি। বল সিলেক্ট করে ভাল বলগুলি সিঙ্গেলস নেয়ার চেষ্টা করেছি, বাজে বলগুলি চেষ্টা করেছি বাউন্ডারি মারতে।'

তবে ওয়ার্নারের সাথে ব্যাটিং করায় বাড়তি আত্মবিশ্বাস পেয়েছেন বলে জানান আফিফ। তিনি বলেন, 'ওয়ার্নারের সাথে যখন ব্যাটিংয়ে ছিলাম অবশ্যই জিনিসটা খুব ভাল লাগার ছিল। এত বড় একজন ব্যাটসম্যান, তার সাথে ব্যাটিং করছি, তো এই জিনিসটা আত্মবিশ্বাস দিয়েছে। আর ও অনেক কিছু পরামর্শ দিচ্ছিলো, যেগুলো ব্যাটিংয়ের সময় কাজে লেগেছে।'

এসএএস/এমএমআর/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :