‘রান করে আত্মবিশ্বাস ফিরে পেয়েছে ব্যাটসম্যানরা’

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৪৭ পিএম, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

ওয়ানডে সিরিজে যারপরনাই ব্যর্থ ছিলো বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। মিডল অর্ডারে মোহাম্মদ মিঠুন ও সাব্বির রহমান এবং লেট অর্ডারে মোহাম্মদ সাইফউদ্দীন ও মেহেদি হাসান মিরাজ ব্যতীত কারো ব্যাটেই মেলেনি রানের দেখা। পুরোপুরি অন্ধকারে ছিল টপঅর্ডারদের ব্যাট।

তবে টেস্ট সিরিজের আগে একমাত্র দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচে রানের দেখা পেয়েছেন প্রায় সবাই। পঞ্চাশ করেছেন সাদমান ইসলাম অনিক (৬৭), মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (৫৯), লিটন কুমার দাস (৬২) এবং মেহেদি হাসান মিরাজ (৫১)। এছাড়া চল্লিশ ছাড়িয়েছেন তামিম ইকবাল (৪৫) ও সৌম্য সরকার (৪১)। প্রথম দিনে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ৪১১ রান।

তরুণ বাঁহাতি ওপেনার সাদমান ইসলাম মনে করছেন প্রস্তুতি ম্যাচের এই রান পাওয়াটা কাজে দেবে টেস্ট সিরিজের মূল ম্যাচে। দলের প্রায় সবাই রান করার মাধ্যমে নিজেদের আত্মবিশ্বাস ফিরে পেয়েছে বলে জানান সাদমান।

দিন শেষে এক ভিডিও বার্তায় ২৩ বছর বয়সী এ ব্যাটসম্যান বলেন, ‘আজকে ব্যাটিংয়ে খুব ভালো আত্মবিশ্বাস এসেছে যে কিভাবে খেলতে হবে এখানে। উইকেট কেমন হবে সে ধারণা হয়েছে। দলের সবাই খুব ভালো ব্যাটিং করেছে। ওদের পেস বোলার যাদের খেলেছি, সবাই ভালো বোলিং করে। গতিময় বোলারদের খেলেই আমরা রান করেছি।’

টেস্টেও এই আত্মবিশ্বাস ধরে রাখার আশাবাদ ব্যক্ত করে সাদমান বলেন, ‘আজকে যেভাবে ব্যাটিং করেছে পুরো দল, মূল ম্যাচেও এভাবে করতে পারলে বড় একটি স্কোর গড়তে পারব। আজকে সবাই নিজেদের মতো করে স্বাচ্ছ্যন্দ নিয়ে ব্যাট করেছে। আশা করি টেস্টেও এভাবে খেলতে পারব সবাই।’

নিউজিল্যান্ডে খেলতে গেলে সবসময়ই চিন্তার কারণ থাকে সেখানের অত্যধিক বাতাস। যার সঙ্গে মানিয়ে নিতে বেগ পেতে হয় সফরকারী দলগুলোকে। তবে সাদমান জানালেন এরই মধ্যে ব্যাটিং কোচের সঙ্গে বিরুদ্ধ কন্ডিশনে খেলার ব্যাপারে কাজ করেছেন তিনি। যা কাজে লাগাতে চান মূল সিরিজে।

সাদমানের ভাষ্যে, ‘আমাদের অনুশীলনের সময় অনেক বাতাস ছিল। এখানে সবাই বলেছে যে হ্যামিল্টন-ওয়েলিংটনে টেস্ট খেলতে হলে বাতাসে মানিয়ে নিতেই হবে। ৮ দিন আগে এসেছি আমি, অনুশীলন করেছি। আমাদের ব্যাটিং কোচ বলে দিয়েছেন কিভাবে বাতাসে মানিয়ে নিতে হয়। বলেছেন একটু দেরিতে খেলতে, বল শরীরের কাছে থেকে খেলতে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি আজকে চেষ্টা করেছি সেভাবেই খেলতে। টেকনিক্যালি যেভাবে বলেছেন, যা দেখিয়ে দিয়েছেন, সেভাবেই করার চেষ্টা করেছি। একদম শেষ পর্যন্ত বল দেখে খেলার চেষ্টা করেছি। আমার মনে হয়েছে যে, আগে আসার কারণে মানিয়ে নিতে পেরেছি আমি। চেষ্টা করব মূল ম্যাচেও এভাবে খেলতে।’

এসএএস/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :