পেরেরার মহাকাব্যিক ইনিংসই টেস্ট ইতিহাসে সেরা!

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:৪৪ পিএম, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

ইন্টারন্যাশন ক্রিকেট কাউন্সিল আইসিসি ডারবান টেস্টে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে কুশল পেরেরা মহাকাব্যিক ইনিংসে শ্রীলঙ্কার অবিস্মরণীয় জয়ের পর টুইটে লিখেছে, ‘অ্যা মেমোরেবল অ্যান্ড হিস্টোরিক ডে অব টেস্ট ক্রিকেট।’

অন্য এক টুইটে আইসিসির বক্তব্য, ‘কুশল পেরেরার ১৫৩ রানের ইনিংস তাদেরকে (শ্রীলঙ্কা) সীমানার ওপারে পৌঁছে দিয়েছে। টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে ওয়ান অব দ্য গ্রেটেস্ট ইনিংস খেললেন তিনি। অ্যাবসোলিউটলি ইনক্রেডিবল।’

আইসিসির এই টুইটে রিটুইট হয়েছে প্রায় দুই হাজার। সেখানে আশুতোষ দাস নামে একজন লিখেছেন, ‘এটাই হচ্ছে টেস্ট ক্রিকেটের সৌন্দর্য। আমি এর আগে এ ধরনের কোনো ম্যাচ আর দেখিনি। হ্যাটস অব শ্রীলঙ্কা।’

ডারবানের কিংসমিডে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে চতুর্থ ইনিংসে ৩০৪ রান তাড়া করতে গিয়ে যখন শ্রীলঙ্কার ২২৬ রানে ৯ উইকেটে পতন ঘটলো, এরপরই খোদ লঙ্কানরাও ধরে নিয়েছিলেন- পরাজয় নিশ্চিত। কেউই তখন ভাবতে পারেননি শ্রীলঙ্কার জয়ের কোনো সম্ভাবনা রয়েছে। কারণ তখনও প্রয়োজন ৭৮ রান। হাতে উইকেট কেবল একটি।

এই পরিস্থিতিতে রাবাদা, ফিল্যান্ডার, স্টেইন, অলিভিয়ের কিংবা মাহারাজদের মোকাবেলা করে ১০ উইকেটে অবিশ্বাস্য এক জুটি উপহার দিয়ে শ্রীলঙ্কাকে ১ উইকেটে জয় এনে দিলেন কুশল জেনিথ পেরেরা। টেস্টের ইতিহাসে ১০ উইকেটে সেরা সফল জুটি। অপরাজিত ১৫৩ রানের এক মহাকাব্যিক ইনিংস উপহার দিয়েছেন কুশল পেরেরা।

এমন অবিশ্বাস্য ইনিংসকে তো এখন ক্রিকেট বিশ্ব টেস্ট ইতিহাসের সেরা ইনিংসের কাতারেই ফেলে দিচ্ছেন। কেউ কেউ তো বলেই দিলেন, এর চেয়ে সেরা ইনিংস আর হয় না।

Kusal-1

পেরেরার মোকাবেলা করা ২০০ বলের এই ইনিংসে রয়েছে ১২টি বাউন্ডারি এবং ৫টি ছক্কা। লঙ্কান এই ক্রিকেটারের ইনিংসের সঙ্গে তুলনা হচ্ছেন টেস্ট ইতিহাসের আরেক সেরা ইনিংস, ১৯৯৯ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ব্রায়ান লারার সেই ম্যাচ জেতানো ইনিংসটির।

১৯৯৯ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে বার্বেডোজে শেষ উইকেটে কোর্টনি ওয়ালশকে নিয়ে টেস্ট জিতিয়েছিলেন ব্রায়ান লারা। ক্যারিবীয় কিংবদন্তিও সেবার ৫ নম্বরে নেমে অপরাজিত ছিলেন ১৫৩ রানে। এবারও কুশল পেরেরা মাঠে নামেন ৫ নম্বরে। এবং তিনিও ব্যাট করেন বাঁ-হাতে।

তবে কুশল পেরেরার এই ইনিংসটাকে ব্রায়ান লারার চেয়েও সেরা বলার আরেকটি বড় কারণ হচ্ছে, লারা সেরা ওই অসাধারণ ইনিংসটি খেলেছিলেন নিজেদের মাঠে। আর পেরেরা খেললেন শত্রুর মাঠে। শুধু তাই নয়, দক্ষিণ আফ্রিকার বোলিং লাইনআপ সম্ভবত বর্তমান বিশ্বের সেরা বোলিং লাইনআপ। তাদের মোকাবেলা করে চতুর্থ ইনিংসে খেলা পেরেরার এই ইনিংসটিকেই অনেকে টেস্ট ইতিহাসেরই সেরা আখ্যায়িত করতে শুরু করেছেন।

ভারতের কোচ রবি শাস্ত্রী লিখেন, ‘কুশল পেরেরা, ইউ বিউটি। ১১ নম্বরে তুমি একাই এতবড় একটি লড়াই করলে। টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসেই অন্যতম সেরা একটি ইনিংস খেলে দেখালে তুমি।’

নবনিত মধুরা নামে একজন টুইটারে পেরেরার ইনিংসের ভিডিও পোস্ট করে লিখেছেন, ‘ঐতিহাসিক ডারবান টেস্টে শ্রীলঙ্কা এবং দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার ঐতিহাসিক মুহূর্তটি দেখুন। কুশল পেরেরা, সন্দেহাতীতভাবেই টেস্ট ক্রিকেটের সেরা ইনিংসটি উপহার দিয়েছেন তিনি। অবশ্যই, শ্রীলঙ্কান ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সেরা। ৫০ বছর পরেও ক্রিকেট ভক্তদের হৃদয়ে জ্বলজ্বল করবে পেরেরার এই ইনিংস।’

ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক মাইকেল ভন তো বিস্ময়ে হতবাক। টুইটারে তিনি লিখেন, ‘কুশল পেরেরা!!! ওয়াও... টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে সর্বকালের সেরা ইনিংসগুলোর একটি।’

ইএসপিএন ক্রিকইনফো টুইটারে লিখেছে, ‘টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে অন্যতম সেরা রান তাড়া করা জয়ের সেরা তারকা কুশল পেরেরা।’

টুইটারে ক্রিকেটওয়ালা নামে জনপ্রিয় একটি আইডি থেকে লেখা হয়েছে, ‘অবিশ্বাস্য, সত্যিই অবিশ্বাস্য। শ্রীলঙ্কা দ্বিতীয় টেস্টে ১ উইকেটে জয় সিরিজে সমতায় এসেছে (মূলতঃ এটা হবে প্রথম টেস্ট এবং শ্রীলঙ্কা দুই ম্যাচের সিরিজে এগিয়ে ১-০ ব্যবধানে)। শেষ জুটি স্পেইন, ফিল্যান্ডার, রাবাদা, অলিভিয়ের, মাহারাজদের মোকাবেলা করে যোগ করেছে ৮৪ রান (মূলতঃ হবে ৭৮ রান)। কুশল পেরেরা, আমার কাছ থেকে শ্রদ্ধা গ্রহণ করো। তোমার করা অপরাজিত ১৫৩ রানের ইনিংসটি টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে অসাধারণ সুন্দর এবং সেরা একটি ইনিংস হয়ে থাকবে।’

ভারতীয় স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন লিখেছেন, ‘কে বলেছে টেস্ট ক্রিকেট মৃত্যুবরণ করতে যাচ্ছে? শ্রীলঙ্কা, সত্যিই তোমরা টেস্ট ক্রিকেটের সৌন্দর্য দেখিয়েছে। আর কুশল পেরেরা, আমার পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা গ্রহণ করো। অসাধারণ একটি জয় তোমাদের।’

পেরেরার ইনিংস নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফ্যাফ ডু প্লেসি বলেন, ‘পেরেরার ব্যাট থেকে সুপারম্যানের ইনিংস পাওয়া গেল। অবিশ্বাস্য ম্যাচ দেখলাম।’

টুইটে শুভেচ্ছাবার্তা জানাচ্ছেন শ্রীলঙ্কার কিংবদন্তি ক্রিকেটাররাও। কুমার সঙ্গকারা যেমন টুইট করেছেন, ‘বিদেশে রান তাড়া করার ক্ষেত্রে কুশল পেরেরা সম্ভবত শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট ইতিহাসে সেরা ইনিংসটা খেলল।’ জয়াবর্ধনে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে লিখেছেন, ‘পেরেরার ক্ষুরধার ক্রিকেট মস্তিষ্কের পরিচয় পাওয়া যাচ্ছে এই ইনিংসে।’

আইএইচএস/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :